بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَنِ الرَّحِيمِ

In the Name of Allah, the
All-merciful, the All-compassionate


Farewell to the Month of Ramadan


دُعَاؤُهُ لِوَدَاعِ شَهْرِ رَمَضَانَ

 

1
O God, O He who desires no repayment!
أللَّهُمَّ يَا مَنْ لا يَرْغَبُ فِي الْجَزَاءِ،
1
2
O He who shows no remorse at bestowal!
وَلاَ يَنْدَمُ عَلَى الْعَطَآءِ،
2
3
O He who rewards not His servant tit for tat!
وَيَا مَنْ لاَ يُكَافِئُ عَبْدَهُ عَلَى السَّوآءِ،
3
4
Thy kindness is a new beginning, Thy pardon
gratuitous bounty,
مِنَّتُكَ ابْتِدَاءٌ، وَعَفْوُكَ تَفَضُّلٌ،
4
5
Thy punishment justice, Thy decree a choice for the
best!
وَعُقُوبَتُكَ عَـدْلٌ، وَقَضَاؤُكَ خِيَرَةٌ،
5
6
If Thou bestowest, Thou stainest not Thy bestowal
with obligation,
إنْ أَعْطَيْتَ لَمْ تَشُبْ عَطَآءَكَ بِمَنٍّ،
6
7
and if Thou withholdest, Thou withholdest not in
transgression.
وَإنْ مَنَعْتَ لَمْ يَكُنْ مَنْعُكَ تَعَدِّيا
7
8
Thou showest gratitude to him who thanks Thee, while
Thou hast inspired him to thank Thee.
تَشْكُرُ مَنْ شَكَرَكَ وَأَنْتَ أَلْهَمْتَهُ
شُكْرَكَ،
8
9
Thou rewardest him who praises Thee, while though
Thou hast taught him Thy praise.
وَتُكَافِئُ مَنْ حَمِدَكَ وَأَنْتَ عَلَّمْتَهُ
حَمْدَكَ،
9
10
Thou coverest him whom, if Thou willed, Thou wouldst
expose,
تَسْتُرُ عَلَى مَنْ لَوْ شِئْتَ فَضَحْتَهُ
10
11
and Thou art generous toward him from whom, if Thou
willed, Thou wouldst withhold.
وَتَجُودُ عَلَى مَنْ لَوْ شِئْتَ مَنَعْتَهُ،
11
12
Both are worthy of Thy exposure and withholding,
وَكِلاَهُمَا أَهْلٌ مِنْكَ لِلْفَضِيحَةِ
وَالْمَنْعِ،
12
13
but Thou hast founded Thy acts upon gratuitous
bounty,
غَيْرَ أَنَّكَ بَنَيْتَ أَفْعَالَكَ عَلَى
التَّفَضُّلِ،
13
14
channelled Thy power into forbearance,
وَأَجْرَيْتَ قُدْرَتَكَ عَلَى التَّجَاوُزِ،
14
15
received him who disobeyed Thee with clemency,
وَتَلَقَّيْتَ مَنْ عَصَاكَ بِالحِلْمِ،
15
16
and disregarded him who intended wrongdoing against
himself.
وَأمْهَلْتَ مَنْ قَصَدَ لِنَفْسِهِ بِالظُّلْمِ
16
17
Thou awaitest their turning back without haste and
refrainest from rushing them toward repentance,
تَسْتَنْظِرُهُمْ بِأناتِكَ إلى الإنَابَةِ وَتَتْرُكُ
مُعَاجَلَتَهُمْ إلَى التَّوْبَةِ
17
18
so that the perisher among them may not perish
because of Thee
لِكَيْلاَ يَهْلِكَ عَلَيْكَ هَالِكُهُمْ،
18
19
and the wretched may not be wretched through Thy
favour,
وَلا يَشْقَى بِنِعْمَتِكَ شَقِيُّهُمْ
19
20
but only after Thy prolonged excusing him
إلاَّ عَنْ طُولِ الإِعْذَارِ إلَيْهِ،
20
21
and successive arguments against him,
وَبَعْدَ تَرَادُفِ الْحُجَّةِ عَلَيْهِ
21
22
as an act of generosity through Thy pardon, O
Generous,
كَرَماً مِنْ عَفْوِكَ يَا كَرِيْمُ،
22
23
and an act of kindliness through Thy tenderness, O
Clement!
وَعَائِدَةً مِنْ عَطْفِكَ يَا حَلِيمُ.
23
24
It is Thou who hast opened for Thy servants a door
أَنْتَ الَّذِيْ فَتَحْتَ لِعِبَادِكَ بَاباً
24
25
to Thy pardon, which Thou hast named ‘repentance’.
إلَى عَفْوِكَ وَسَمَّيْتَهُ التَّوْبَـةَ،
25
26
Thou hast placed upon that door a pointer from Thy
revelation,
وَجَعَلْتَ عَلَى ذلِكَ البَابِ دَلِيلاً مِنْ
وَحْيِكَ
26
27
lest they stray from it: Thou hast said (blessed is
Thy Name),
لِئَلاَّ يَضِلُّوا عَنْهُ فَقُلْتَ تَبَارَكَ اسْمُكَ
:
27
28
“Repent toward God with unswerving repentance! It
may be that Thy Lord
(تُوبُوا إلَى الله تَوْبَةً نَصُوحاً عَسَى رَبُّكُمْ
28
29
will acquit of your evil deeds and will admit you
into
أَنْ يُكَفِّـرَ عَنْكُمْ سَيِّئاتِكُمْ
وَيُدْخِلَكُمْ
29
30
gardens beneath which rivers flow,
جَنَّات تَجْرِي مِنْ تَحْتِهَا الأنْهَارُ
30
31
upon the day when God will not degrade the Prophet
يَوْمَ لاَ يُخْزِي اللهُ النَّبِيَّ
31
32
and those who have faith along with him, their light
running before them and on their right hands,
وَالَّذِينَ آمَنُوا مَعَهُ نُورُهُمْ يَسْعَى بَيْنَ
أَيْدِيهِمْ وَبِأَيْمَانِهِمْ
32
33
and they say: ‘Our Lord, complete for us our light,
and forgive us!
يَقُولُونَ رَبَّنَا أَتْمِمْ لَنا نُورَنَا وَاغْفِرْ
لَنَا
33
34
Surely Thou art powerful over everything” (66:8).
إنَّكَ عَلَى كُلِّ شَيْء قَدِيرٌ)
34
35
What is the excuse of him who remains heedless of
entering that house
فَمَا عُذْرُ مَنْ أَغْفَلَ دُخُولَ ذلِكَ الْمَنْزِلِ
35
36
after the opening of the door and the setting up of
the pointer?
بَعْدَ فَتْحِ الْبَابِ وَإقَامَةِ الدَّلِيْلِ،
36
37
It is Thou who hast raised the price against Thyself
to the advantage of Thy servants,
وَأَنْتَ الَّذِي زِدْتَ فِي السَّوْمِ عَلَى نَفْسِكَ
لِعِبَادِكَ
37
38
desiring their profit in their trade with Thee,
تُرِيدُ رِبْحَهُمْ فِي مُتَاجَرَتِهِمْ لَكَ،
38
39
their triumph through reaching Thee, and their
increase on account of Thee,
وَفَوْزَهُمْ بِالْوِفَادَةِ عَلَيْكَ وَالزِّيادَةِ
مِنْكَ
39
40
for Thou hast said (blessed is Thy Name and high art
Thou exalted),
فَقُلْتَ تَبَارَكَ اسْمُكَ وَتَعَالَيْتَ:
40
41
“Whoso brings a good deed shall have ten the like of
it,
(مَنْ جَاءَ بِالْحَسَنَةِ فَلَهُ عَشْرُ أَمْثَالِهَا
41
42
and whoso brings an evil deed shall only be
recompensed the like of it” (6:160).
وَمَنْ جَاءَ بِالسَّيِّئَةِ فَلاَ يُجْزى إلاّ
مِثْلَهَا)
42
43
Thou hast said, “The likeness of those who expend
their wealth in the way of God is as the likeness of
a grain of corn
وَقُلْتَ: (مَثَلُ الَّذِينَ يُنْفِقُونَ
أَمْوَالَهُمْ فِي سَبِيلِ الله كَمَثَلِ حَبَّة
43
44
that sprouts seven ears, in every ear a hundred
grains;
أَنْبَتَتْ سَبْعَ سَنَابِلَ فِي كُلِّ سُنْبُلَة
مَائَةُ حَبَّة
44
45
so God multiplies unto whom He wills” (2:261).
