তাকওয়ার প্রতি আহবান
প্রতিষ্ঠিত প্রশধ্বংসা আল্লাহর যিনি প্রশধ্বংসাকে তাঁর জিকিরের চাবি, তাঁর নেয়ামত বৃদ্ধির উপায় এবং তার মহিমা ও সিফাতের দেশনা করেছেন।
হে আল্লাহর বান্দাগণ, যারা এ দুনিয়া ছেড়ে চলে গেছে তাদের প্রতি সময় যেরূপ আচরণ করেছে একইরূপ আচরণ তাদের প্রতিও করা হবে যারা জীবিত আছে। যে সময় চলে গেছে তা আর কোনদিন ফিরে আসবে না এবং আজ দুনিয়াতে যা কিছু আছে তা চিরদিন থাকবে না। এর পূর্ববতী কাজ পরবতী কাজের অনুরূপ। এর বিপদাপদ ও দুঃখ-কষ্ট একটা অপরটিকে ছাপিয়ে যেতে চায়। এর ঝান্ডা একটা অপরটিকে অনুসরণ করে। এটা এ জন্য যে, তোমরা যেন শেষ দিনের প্রতি অনুরক্ত হও যা তোমাদেরকে এত দ্রুত তাড়িয়ে নিয়ে যাচ্ছে যেমন করে সাত মাসের অদুগ্ধবতী উস্ত্রীকে তাড়িয়ে নিয়ে যায়। যে ব্যক্তি আত্মা উন্নতি ছাড়া অন্য কিছু নিয়ে ব্যস্ত থাকে। সে অন্ধকারে বিহবল হয়ে পড়ে এবং ধ্বংসে জড়িয়ে পড়ে। তার পাপাত্মা তাকে অধর্মের গভীরে ডুবিয়ে দেয় এবং তার মন্দ আমলসমূহকে সুন্দর করে দেখায়। ভালো কাজে যারা অগ্রণী জান্নাত তাদের জন্য আর যারা সীমালজয়নকারী জাহান্নাম তাদের জন্য ।
হে আল্লাহর বান্দাগণ, জেনে রাখো, তাকওয়া একটা সুরক্ষিত ঘর এবং তাকওয়াহীনতা অতি দুর্বল ঘর যা বসবাসকারীকে রক্ষা করতে পারে না এবং এতে যারা আশ্রয় গ্রহণ করে তাদেরকে কোন নিরাপত্তা দিতে পারে না। জেনে রাখো, তাকওয়া পাপের বিষাক্ত ছোবল থেকে রক্ষা করে এবং ইমানের দৃঢ়তা দ্বারা চূড়ান্ত লক্ষ্য (মুক্তি) অর্জন করা যায়।
হে আল্লাহর বান্দাগণ! আল্লাহকে ভয় কর, আল্লাহকে ভয় করা, তোমাদের নিজস্ব ব্যাপারে যা তোমাদের অতি প্রিয় ও নিকটতম। কারণ, আল্লাহ তোমাদের কাছে সত্যবাদিতার পথের বিশদ ব্যাখ্যা প্রদান করেছেন এবং সেই পথকে আলোকমণ্ডিত করেছেন। সুতরাং চিরকালীন দুর্ভোগ ও অনন্ত আনন্দ– এ দুটির যে কোন একটা তোমরা বেছে নিতে পার। এই নশ্বর দিনগুলোতে অনন্ত দিনের রসদ সংগ্ৰহ করা তোমাদের উচিত। তোমাদেরকে রসদের কথা জানানো হয়েছে, অগ্রগামী হতে আদেশ দেয়া হয়েছে। এবং যাত্রায় তাড়াহুড়া করতে বলা হয়েছে। তোমরা দণ্ডায়মান অশ্বারোহীর মতো যারা জানে না। কখন তাদেরকে কুচকাওয়াজ করার জন্য আদেশ দেয়া হবে। সাবধান, যারা পরকালের জন্য সৃষ্টি হয়েছে তারা এ দুনিয়া দিয়ে কী করবে? সম্পদ দিয়ে মানুষ কী করবে যা থেকে সে সহসাই বঞ্চিত হবে? মানুষ শুধুমাত্র সম্পদের কুফল ও হিসাব-নিকাশ পিছনে ফেলে যায়। হে আল্লাহর বান্দাগণ, আল্লাহ যে সব কল্যাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তা কখনো পরিত্যাগ করো না এবং যে সব অকল্যাণ থেকে বিরত থাকতে বলেছেন তাতে কখনো লিপ্ত হয়ে না। হে আল্লাহর বান্দাগণ, সেদিনকে ভয় কর যেদিন আমলের হিসাব নেয়া হবে । সেদিন তোমরা এমনভাবে ভয়ে কাপতে থাকবে। যে, শিশুও বৃদ্ধ হয়ে যাবে। হে আল্লাহর বান্দাগণ, জেনে রাখো, তোমাদের বাতেনই (বিবেক) তোমাদের জন্য প্রহরী। তোমাদের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গসমূহ পাহারাদার এবং সত্যবাদী প্রহরীগণের কাছে বিশ্বস্ত যারা তোমাদের আমল ও শ্বাস-প্ৰশ্বাসের হিসাব রাখে। রাতের গাঢ় অন্ধকার বা রুদ্ধদ্বার তাদের কাছ থেকে তোমাদেরকে গোপন করতে পারে না । নিশ্চয়ই আগামীকাল আজকের অতি নিকটবতী । আজকের দিনটি তার সব কিছু নিয়ে প্রস্থান করা মাত্রই আগামীকাল এসে পড়বে। এটা এ জন্য যে, তোমাদের প্রত্যেকেই যেন পৃথিবীর সে স্থানে পৌছে গেছাে যেখানে তোমরা একাকী থাকবে (অর্থাৎ কবর)। সুতরাং সেই নিঃসঙ্গ ঘর, নির্জন থাকার জায়গা ও নির্জন নির্বাসনের কথা তোমাদেরকে কী আর বলবো! শিঙ্গার আওয়াজ যেন তোমাদের কাছে পৌছে গেছে, নির্ধারিত সময় যেন তোমাদেরকে নাগাল ধরে ফেলেছে এবং তোমরা যেন বিচারের জন্য বেরিয়ে এসেছো । তোমাদের কাছে থেকে মিথ্যার আবরণ সরিয়ে ফেলা হয়েছে এবং তোমাদের সকল ওজর দুর্বল হয়ে পড়েছে। তোমাদের বিষয়ে যা সত্য তা যেন প্রমাণিত হয়েছে। তোমাদের সকল বিষয় এর পরিণতির দিকে অগ্রসর হচ্ছে। সুতরাং উপমা ও উদাহরণ থেকে তোমরা উপদেশ গ্ৰহণ কর, উত্থান-পতন থেকে শিক্ষা গ্ৰহণ কর এবং সতর্ককারীদের সতর্কবাণীর সুযোগ গ্রহণ করা।