ইমাম হাসান ও হুসাইনের প্রতি [ যখন আবদার রহমান ইবনে মুলাজাম (তার ওপর আল্লাহর ল্যানত) তাঁকে মারণাঘাত করেছিল তখন এ আছিয়াত করেছিলেন
আল্লাহকে ভয় করার জন্য এবং দুনিয়ার প্রতি কোন লোভ না করার জন্য আমি তোমাদের উপদেশ দিচ্ছি। দুনিয়া যদি তোমাদের পিছনে দৌড়েও বেড়ায় তবু তা এড়িয়ে যেয়ো। এ দুনিয়ার কোন কিছুর জন্য কখনো দুঃখ করো না। সত্য কথা বলো এবং আল্লাহর পুরস্কারের আশায় কাজ করো। অত্যাচারীর শত্রু হয়ো এবং অত্যাচারিতের সাহায্যকারী হয়ো ।
আমি তোমাদের দুজনকে, আমার সকল সন্তানকে, আমার পরিবারের সকল সদস্যকে এবং যাদের কাছে আমার এ লেখা পৌছবে তাদের সকলকে উপদেশ দিচ্ছি। আল্লাহকে ভয় করতে, তোমাদের কর্মকান্ড সুশৃঙ্খলভাবে করতে এবং তোমাদের নিজেদের মধ্যে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে। কারণ আমি তোমাদের নানাজানকে (রাসুলাল্লাহ) বলতে শুনেছি,” নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক মতানৈক্য দূর করা নফল ইবাদত ও সিয়াম অপেক্ষা উত্তম ।” আল্লাহকে ভয় করো এবং এতিমদের ব্যাপারে আল্লাহকে স্মরণ করো এবং তাদের বিষয়ে আল্লাহর আদেশ পালনে তৎপর থেকো। সুতরাং তারা যেন উপোস না থাকে এবং তোমাদের সম্মুখে ধ্বংস হয়ে না। যায় । আল্লাহকে ভয় করো এবং প্রতিবেশীদের বিষয়ে আল্লাহর আদেশ মেনে চলো। কারণ তারা রাসুলের (সঃ) উপদেশের বিষয়বস্তু ছিল। তিনি তাদের অনুকূলে এভাবে উপদেশ দিতেন। কখনো কখনো আমরা আল্লাহকে ভয় করো এবং কুরআনের ব্যাপারে আল্লাহকে স্মরণ রেখো। কুরআনের আদেশ নিষেধ পালনে কেউ যেন তোমাদের অতিক্রম করে যেতে না পারে। আল্লাহকে ভয় করো এবং সালাতের বিষয়ে আল্লাহকে স্মরণ রেখো। কারণ এটা দ্বিনের স্তম্ভ । আল্লাহকে ভয় করো এবং কাবার বিষয়ে তাকে স্মরণ করো এবং যতদিন বেঁচে থাক কাবাকে ভুলে যেয়ো না। কারণ কাবা পরিত্যক্ত হলে তোমরা রেহাই পাবে না। আল্লাহকে ভয় করো এবং জিহাদের বিষয়ে আল্লাহকে স্মরণ করো। তোমাদের জান, মাল ও জিহবা দ্বারা আল্লাহর পথে জিহাদ করো। জ্ঞাতিত্বের প্রতি তোমরা সম্মান দেখিয়ে চলো এবং তাদের জন্য ব্যয় করতে কুষ্ঠাবোধ করো না। পারস্পরিক সম্পর্ক ছিন্ন করে একজন আরেক জনের প্রতি মুখ ফিরিয়ে নিয়ো না। কল্যাণের পথে আহবান করা কখনো ত্যাগ করো না এবং পাপের জন্য কাউকে ক্ষমা করো না । তা করলে ফোতনাফ্যাসাদকারীরা সুদৃঢ় অবস্থান পেয়ে যাবে। এমন করলে তোমাদের সালাত কবুল হবে না। হে আবদাল মুত্তালিবের বংশধরগণ, নিশ্চয়ই, আমি আশা করি না যে “আমিরুল মোমেনিন নিহত হয়েছে” বলে তোমরা মুসলিমদের রক্তপাত করবে। সাবধান, আমার হত্যাকারী ছাড়া আর কাউকে তোমরা হত্যা করো না। ইবনে মুলজামের এ আঘাতে আমার মৃত্যু হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করো। তারপর এ আঘাতের বদলা হিসাবে একটা আঘাত করো এবং তার অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ কেটে আলাদা করো না। কারণ আমি আল্লাহর রাসুলকে বলতে শুনেছি,” কখনো অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ কেটো না, যদি সেটা একটা ক্ষিপ্ত কুকুরও হয়।”