وَالله يُضَاعِفُ لِمَنْ يَشَاءُ)
45
46
Thou hast said, “Who is he that will lend to God a
good loan,
وَقُلْتَ: (مَنْ ذَا الَّذِيْ يُقْرِضُ الله قَرْضاً
حَسَنَاً
46
47
and He will multiply it for him manifold” (2:245)?
فَيُضَاعِفَهُ لَهُ أضْعَافاً كَثِيرَةً)
47
48
And Thou hast sent down in the Qur’an similar verses
on the multiplying of good deeds.
وَمَا أَنْزَلْتَ مِنْ نَظَائِرِهِنَّ فِي الْقُرْآنِ
مِنْ تَضَاعِيفِ الْحَسَنَاتِ،
48
49
It is Thou who hast pointed them through Thy speech
from Thy Unseen and Thy encouragement
وَأَنْتَ الَّذِي دَلَلْتَهُمْ بِقَوْلِكَ مِنْ
غَيْبِكَ وَتَرْغِيْبِكَ
49
50
in which lies their good fortune toward that which –
hadst Thou covered it from them
الَّذِي فِيهِ حَظُّهُمْ عَلَى مَا لَوْ سَتَرْتَهُ
عَنْهُمْ
50
51
their eyes would not have perceived, their ears
would not have heard,
لَمْ تُدْرِكْهُ أَبْصَارُهُمْ وَلَمْ تَعِـهِ
أَسْمَاعُهُمْ
51
52
and their imaginations would not have grasped,
وَلَمْ تَلْحَقْـهُ أَوْهَامُهُمْ
52
53
for Thou hast said, “Remember Me and I will remember
you be thankful to Me, and be you not thankless
towards Me” (2:152)!
فَقُلْتَ: (اذْكُرُونِي أَذْكُرْكُمْ وَاشْكُرُوا لِيْ
وَلا تَكْفُرُونِ)
53
54
Thou hast said, “If you are thankful, surely I will
increase you,
وَقُلْتَ: (لَئِنْ شَكَـرْتُمْ لازِيدَنَّكمْ
54
55
but if you are thankless, My chastisement is surely
terrible” (14:7);
وَلَئِنْ كَفَـرْتُمْ إنَّ عَذابِيْ لَشَدِيدٌ)
55
56
And Thou hast said, “Supplicate Me and I will
respond to you,
وَقُلْتَ : (ادْعُونِيْ أَسْتَجِبْ لَكُمْ
56
57
surely those who wax too proud to worship Me
إنَّ الَّذِينَ يَسْتَكْبِرُونَ عَنْ عِبَادَتِي
57
58
shall enter Gehenna utterly abject” (40:60).
سَيَدْخُلُونَ جَهَنَّمَ دَاخِرِينَ)
58
59
Hence Thou hast named supplicating Thee ‘worship’
and refraining from it ‘waxing proud’,
فَسَمَّيْتَ دُعَاءَكَ عِبَادَةً، وَتَرْكَهُ
اسْتِكْبَاراً،
59
60
and Thou hast threatened that the refraining from it
would yield entrance into Gehenna in utter
abjection.
وَتَوَعَّدْتَ عَلَى تَرْكِهِ دُخُولَ جَهَنَّمَ
دَاخِرِينَ،
60
61
So they remember Thee for Thy kindness, they thank
Thee for Thy bounty,
فَذَكَرُوكَ بِمَنِّكَ وَشَكَرُوكَ بِفَضْلِكَ،
61
62
they supplicate Thee by Thy command,
وَدَعَوْكَ بِأَمْرِكَ،
62
63
and they donate for Thee in order to seek Thy
increase;
وَتَصَدَّقُوا لَكَ طَلَباً لِمَزِيدِكَ،
63
64
in all this lies their deliverance from Thy wrath
وَفِيهَا كَانَتْ نَجَاتُهُمْ مِنْ غَضَبِكَ،
64
65
and their triumph through Thy good pleasure.
وَفَوْزُهُمْ بِرِضَاكَ،
65
66
Were any creature himself to direct another creature
وَلَوْ دَلَّ مَخْلُوقٌ مَخْلُوقاً مِنْ نَفْسِهِ
66
67
to the like of that to which Thou Thyself hast
directed Thy servants,
عَلَى مِثْلِ الَّذِيْ دَلَلْتَ عَلَيْهِ عِبَادَكَ
مِنْكَ
67
68
he would be described by beneficence,
كَانَ مَوْصُوْفَاً بالإحْسَان
68
69
qualified by kindness, and praised by every tongue.
وَمَنْعُوتاً بِالامْتِثَال ومحمُوداً بكلِّ لِسَان،
69
70
So to Thee belongs praise as long as there is found
a way to praise Thee
فَلَكَ الْحَمْدُ مَا وُجِدَ فِي حَمْدِكَ مَذْهَبٌ،
70
71
and as long as there remains for praising words by
which Thou may be praised and meanings which may be
spent in praise!
وَمَا بَقِيَ لِلْحَمْدِ لَفْظٌ تُحْمَدُ بِهِ
وَمَعْنىً يَنْصَرفُ إلَيْهِ
71
72
O He who shows Himself praiseworthy to His servants
through beneficence and bounty,
يَـا مَنْ تَحَمَّدَ إلَى عِبَـادِهِ بِالإِحْسَـانِ
وَالْفَضْل،
72
73
flooding them with kindness and graciousness!
وَغَمَرَهُمْ بِالْمَنِّ وَالطَّوْلِ،
73
74
How much Thy favour has been spread about among us,
Thy kindness lavished upon us,
مَا أَفْشَى فِيْنَا نِعْمَتَكَ وَأَسْبَغَ عَلَيْنَا
مِنَّتَكَ،
74
75
and Thy goodness singled out for us!
وَأَخَصَّنَا بِبِرِّكَ
75
76
Thou hast guided us to Thy religion which Thou hast
chosen,
هَدْيَتَنَا لِدِيْنِكَ الَّـذِي اصْطَفَيْتَ،
76
77
Thy creed with which Thou art pleased,
وَمِلَّتِـكَ الَّتِي ارْتَضَيْتَ،
77
78
and Thy path which Thou hast made smooth,
وَسَبِيلِكَ الَّذِي سَهَّلْتَ،
78
79
and Thou hast shown us proximity to Thee and arrival
at Thy generosity!
وَبَصَّرْتَنَا الزُّلْفَةَ لَدَيْكَ وَالوُصُولَ إلَى
كَـرَامَتِكَ.
79
80
O God, Thou hast appointed among the choicest of
those duties
أللَّهُمَّ وَأَنْتَ جَعَلْتَ مِنْ صَفَـايَـا تِلْكَ
الْوَظَائِفِ
80
81
and the most special of those obligations
وَخَصَائِصِ تِلْكَ الْفُرُوضِ
81
82
the month of Ramadan, which Thou hast singled out
from other months,
شَهْرَ رَمَضَانَ الَّذِي اخْتَصَصْتَهُ مِنْ سَائِرِ
الشُّهُورِ،
82
83
chosen from among all periods and eras,
وَتَخَيَّرْتَهُ مِن جَمِيعِ الأزْمِنَةِ
وَالدُّهُورِ،
83
84
and preferred over all times of the year
وَآثَرْتَهُ عَلَى كُلِّ أَوْقَاتِ السَّنَةِ
84
85
through the Qur’an and the Light which Thou sent
down within it,
بِمَا أَنْزَلْتَ فِيهِ مِنَ الْقُرْآنِ وَالنُّورِ،
85
86
the faith which Thou multiplied by means of it,
وَضَاعَفْتَ فِيهِ مِنَ الإيْمَانِ،
86
87
the fasting which Thou obligated therein,
وَفَرَضْتَ فِيْهِ مِنَ الصِّيَامِ،
87
88
the standing in prayer which Thou encouraged at its
time,
وَرَغَّبْتَ فِيهِ مِنَ القِيَامِ،
88
89
and the Night of Decree which Thou magnified
therein,
وَأَجْلَلْتَ فِيهِ مِنْ لَيْلَةِ الْقَدْرِ
89
90
the night which is “better than a thousand months”
(97:3).
الَّتِي هِيَ خَيْرٌ مِنْ أَلْفِ شَهْر،
90
91
Through it Thou hast preferred us over the other
communities
ثُمَّ آثَرْتَنَا بِهِ عَلَى سَائِرِ الأُمَمِ
91
92
and through its excellence Thou hast chosen us to
the exclusion of the people of the creeds.
