মানুষের হাজ সম্পাদনের ব্যবস্থা সম্পন্ন কর এবং তাদেরকে এ দিনে আল্লাহর প্রতি ধ্যানমগ্নতার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ো। প্রতি সকাল ও সন্ধ্যায় তাদের কাছে বসে বক্তব্য রেখো এবং তাদেরকে বুঝিয়ে দিয়ে। যারা আইন জানতে চায় তাদেরকে আইন বুঝিয়ে দিয়ো, অজ্ঞদের শিক্ষা দিয়ো এবং শিক্ষিতদের সাথে আলোচনা করো। তোমার ও জনগণের মধ্যে তোমার জিহবা ছাড়া যেন অন্য কোন মধ্যস্থতাকারী না থাকে এবং নিজের মুখমণ্ডল ছাড়া যেন আর কোন প্রহরী না থাকে। তোমার কাছে যার প্রয়োজন আছে সে যেন তোমার কাছে আসতে বাধা প্রাপ্ত না হয়। কারণ প্রথমেই সে ফিরে গেলে পরে যদি তুমি তার প্রয়োজন মিটিয়েও দাও। তবুও তার মনে দুঃখ থেকে যাবে এবং তখন উক্ত প্রয়োজন মিটানোর জন্য তোমার সুনাম করবে না।
সরকারি কোষাগারে কি পরিমাণ অর্থ-সম্পদ সংগৃহীত হয়েছে তার দেখাশোনা করো এবং সে সম্পদ থেকে নিজের তদারকিতে যারা সপরিবারে আছে, যারা দুঃস্থ, যারা অন্নহীন ও বস্ত্ৰহীন তাদের জন্য ব্যয় করো। তারপর যা থাকে তা আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিয়ো যেন এদিকের লোককে বণ্টন করে দিতে পারি। মক্কার লোকদের নির্দেশ দিয়ো যেন তারা অস্থায়ী বাসিন্দাদের কাছ থেকে ভাগ আদায় না করে, কারণ মহিমান্বিত আল্লাহ বলেন, “তথাকার (মক্কার) স্থায়ী বাসিন্দা ও আগন্তুকগণ একই রকম” (কুরআন, ২২ঃ ২৫)। “এখানে” আল আকিফ” অর্থ হচ্ছে যারা সেখানে বসবাস করে এবং “আলবাদি” অর্থ হচ্ছে যারা মক্কার স্থায়ী বাসিন্দা নয়—অন্যস্থান হতে হজের জন্য আসে। আল্লাহ আমাদেরকে ও তোমাকে তার ভালোবাসা পাওয়ার তৌফিক দান করুন। এখানেই শেষ করছি।