وَاصْطَفَيْتَنَا بِفَضْلِهِ دُوْنَ أَهْلِ الْمِلَلِ،
92
93
We fasted by Thy command in its daylight,
فَصُمْنَا بِأَمْرِكَ نَهَارَهُ،
93
94
we stood in prayer with Thy help in its night,
وَقُمْنَا بِعَوْنِكَ لَيْلَهُ
94
95
presenting ourselves by its fasting and its standing
to the mercy which Thou hast held up before us,
مُتَعَرِّضِينَ بِصِيَامِهِ وَقِيَامِهِ لِمَا
عَرَّضْتَنَا لَهُ مِنْ رَحْمَتِكَ،
95
96
and we found through it the means to Thy reward.
وَتَسَبَّبْنَا إلَيْـهِ مِنْ مَثُوبَتِكَ،
96
97
And Thou art full of what is sought from Thee,
وَأَنْتَ الْمَليءُ بِمَا رُغِبَ فِيهِ إلَيْكَ،
97
98
munificent with what is asked of Thy bounty,
الْجَوَادُ بِمـا سُئِلْتَ مِنْ فَضْلِكَ،
98
99
and near to him who strives for Thy nearness.
الْقَـرِيبُ إلَى مَنْ حَـاوَلَ قُرْبَكَ،
99
100
This month stood among us in a standing place of
praise,
وَقَدْ أَقَامَ فِينَا هَذَا الشَّهْرُ مَقَامَ حَمْد
100
101
accompanied us with the companionship of one
approved,
وَصَحِبَنَا صُحْبَةَ مَبْرُور،
101
102
and profited us with the most excellent profit of
the world’s creatures.
وَأَرْبَحَنَا أَفْضَلَ أَرْبَاحِ الْعَالَمِينَ،
102
103
Then it parted from us at the completion of its
time, the end of its term, and the fulfilment of its
number.
ثُمَّ قَدْ فَارَقَنَا عِنْدَ تَمَامِ وَقْتِهِ
وَانْقِطَاعِ مُدَّتِهِ وَوَفَاءِ عَدَدِهِ،
103
104
So we bid farewell to it with the farewell of one
whose parting pains us,
فَنَحْنُ مُوَدِّعُوهُ وِدَاعَ مَنْ عَزَّ فِرَاقُهُ
عَلَيْنَا
104
105
whose leaving fills us with gloom and loneliness,
وَغَمَّنَا وَأَوْحَشَنَا انْصِرَافُهُ عَنَّا
105
106
and to whom we have come to owe a safeguarded claim,
وَلَزِمَنَا لَهُ الذِّمَامُ الْمَحْفُوظُ،
106
107
an observed inviolability, and a discharged right.
وَالْحُرْمَةُ الْمَرْعِيَّةُ، وَالْحَقُّ
الْمَقْضِيُّ،
107
108
We say: Peace be upon thee,
فَنَحْنُ قَائِلُونَ: السَّلاَمُ عَلَيْكَ
108
109
O greatest month of God! O festival of His friends!
يَا شَهْرَ اللهِ الأكْبَرَ، وَيَا عِيْدَ
أَوْلِيَائِهِ.
109
110
Peace be upon thee, O most noble of accompanying
times!
السَّلاَمُ عَلَيْكَ يَـا أكْرَمَ مَصْحُـوب مِنَ
الأوْقَاتِ،
110
111
O best of months in days and hours!
وَيَا خَيْرَ شَهْر فِي الأيَّامِ وَالسَّاعَاتِ.
111
112
Peace be upon thee, month in which expectations come
near
السَّلاَمُ عَلَيْكَ مِنْ شَهْر قَرُبَتْ فِيهِ
الآمالُ
112
113
and good works are scattered about!
وَنُشِرَتْ فِيهِ الأَعْمَالُ.
113
114
Peace be upon thee, comrade who is great in worth
when found
السَّلاَمُ عَلَيْكَ مِنْ قَرِين جَلَّ قَدْرُهُ
مَوْجُوداً،
114
115
and who torments through absence when lost,
anticipated friend whose parting gives pain!
وَأَفْجَعَ فَقْدُهُ مَفْ #1602;ُوداً، وَمَرْجُوٍّ آلَمَ
فِرَاقُهُ.
115
116
Peace be upon thee, familiar who brought comfort in
coming, thus making happy,
السَّلاَمُ عَلَيْكَ مِنْ أَلِيف آنَسَ مُقْبِلاً
فَسَرَّ
116
117
who left loneliness in going, thus giving anguish!
وَأَوْحَشَ مُنْقَضِياً فَمَضَّ.
117
118
Peace be upon thee, neighbour in whom hearts became
tender and sins became few!
السَّلاَمُ عَلَيْكَ مِنْ مُجَاوِر رَقَّتْ فِيهِ
الْقُلُوبُ، وَقَلَّتْ فِيهِ الذُّنُوبُ.
118
119
Peace be upon thee, helper who aided against Satan,
السَّلاَمُ عَلَيْكَ مِنْ نَاصِر أَعَانَ عَلَى
الشَّيْطَانِ
119
120
companion who made easy the paths of good-doing!
وَصَاحِب سَهَّلَ سُبُلَ الإحْسَانِ.
120
121
Peace be upon thee – How many became freedmen of God
within thee!
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ مَا أكْثَرَ عُتَقَاءَ اللهِ
فِيكَ
121
122
How happy those who observed the respect due to
thee!
وَمَا أَسْعَدَ مَنْ رَعَى حُرْمَتَكَ بكَ!.
122
123
Peace be upon thee – How many the sins thou erased!
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ مَا كَانَ أَمْحَاكَ
لِلذُّنُوبِ،
123
124
How many the kinds of faults thou covered over!
وَأَسْتَرَكَ لأَِنْوَاعِ الْعُيُوبِ!
124
125
Peace be upon thee – How drawn out wert thou for the
sinners!
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ مَا كَانَ أَطْوَلَكَ عَلَى
الْمُجْرِمِينَ،
125
126
How awesome wert thou in the hearts of the faithful!
وَأَهْيَبَكَ فِي صُدُورِ الْمُؤْمِنِينَ!
126
127
Peace be upon thee, month with which no days
compete!
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ مِنْ شَهْر لا تُنَافِسُهُ
الأيَّامُ.
127
128
Peace be upon thee, month which is peace in all
affairs!
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ مِنْ شَهْر هُوَ مِنْ كُلِّ
أَمْر سَلاَمٌ.
128
129
Peace be upon thee, thou whose companionship is not
disliked,
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ غَيْرَ كَرِيهِ الْمُصَاحَبَةِ
129
130
thou whose friendly mixing is not blamed!
وَلاَ ذَمِيمِ الْمُلاَبَسَةِ.
130
131
Peace be upon thee, just as thou hast entered upon
us with blessings
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ كَمَا وَفَدْتَ عَلَيْنَا
بِالْبَرَكَاتِ،
131
132
and cleansed us of the defilement of offenses!
وَغَسَلْتَ عَنَّا دَنَسَ الْخَطِيئاتِ.
132
133
Peace be upon thee – Thou art not bid farewell in
annoyance
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ غَيْرَ مُوَدَّع بَرَماً
133
134
nor is thy fasting left in weariness!
وَلاَ مَتْرُوك صِيَامُهُ سَأَماً.
134
135
Peace be upon thee, object of seeking before thy
time,
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ مِنْ مَطْلُوبِ قَبْلَ وَقْتِهِ
135
136
object of sorrow before thy passing!
وَمَحْزُون عَلَيْهِ قَبْلَ فَوْتِهِ.
136
137
Peace be upon thee – How much evil was turned away
from us through thee!
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ كَمْ مِنْ سُوء صُرِفَ بِكَ
عَنَّا
137
138
How much good flowed upon us because of thee!
وَكَمْ مِنْ خَيْر أُفِيضَ بِكَ عَلَيْنَا.
138
139
Peace be upon thee and upon the Night of Decree
أَلسَّلاَمُ عَلَيْـكَ وَعَلَى لَيْلَةِ الْقَدْرِ
139
140
which is “better than a thousand months” (97:3)!
الَّتِي هِيَ خَيْرٌ مِنْ أَلْفِ شَهْر.
140
141
Peace be upon thee – How much we craved thee
yesterday!
أَلسَّلاَمُ عَلَيْكَ ما كَانَ أَحْرَصَنَا بِالأمْسِ
عَلَيْكَ
141
142
How intensely we shall yearn for thee tomorrow!
وَأَشَدَّ شَوْقَنَا غَدَاً إلَيْكَ.
142
143
Peace be upon thee and upon thy bounty which has now
been made unlawful to us
أَلسَلاَمُ عَلَيْكَ وَعَلَى فَضْلِكَ الَّذِي
حُرِمْنَاهُ ،
143
144
and upon thy blessings gone by which have now been
stripped away from us!
وَعَلَى مَاض مِنْ بَرَكَاتِكَ سُلِبْنَاهُ.
144
145
O God, we are the people of this month. Through it
Thou hast ennobled us
أَللَّهُمَّ إنَّا أَهْلُ هَذَا الشَّهْرِ الِّذِي
شَرَّفْتَنَا بِهِ
145
146
and given us success because of Thy kindness, while
the wretched are ignorant of its time.
وَوَفّقتَنَا بِمَنِّكَ لَهُ حِينَ جَهِلَ الاَشْقِيَا
وَقْتَهُُ
146
147
Made unlawful to them is its bounty because of their
wretchedness.
وَحُرِمُوا لِشَقَائِهِم فَضْلَهُ،
147
148
Thou art the patron of the knowledge of it by which
Thou hast preferred us,
أَنْتَ وَلِيُّ مَا اثَرْتَنَا بِهِ مِنْ
مَعْرِفَتِهِ،
148
149
and its prescribed practices to which Thou hast
guided us.
وَهَدَيْتَنَا مِنْ سُنَّتِهِ،
149
150
We have undertaken, through Thy giving success, its
fasting and its standing in prayer, but with
shortcomings,
وَقَدْ تَوَلَّيْنَا بِتَوْفِيقِكَ صِيَامَهُ
وَقِيَامَهُ عَلى تَقْصِير،
150
151
and we have performed little of much.
وَأَدَّيْنَا فِيهِ قَلِيلاً مِنْ كَثِيـر.
151
152
O God, so to Thee belongs praise, in admission of
evil doing
اللَّهُمَّ فَلَكَ الْحمدُ إقْـرَاراً بِـالإسَاءَةَ
152
153
and confession of negligence, and to Thee belongs
remorse firmly knitted in our hearts
وَاعْتِرَافاً بِالإضَاعَةِ، وَلَك مِنْ قُلُوبِنَا
عَقْدُ النَّدَمِ،
153
154
and seeking of pardon sincerely uttered by our
tongues.
وَمِنْ أَلْسِنَتِنَا صِدْقُ الاعْتِذَارِ،
154
155
Reward us, in spite of the neglect that befell us in
this month,
فَاْجُرْنَا عَلَى مَا أَصَابَنَا فِيهِ مِنَ
التَّفْرِيطِ
155
156
with a reward through which we may reach the bounty
desired from it
أَجْرَاً نَسْتَدْركُ بِهِ الْفَضْلَ الْمَرْغُوبَ
فِيهِ،
156
157
and win the varieties of its craved stores!
وَنَعْتَاضُ بِهِ مِنْ أَنْوَاعِ الذُّخْرِ
الْمَحْرُوصِ عَلَيْهِ ،
157
158
Make incumbent upon us Thy pardon for our falling
short of Thy right in this month
وَأَوْجِبْ لَنَا عُذْرَكَ عَلَى مَا قَصَّرْنَا فِيهِ
مِنْ حَقِّكَ،
158
159
and make our lives which lie before us reach the
coming month of Ramadan!
وَابْلُغْ بِأَعْمَارِنَا مَا بَيْنَ أَيْديْنَا مِنْ
شَهْرِ رَمَضَانَ الْمُقْبِلِ،
159
160
Once Thou hast made us reach it, help us perform
فَإذَا بَلَّغْتَنَاهُ فَأَعِنَّا عَلَى تَنَاوُلِ
160
161
the worship of which Thou art worthy,
مَا أَنْتَ أَهْلُهُ مِنَ الْعِبَادَةِ
161
162
cause us to undertake the obedience which Thou
deservest,
وَأَدِّنَا إلَى الْقِيَامِ بِمَا يَسْتَحِقُّهُ مِنَ
الطَّاعَةِ
162
163
and grant us righteous works
وَأجْرِ لنا مِنْ صَالِحِ العَمَلِ
163
164
that we may fulfil Thy right in these two months of
the months of time.
مَا يَكون دَرَكاً لِحَقِّكَ فِي الشَّهْرَيْنِ مِنْ
شُهُورِ الدَّهْرِ.
164
165
O God, as for the small and large sins which we have
committed in this our month,
أللَّهُمَّ وَمَا أَلْمَمْنَا بِهِ فِي شَهْرِنَا
هَذَا مِنْ لَمَم أَوْ إثْم،
165
166
the misdeeds into which we have fallen, and the
offenses which we have earned
أَوْ وَاقَعْنَا فِيهِ مِنْ ذَنْبِ وَاكْتَسَبْنَا
فِيهِ مِنْ خَطِيئَة
166
167
purposefully or in forgetfulness, wronging ourselves
thereby or violating the respect due to others,
عَلَى تَعَمُّد مِنَّا أو عَلى نِسيانٍ ظَلَمنا فيه
أنفُسَنا أَوِ انْتَهَكْنَا بِهِ حُرْمَةً مِنْ
غَيْرِنَا
167
168
bless Muhammad and his Household, cover us over with
Thy covering,
فَصَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِهِ وَاسْتُرْنَا
بِسِتْرِكَ،
168
169
pardon us through Thy pardoning,
وَاعْفُ عَنَّا بِعَفْوِكَ،
169
170
place us not before the eyes of the gloaters because
of that,
وَلاَ تَنْصِبْنَا فِيهِ لاِعْيُنِ الشَّامِتِينَ،
170
171
stretch not toward us the tongues of the defamers,
وَلاَ تَبْسُطْ عَلَيْنَا فِيهِ أَلْسُنَ
الطَّاعِنينَ،
171
172
and employ us in that which will alleviate and
expiate
وَاسْتَعْمِلْنَا بِمَا يَكُونُ حِطَّةً وَكَفَّارَةً
172
173
whatever Thou disapprovest from us within it through
Thy clemency which does not run out,
لِمَا أَنْكَرْتَ مِنَّا فِيهِ بِرَأْفَتِكَ الَّتِي
لاَ تَنْفَدُ،
173
174
and Thy bounty which does not diminish!
وَفَضْلِكَ الَّذِي لا يَنْقُصُ.
174
175
O God, bless Muhammad and his Household,
أللَّهُمَّ صَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِهِ
175
176
redress our being afflicted by our month,
وَاجْبُرْ مُصِيبَتنَا بِشَهْرِنَا
176
177
bless us in this day of our festival and our
fast-breaking,
وَبَارِكْ فِي يَوْمِ عِيْدِنَا وَفِطْرِنَا
177
178
make it one of the best of days that have passed
over us, the greatest in attracting Thy pardon, and
the most effacing toward sins,
وَاجْعَلْهُ مِنْ خَيْرِ يَوْم مَرَّ عَلَيْنَا
أَجْلَبِهِ لِعَفْو، وَأَمْحَاهُ لِذَنْبِ،
178
179
and forgive us our sins, both the concealed and the
public!
وَاغْفِرْ لَنا ما خَفِيَ مِنْ ذُنُوبِنَا وَمَا
عَلَنَ.
179
180
O God, with the passing of this month make us pass
forth from our offenses,
أللَّهُمَّ اسلَخْنَا بِانْسِلاَخِ هَذَا الشَّهْرِ
مِنْ خَطَايَانَا
180
181
with its departure make us depart from our evil
deeds,
وَأَخْرِجْنَا بُخُرُوجِهِ مِنْ سَيِّئاتِنَا
181
182
and appoint us thereby among its most felicitous
people,
وَاجْعَلْنَا مِنْ أَسْعَدِ أَهْلِهِ بِهِ
182
183
the most plentiful of them in portion, and the
fullest of them in share!
وَأَجْزَلِهِمْ قِسَمَاً فِيـهِ وَأَوْفَـرِهِمْ
حَظّاً مِنْـهُ.
183
184
O God, when any person observes this month as it
should be observed,
أللّهُمَّ وَمَنْ رَعَى حَقّ هَذَا الشَّهْرِ حَقَّ
رِعَايَتِهِ
184
185
safeguards its inviolability as it should be
safeguarded, attends to its bounds as they should be
attended to,
وَحَفِظَ حُرْمَتَهُ حَقَّ حِفْظِهَا وَقَامَ
بِحُدُودِهِ حَقَّ قِيَامِهَا،
185
186
fears its misdeeds as they should be feared, or
seeks nearness to Thee with any act of
nearness-seeking
وَأتَّقَى ذُنُوبَهُ حَقَّ تُقَاتِهَا أَوْ تَقَرَّبَ
إلَيْكَ بِقُرْبَة
186
187
which makes incumbent upon him Thy good pleasure and
bends toward him Thy mercy,
أَوْجَبَتْ رِضَاكَ لَهُ وَعَطَفَتْ رَحْمَتَكَ
عَلَيْهِ،
187
188
give to us the like [of that] from Thy wealth
فَهَبْ لَنَا مِثْلَهُ مِنْ وُجْدِكَ
188
189
and bestow it upon us in multiples through Thy
bounty,
وَأَعْطِنَا أَضْعَافَهُ مِنْ فَضْلِكَ
189
190
for Thy bounty does not diminish, Thy treasuries do
not decrease but overflow,
فَإنَّ فَضْلَكَ، لا يَغِيْضُ وَإنَّ خَـزَائِنَكَ لا
تَنْقُصُ، بَـلْ تَفِيضُ
190
191
the mines of Thy beneficence are not exhausted,
وَإنَّ مَعَـادِنَ إحْسَانِكَ لا تَفْنَى،
191
192
and Thy bestowal is the bestowal full of delight!
وَإنَّ عَطَاءَكَ لَلْعَطَآءُ الْمُهَنَّا،
192
193
O God, bless Muhammad and his Household
أللَّهُمَّ صَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِهِ
193
194
and write for us the like of the wages of him who
fasted in it
وَاكْتُبْ لَنَا مِثْلَ أجُورِ مَنْ صَامَهُ
194
195
or worshipped Thee within it until the Day of
Resurrection!
أَوْ تَعَبَّدَ لَكَ فِيْهِ إلَى يَوْمِ الْقِيَامَةِ.
195
196
O God, we repent to Thee in our day of
fast-breaking,
أللَّهُمَّ إنَّا نَتُوبُ إلَيْكَ فِي يَوْمِ
فِطْرِنَا
196
197
which Thou hast appointed for the faithful a
festival and a joy
الّذِي جَعَلْتَهُ لِلْمُؤْمِنِينَ عِيداً
وَسُـرُوراً.
197
198
and for the people of Thy creed a time of assembly
and gathering, from every misdeed we did,
وَلأِهْلِ مِلَّتِكَ مَجْمَعاً وَمُحْتشداً مِنْ كُلِّ
ذَنْب أَذْنَبْنَاهُ،
198
199
ill work we sent ahead, or evil thought we secretly
conceived,
أَوْ سُوْء أَسْلَفْنَاهُ، أَوْ خَاطِرِ شَرٍّ
أَضْمَرْنَاهُ،
199
200
the repentance of one who does not harbour a return
to sin
تَوْبَةَ مَنْ لاَ يَنْطَوِيْ عَلَى رُجُوع إلَى ذَنْب
200
201
and who afterwards will not go back to offense,
وَلا يَعُودُ بَعْدَهَا فِي خَطِيئَة،
201
202
an unswerving repentance rid of doubt and wavering.
تَوْبَةً نَصوحاً خَلَصَتْ مِنَ الشَّكِّ
وَالارْتِيَابِ،
202
203
So accept it from us, be pleased with us, and fix us
within it!
فَتَقَبَّلْهَا مِنَّا وَارْضَ عَنَّا وَثَبِّتنَا
عَلَيْهَا.
203
204
God, provide us with fear of the threatened
punishment
أللَّهُمَّ ارْزُقْنَا خَوْفَ عِقَابِ الْوَعِيدِ،
204
205
and yearning for the promised reward, so that we may
find the pleasure of that for which we supplicate
Thee
وَشَوْقَ ثَوَابِ الْمَوْعُودِ حَتّى نَجِدَ لَذَّةَ
مَا نَدْعُوكَ بِهِ،
205
206
and the sorrow of that from which we seek sanctuary
in Thee!
وكَأْبَةَ مَا نَسْتَجِيْرُكَ مِنْهُ،
206
207
And place us with Thee among the repenters, those
upon whom Thou hast made Thy love obligatory
وَاجْعَلْنَا عِنْدَكَ مِنَ التَّوَّابِيْنَ الَّذِينَ
أَوْجَبْتَ لَهُمْ مَحَبَّتَكَ،
207
208
and from whom Thou hast accepted the return to
obeying Thee! O Most Just of the just!
وَقَبِلْتَ مِنْهُمْ مُرَاجَعَةَ طَاعَتِكَ، يَا
أَعْدَلَ الْعَادِلِينَ.
208
209
O God, show forbearance toward our fathers and our
mothers and all the people of our religion,
أللَّهُمَّ تَجَاوَزْ عَنْ آبآئِنَا وَأُمَّهَاتِنَا
وَأَهْلِ دِيْنِنَا جَمِيعاً
209
210
those who have gone and those who will pass by,
until the Day of Resurrection!
مَنْ سَلَفَ مِنْهُمْ وَمَنْ غَبَرَ إلَى يَوْمِ
الْقِيَامَةِ.
210
211
O God, bless our prophet Muhammad and his Household,
أللَّهُمَّ صَلِّ عَلَى مُحَمَّد نَبِيِّنَا وَآلِهِ،
211
212
as Thou hast blessed Thy angels brought nigh,
كَمَا صَلَّيْتَ عَلَى مَلائِكَتِكَ الْمُقَرَّبِينَ.
212
213
bless him and his Household,
وَصَلِّ عَلَيْهِ وَآلِهِ،
213
214
as Thou hast blessed Thy prophets sent out,
كَمَا صَلَّيْتَ عَلَى أَنْبِيَائِكَ الْمُرْسَلِينَ،
214
215
bless him and his Household, as Thou hast blessed
Thy righteous servants
وَصَلِّ عَلَيْهِ وَآلِهِ، كَمَا صَلَّيْتَ عَلَى
عِبَادِكَ الصَّالِحِينَ،
215
216
– and better than that, O Lord of the worlds!
وَأَفْضَلَ مِنْ ذَلِكَ يَا رَبَّ الْعَالَمِينَ،
216
217
a blessing whose benediction will reach us, whose
benefit will attain to us,
صَلاَةً تَبْلُغُنَا بَرَكَتُهَا، وَيَنَالُنَا
نَفْعُهَا،
217
218
and through which our supplication may be granted!
وَيُسْتَجَابُ لَهَا دُعَاؤُنَا،
218
219
Thou art the most generous of those who are
beseeched,
إنَّكَ أكْرَمُ مَنْ رُغِبَ إلَيْهِ
219
220
the most sufficient of those in whom confidence is
had,
وَأكْفَى مَنْ تُوُكِّلَ عَلَيْهِ
220
221
the most bestowing of those from whom bounty is
asked,
وَأَعْطَى مَنْ سُئِلَ مِنْ فَضْلِهِ،
221
222
and Thou art powerful over everything!
وَأَنْتَ عَلَى كُلِّ شَيْء قَدِيرٌ.
222

পরম করুণাময় এবং অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি

রমযান মাসের বিদায় লগ্নে তাঁর একটি মুনাজাত।

হে প্রভু, আপনি আপনার দেয়া নেয়ামতের প্রতিদান প্রত্যাশা করেন না এবং আপনার প্রতিদানকে ফিরিয়ে নেন না।
হে প্রভু, আপনি আপনার বান্দার সাথে সমান ব্যবহার করেন না।
আপনার বদান্যতার মাত্র শুরু।
আপনার ক্ষমা, বদান্যতা, আপনার শাস্তি, বিচার, আপনার প্রতিজ্ঞা এবং করুণার শুরু।
যদি আপনি দান করেন, আপনার ভান্ডার ফুরাত না।
যদি আপনি অস্বীকার করেন, তাহলে তা ীবচার হবে না।
আপনি তাকে প্রতিদান দিয়ে থাকেন যে আপনার কৃতজ্ঞতাপাশে আবদ্ধ হয়, যখন আপনি নিজে আপনার প্রতি কৃতজ্ঞতায় তাকে উৎসাহিত করেন, আপনি তাকে প্রতিদান দিয়ে থাকেন যে আপনার প্রশংসা করে, যখন আপনি নিজে তাকে প্রশংসা করার শিক্ষা দিয়েছেন! আপনি তার উপর একটি পর্দা টাঙিয়েছেন যাকে আপনি করুণা বঞ্চিত করেছেন, আপনি যা চেয়েছেন তাকে সাহায্য করেছেন যাকে আপনি আশ্রয় দিয়েছেন, আপনি এমনটিই করে থাকেন— যখন উভয়েই করুণা বঞ্চিত হওয়ার এবং প্রত্যাখ্যানের আশঙ্কা করে। কিন্তু আপনি আপনার কাজ দয়ার উপর ভিত্তি করে, করে থাকেন, আপনার ক্ষমা অনুসারে আপনি আপনার ক্ষমতা ব্যবহার করে থাকেন, যে আপনাকে অমান্য করে তার প্রতি আপনার জবাব দিতে দেরি হয় এবং তার বেলায়ও আপনার জবাবে বিলম্ব ঘটে যে তার আত্মার পরিশুদ্ধিতে নিয়োজিত। আপনার ক্ষমাশীলতার দ্বারা, আপনি তাদের ফিরে আসার জন্য অপেক্ষা করেন, অনুশোচনা করার জন্য তাদের শাস্তি তড়িৎ করণকে আপনি উঠিয়ে নেন। এ জন্য যে তারা যেন প্রত্যাশা করে যে আপনার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তারা ধ্বংস হবে না, আপনাকে দীর্ঘসময়ব্যাপী সুযোগ না দিয়ে আল্লাহ্র সাহায্য বঞ্চিত দুর্ভাগ্য আসবে না।
হে দয়ালু এবং ক্ষমাশীল প্রভু, আপনার ক্ষমা এবং দয়া হতে নি:সৃত সতর্ক করার পর আপনি আপনার বান্দাদের জন্য ক্ষমার এক দ্বার খুলে দেন, যাকে বলা হয় তওবা।
আপনি এ দ্বারের পথ-নির্দেশের একটি রাস্তা বাতলে দিয়েছেন, যাতে তারা এ থেকে নর্দমায় গিয়ে না পরে।
আপনি বলেছেন (তা অনুগ্রহশীল),  “তওবার মাধ্যমে আল্লাহ্র দিকে প্রত্যাবর্তণ কর; বোধহয় তোমার প্রভু তোমার বদ আমলগুলোকে মাফ করে দিবেন এবং এমন বাগানসমূহে প্রবেশ করাবেন যার তলদেশে নহরসমূহ প্রবাহিত আর যখন আল্লাহ্ নবীকে লজ্জা দিবেন না, অথবা বিম্বাসীদেরকে।
“তাদের সামনে ডানপাশে নূর হবে!”
“তারা বলবে, ‘আল্লাহ্ আমাদের নূরকে যথাযথ করেছেন এবং আমাদেরকে ক্ষমা করেছেন। মূলত সবকিছুর উপর আপনি কুদরতওয়ালা।”
সেজন্য, দ্বার উন্মুক্ত করার পর এবং পথ প্রদর্শক নিয়োগ করার পর, তার জন্য আর কি সুযোগ থাকে যে এই বাসস্থানে প্রবেশ করতে না চায়?
আর আপনি এমন এক সত্তা যিনি আপনার বান্দাদের সুবিধার্থে নিজের বিপক্ষে দাম হাকিয়েছেন, তাদের সাথে আপনার ব্যবসায়, তাদের সফলতা আপনার জন্য অপেক্ষা করার মধ্যে এবং তাদের অর্জন আপনার কাছ থেকে বর্ধিত হয়।
আপনি বলেছেন (আপনার নাম অনুগ্রহশীল এবং সম্মানিত হোক)  “যে নেক আমল করে সে দশগুণ বৃদ্ধিপ্রাপ্ত নেকি পাবে, কিন্তু সে কোনো পাপ কাজ করবে সে একটির স্থলে একটির শাস্তি বৈ আর বেমি শাস্তি পাবে না।”
আর আপনি বলেছেন, “যারা আল্লাহ্র জন্য সম্পদ ব্যয় করে তাদের তুলনা হল ঐ শস্যকণার মত যা থেকে সাতটি শস্য শীষ জন্মায় এবং প্রতিটি শীষ থেকে একশত শস্য জন্মায়; আর আল্লাহ্ যাকে চান তার নেক বহুগুণে বৃদ্ধি করে দেন।”
আপনি আরও বলেছেন, “কে আল্লাহ্কে চমৎকার ঋণ দেবে? আল্লাহ্ তাকে বারংবার দ্বিগুণ করে দেবেন।”
এবং কোরআনের জন্য জায়গায় আপনি এরকম কথা বলেছেন, গুণ বৃদ্ধি করার বিবেচনায়।

আর আপনি, যিনি নিজ গোপন জ্ঞানে এবং উদ্দীপনায় পৃথিবী সৃষ্টি করেছিল (যাতে বান্দাদের অর্জন বিস্তৃত), তাদের ঐ জিনিসে নিয়ে যান যা তাদের চোখ কখনও দেখেনি, তাদের জন্য এমন জিনিস বরাদ্দ করেছেন যা কোনো কান শ্রবণ করেনি এবং তাদের চিন্তা কখনও ঐ জিনিস পর্যন্ত পৌছেনি।
তাই আপনি বলেছেন, “আমাকে স্মরণ কর। আমিও তোমাদেরকে স্মরণ করব এবং আমার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর আর আমার প্রতি অকৃতজ্ঞ হয়ো না।” আপনি আরো বলেছেন, “যদি তোমরা প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাও, তখন আমি বেশির চেয়ে বেশি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি। কিন্তু যদি তোমরা কৃতজ্ঞতা না জানাও…… আমার আযাব খুবই ভয়াবহ।”
পরবর্তীতে আপনি আরো বলেছেন, “আমাকে ডাক  আমি তোমার ডাকের জওয়াব দেব কিন্তু যারা আমার এবাদত করা হতে বিরত থাকে তারা লজ্জাজনক অবস্থায় জাহান্নামে প্রবেশ করবে।”
তাই আপনি বন্দেগীর জন্য নামাজ পড়তে বলেছেন, যার ক্রটি-বিচ্যুতি করাকে আপনি অবাধ্যতা হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন, আর এটা পরত্যাগ করার ক্ষেত্রে আপনি লজ্জাজনকভাবে জাহান্নামে প্রবেশ করাবার হুমকি দিয়েছেন। সেজন্য, তারা আপনাকে স্মরণ করে আপনার মহত্ত্বের জন্য, আপনার বদান্যতার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ জানায়, আপনার হুকুম পুরা করে আপনার কাছে মিনতি করছে, আপনার জন্য দান করে আরো বেশি পরিমাণে বর্ধিত করার জন্য এবং এভাবে আপনার গোসসা থেকে বাঁচতে চায় এবং আপনার কবুলিয়ত অর্জনের জন্য সফলতা চায়। আপনি বান্দাকে যে পথ-নির্দেশ করে থাকেন, কোনো সৃষ্টি কি অন্য কোনো সৃষ্টিকে এরকম পথ নির্দেশ দিয়েছে, যদি কেউ করে থাকত তাহলে সে সবার দ্বারা প্রশংসিত এবং অভিনন্দিত হত। সেজন্য, সকল প্রশংসা আপনার জন্যই যতদিন প্রশংসা করার মত রাস্তা থাকবে, যতদিন আপনার প্রশংসা করার কোনো অভিব্যক্তি বাকী থাকবে অথবা, যতদিন আপনার প্রশংসা করার কোনো অভিব্যক্তি বাকী থাকবে অথবা এমন কোনো অভিব্যক্তি যা এ কাজ সম্পন্ন করবে। হে প্রভু, যিনি আপনার সৃষ্টিদেরকে বদান্যতা এবং দয়ার দ্বারা সাহায্য করেছেন, তাদের উপর গুণ এবং দয়ার আচ্ছাদন দিয়েছেন। কি চমৎকারভাবে আমাদের উপর অনুগ্রহ বিস্তার করেছেন, এবং কত যথাযথভাবে আমাদেরকে সাহায্য করেছেন, এবং আপনার মহানুভবতার দ্বারা নির্দিষ্ট কি ক্ষেত্রেই না আমাদেরকে সাহায্য করেছেন।
আপনার মনোনীত দ্বীনে আপনি আমাদেরকে পথ-নির্দেশ দিয়েছেন।
আপনার অঙ্গীকারে যা আপনি অনুমোদন করেছেন।
আপনার রাস্তায় যা আপনি সহজ করে দিয়েছেন।
আপনার নিকটবর্তী হবার এবং আপনার করুণা অর্জনের ব্যাপারে আপনি আমাদেরকে রাস্তা দেখিয়েছেন।
হে প্রভু, আপনার অন্যতম একটি পছন্দনীয় এবাদত করার জন্য আপনি রমযান দিয়েছেন এবং তা অন্যতম একটি উৎসব।
আপনি এ মাসকে অন্যান্য মাসের মধ্যে স্বাতন্ত্রতা দান করেছেন, অন্যান্য মৌসুম এবং সময়ের মধ্যে এটাকে পছন্দ করেছেন, বছরের অন্যান্য সময়ের মধ্যে এটাকে যথোপযুক্ততা দান করেছেন, কোরআন নাযিল করে এবং তা অনুসরণ করোর করার নূর দিয়ে, ঈমান বৃদ্ধি করে (বান্দাদের), রোযা উদযাপন করে, নামাজের জন্য দাঁড়াতে আমাদেরকে উৎসাহিত করে (রাত্রে) এবং এ মাসের মধ্যে গৌরবময় ক্বদরকে রেখে, যা হাজার মাস অপেক্ষ উত্তম।
উপরন্তু এ মাসের উছিলায় আপনি আমাদেরকে অন্যান্য কওমের উপর শ্রেষ্ঠত্ব দিয়েছেন। এর মহত্বের দ্বারা আপনি অন্যান্য ধর্মের লোকদের মধ্যে স্বতন্ত্র করেছেন। সেজন্য, আপনার হুকুম পুরা করে আমরা দিনে রোযা রেখেছি এবং আপনার সাহায্যে রাত্রে নামাজে দাঁড়িয়েছি। এ মাসের কর্তব্য রোযা রাখা এবং নামাজ পড়ার কারণে, যার কারণে আপনি দয়া করে আমাদের জন্য এমন প্রতিদান রেখেছেন যা পাওয়ার জন্য আমরা উপলক্ষ্য পাই। আপনার কাছে যা প্রত্যাশা করা হয় তার উপর আপনার ক্ষমতা বিদ্যমান। আপনার সত্তা বদান্যশীল দাতা যে আপনার কাছে চায়। আপনার সত্তা ত তার নিকটবর্তী যে আপনি পর্যন্ত পৌছতে চায়! বিশেষত, এই মাসে আমাদের কাছে প্রশংসনীয়ভাবে অবস্থান করে, আমাদেরকে নেককার সাথী দেয় এবং দুনিয়ার চমৎকার লাভ পৌছায়। অতপর, মূলত, সময়ের পূর্ণতা সমাধা করে এ মাস আমাদের ছেড়ে চলে যায়, এর সময় অতিক্রম করে এবং এর (দিনের) সংখ্যা পরিপূর্ণ করে।
সেজন্য আমরা তাকে এমনভাবে বিদায় জানাই যেমন করে আমরা কোনো একজনকে বিদায় জানাই যার বিদায় আমাদের জন্য কঠিন এবং আমাদের বিমর্ষ করে।
যার ছেড়ে চলে যাওয়া আমাদেরকে একা অনুভূত করে, আমরা যার দুঃখ করি, তার দায়িত্ব আমরা পালন করি এবং তাকে সন্তুুষ্ট করতে তার দাবি পূরণ করি।
সেজন্য আমরা বলি : তোমার উপর মান্তি বর্ষিত হোক, হে আল্লাহ্র মহান মাস।
ওহে তার (আল্লাহ্র) বন্ধুদের নির্ধারিত অনুষ্ঠান।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, হে সবচেয়ে সম্মানিত সময় যা আমরা প্রত্যক্ষ করি।
হে শ্রেষ্ঠ মাস, দিন এবং ঘন্টার বিবেচনায়।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, হে মাস, যাতে প্রত্যাশিত আশা নিকটবর্তী হয় এবং যাতে নেক কাজ বৃদ্ধি পায়।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক যে এক উচ্চ সমান্নিত, যখন উপস্থিত হয় এবং যখন চলে যায় যায় অনুপস্থিতি ছিল দুঃখজনক।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, হে আশার বস্তু, যার বিচ্ছেদ দুঃখ সৃষ্টি করে।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, হে বন্ধু, যে আবির্ভাবে আপন জন বনে যায়, সেজন্য আমাদেরকে আনন্দ দেয়; বিদায়ে আমাদেরকে নি:সঙ্গ করে যায় এবং এভাবে আমাদেরকে দু:খ দেয়।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, হে প্রতিবেশি যার মধ্যে দিনগুলো সজীব হয় এবং পাপ মলিন হয়ে যায়।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, হে সাহায্যকারী, যে শয়তানের বিরুদ্ধে সাহায্য করে।
হে সাথী যে নেকের পথকে সহজ করে দেয়।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক। তোমাতে আল্লাহ্র কত পরিমাণে স্বাধীনতা রেখেছেন।
সে কতই না ভাগ্যবান যে তোমার জন্য সম্মান প্রদর্শন করে।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক। তুমি কত বড় গুণাহ্ মোছনকারী।
বিভিন্ন ধরণের লজ্জা ঢাকতে তুমি কত বড় আচ্ছাদন।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, গুণাহ্গারদের জন্য তুমি কত বিরক্তিকর।
ঈমানদানগণের দিল কত বিস্ময়ে পূর্ণ। তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, হে মাস যার সাথে অন্যান্য মাসের তুলনা চলে না। তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, হে মাস যাতে সব কিছুতে শান্তির অবরোহের সৃষ্টি হয়।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, যার সঙ্গ সকলের কাম্য এবং যার সহযোগিতা প্রশংসনীয়!
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, যেহেতু তুমি অনুগ্রহ নিয়ে আমাদের কাছে এসেছ এবং আমার কাছ থেকে অপরাধের ময়না ধূয়ে ফেলেছ।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, ক্লান্তির কারণে যার বিলুপ্তি ঘটে না এবং ক্লান্তির কারণে যার রোযা পরিত্যাজ্য হয় না।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক, সময়ের পূর্বেই যার দিল আসতে চায় এবং তোমার বিদায়ের পূর্বেই যার দিল আর্তনাদ করে।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক। তোমার উছিলায় আমাদের কাছ থেকে কত মন্দ দূর হয়ে যায়।
তোমার উছিলায় আমাদের উপর অনুগ্রহের বারি বর্ষিত হোক।
তোমার উপর এবং ক্বদরের রাত্রির উপর শান্তি বর্ষিত হোক, যা সহস্র মাস অপেক্ষা উত্তম।
তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক। বিগত দিনে আমরা তোমার জন্য কত অপেক্ষা করেছি। আগামীকে তোমার জন্য আমাদের কত গভীর আবেগ থাকবে।
তোমার এবং তোমার অতীতের উপর শান্তি বর্ষিত হোক, যা থেকে আমরা বঞ্চিত এবং তোমার অতীত অনুগ্রহের উপর, যা আমরা হারিয়েছি।
হে প্রভু, আমরা এমন লোক এ মাসের উছিলায় যাদেরকে সম্মানিত করেছেন এবং আমাদেরকে করুণা করেছেন। আপনার মহত্ত্বের সাথে যখন দুর্ভাগ্যশীলগণ এ মাসের সময় সন্ধন্ধে অজ্ঞ হয় এবং তাদের মন্দ ভাগ্যের দরুণ এ মাসের অনন্যতা হতে বঞ্চিত হয়েছে।
আমাদেরকে এ মাসের উলম দান করে এবং এ মাসের হুকুম পালনের দ্বারা আমাদেরকে সাহায্য করার পূর্ণ ক্ষমতা আপনার রয়েছে।

এবং বিশেষত, আপনার করুণায় আমরা এর রোযা রেখেছি এবং নামাজ আদায় করেছি যদিও তা যথাযথভাবে নয় এবং পালন করেছি। এমন যে মহান আনুগত্যের বেলায় ক্ষুদ্র আনুগত্য।
সেজন্য, আমাদের অপকর্ম জেনে এবং আমাদের অপচয় তুলে ধরে, হে প্রভু, আমরা আপনার প্রশংসা করি। আপনার প্রতি আমাদের দিল থেকে উদ্গত তওবা করছি। আমাদের জবান থেকে একনিষ্ঠ প্রার্থনা। সেজন্য, ভুলের বদল স্বরূপ, আমরা যাতে তোগছি তার প্রতিদান দিন। যা দ্বারা আমরা প্রত্যাশিত বস্তু অর্জন করতে পারি, যা দ্বারা আপনার অনুগ্রহের বিভিন্ন ভান্ডার হতে আমরা প্রদিদান পেতে পারি।
আপনার ফরজ পালনে আমাদের অপারগতার জন্য আমাদেরকে ক্ষমা করুন।
আমাদের জীবনের বাকী অংশকে প্রশস্ত করে দিন যাতে আমরা আগামী রমজান পেতে পারি।
যখন আপনি আমাদেরকে এ মাসে পৌছিয়েছেন, তখন আমাদেরকে ঐ ভক্তি অর্জন করতে সাহায্য করুন যা আপনি চান এবং ঐ আনুগত্য করার তৌফিক দিন যা আপনার সত্তা প্রাপ্য।
আমাদেরকে নেককাজের প্রবাহ সৃষ্টি করার তৌফিক দিন যা মাসগুলোর মধ্যে হতে দু’মাস আপনার কর্তব্য পালনে সন্তুষ্টি (আপনার) অর্জন করতে পারি।
হে প্রভু, সগীরা আথবা কবীরা গ্রণাহ যাই আমরা করেছি, অথবা আমরা যে অপরাধই করেছি এবং আমাদের এ মাসে আমরা যা ভুল করেছি অনিচ্ছাকৃতভাবে করেছি। যা দ্বারা আমরা আমাদের নিজ আত্মাকেই আঘাত করেছি অথবা আমাদের ব্যতিরেকে অন্যদের মর্যাদা হানি করেছে। অতপর, হযরত মুহাম্মদ এবং তার বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন।
আপনার ঢাকনা দ্বারা আমাদেরকে ঢেকে দিন।
আপনার ক্ষমাশীলতায় আমাদেরকে ক্ষমা করুন।
আমাদেরকে হিন্দুকের সামনে অনাবৃত করবেন না।
গীবতকারীদের জবানের বিপরীতে আমাদের রাখবেন না।
আমাদেরকে তাতে নিয়োজিত করুন যা আপনি আমাদের অনুমোদন করেছেন তা সরিয়ে দেয়, আপনার অসীম দয়া এবং অব্যর্থ অদান্যতা। হে প্রভু, হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন। আমাদের এই মাসের উছিলায় আমাদের ভোগান্তি দূর করুন। আমাদের উৎসবে (ঈদের) এবং নাস্তায় আমাদের উপর অনুগ্রহ করুন।
আমাদের কাছ থেকে অতিক্রান্ত দিনগুলোর মধ্যে এ দিনকে শ্রেষ্ঠ দিন করুন, যা ক্ষমার আকর্ষক এবং পাপ মোচনকারী। আমাদের জানা এবং অজানা পাপসমূহ ক্ষমা করুন।
হে প্রভু, এই মাসের মধ্যে আমাদের ভুল থেকে সংশোধন করুন।
এর মেয়াদ শেষ হলে আমাদেরকে গুণাহ্ থেকে দূরে রাখুন।
রমজান পাওয়া লোকদের মধ্যে আমাদেরকে সবচেয়ে অধিক ভাগ্যবান করুন। এর আত্মিক লাভ বন্টনে আমাদেরকে সর্বাধিক স্বচ্ছলতা দিন এবং এর অনুগ্রহ প্রাপ্তির বেলায় আমাদেরকে সর্বাধিক ধনী করুন।
হে প্রভু, যারা এ মাসকে পালন করে যেভাবে পালন করা দরকার, এর সম্মান বজায় রাখে যেরকম সম্মান বজায়ের প্রত্যাশা করে, এর নিয়ম পালন করে যেভাবে পালন করা দরকার এবং গুণাহ্ এড়িয়ে চলে যেমনভাবে এড়ানো দরকার অথবা যথাযথভাবে আপনার কাছে অগ্রসর হয়, আপনি তাকে কবুল করেছেন এবং তার প্রতি দয়াপরবশ হয়েছেন।
সেজন্য, আপনার ভান্ডার হতে আমাদেরকে এরূপ প্রতিদান দিন। আপনার বদান্যতায় তা বহুগুণে বৃদ্ধি করে দিন। বিশেষত, আপনার দয়া মলিন হয় না।
আপনার ভান্ডারে কখনও কমতি হয় না— উপরস্তু অনুগ্রহ বজায় থাকে।
আপনার দয়ার খনির কোনো নয় নেই।
নিশ্চিতভাবেই আপনার পুরস্কার সবচেয়ে আকর্ষণীয় পুরস্কার।
হে প্রভু, হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন। আমাদের জন্য তাদের প্রতিদান লিখে দিন যারা রমজানের রোযা রাখে এবং পুনরুত্থানের দিবস পর্যন্ত আপনাকে এ মাসে ভক্তি করে।
হে প্রভু, বিশেষত আমাদের নাস্তা করার দিনে (ঈদুল ফিতর) আমরা আপনার কাছে তওবা করছি যা আপনি আমাদের জন্য উৎসবের দিন হিসেবে নির্ধারণ করেছেন এবং যা ঈমানদারদের জন্য আনন্দের।
একটি পূন:র্মিলনের দিন এবং আপনার অঙ্গীকারবদ্ধ লোকদের ক্ষমা ঘোষণার দিন- যে সকল গুণাহ্ অথবা ভুল আমরা অতীতে করেছি।
আমরা মন্দ ধারণা পোষণ করে থাকি। তার তওবা কবুল করুন যে গোপনে পাপ করার ইচ্ছা করে না, যে তার পর আর কোনো অপরাধ করবে না- তা এমন এক তওবা যা সন্দেহ এবং অনিশ্চয়তা থেকে উর্ধ্বে। সেজন্য আমাদের এই তওবা কবুল করুন, আমাদের উপর সন্তুষ্ট হয়ে যান এবং এর উপর আমাদেরকে দৃঢ় রাখুন।
হে প্রভু, আমাদের মধ্যে হুমকিকৃত আযাবের ভয় ঢুকিয়ে দিন, এবং প্রত্যক্ষ স্বাদ আস্বাদন করার পূর্ব পর্যন্ত আমাদেরকে আপনার প্রতিশ্রুতির প্রত্যাশা করার তৌফিক দিন, যা আপনার কাছে চাই এবং ঐ পর্যন্ত থেকে আপনার আশ্রয় চাই।
আপনার দৃষ্টিতে আমাদেরকে তাদের অন্তর্ভূক্ত করুন যারা তওবা করে, যাদের জন্য আপনার ভালবাসা কার্যকর হয়েছে এবং আপনার কাছে যাদের ফিরে আসাকে আপনি কবুল করেছেন- হে ন্যায় বিচারক।
হে প্রভু, আমাদের বাবা-মাকে ক্ষমা করুন এবং ক্ষমা করুন আমাদের ইম্মাহ্ভুক্ত সকল লোকদেরকে, যারা চলে গেছে এবং যারা পুনরুত্থান দিবসের পূর্ব পর্যন্ত দুনিয়াতে আসবে।
হে প্রভু, আমাদের নবী এবং তার বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন, আপনার নিকটবর্তী ফেরেস্তাদের প্রতি যে রকম অনুগ্রহ করেছেন।
আপনি তাঁকে এবং তাঁর বংশধরদের অনুগ্রহ করুন, আপনার পাঠানো নবীদের উপর যেমন অনুগ্রহ করেছেন।
তাঁকে এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন, যেমন অনুগ্রহ আপনি আপনার নেককার বান্দাদের উপর করেছেন। হে সারা বিশ্বের মালিক তাঁকে তাঁর চেয়েও অধিক অনুগ্রহ করুন, যত মঙ্গল আমাদেরকে স্পর্শ করেছে, আমরা যত লাভবান হয়েছে এবং আমাদের মুনাজাত যা অর্জন করেছে। বিশেষত, যাদের কাছে অনুরোধ করা হয় আপনার সত্তা তাদের চেয়ে অধিক দয়াশীল, যাদের কাছে প্রার্থনা করা হয় তাদের চেয়ে অধিক দয়াশীল। আর সবকিছুর উপর আপনার ক্ষমতা বিদ্যমান।

Ref: হযরত ইমাম জয়নাল আবেদীন আল ছহীফাহ্ আল সাজ্জাদীয়াহ্
অনুবাদ মুহাম্মদ মাঈনউদ্দিন
অন্যধারা, ৩৮/২-ক বাংলাবাজার (৫ম তলা) ঢাকা-১১০০
প্রকাশকাল : সেপ্টেম্বর ২০০৮
বাংলা অনুবাদ: প্রকাশক ২০০৮