খোৎবা- ৫

আবু বকর কর্তৃক খেলাফত দখলের পর আব্বাস ও আবু সুফিয়ান খেলাফতের জন্য আমিরুল মোমেনিনকে সাহায্য করার প্রস্তাব করায় এ খোৎবা প্রদান করেন। হে জনমন্ডলী*! ফেতনার তরঙ্গ মাঝে শক্ত হাতে হাল […]

খোৎবা- ৬

তালহা ইবনে উবায়দুল্লাহ ও জুবায়র ইবনে আওয়ামের পশ্চাদ্ধাবন না। করার জন্য কেউ কেউ উপদেশ দিলে আমিরুল মোমেনিন এ খোৎবা প্রদান করেন। আল্লাহর কসম, আমি “দাবু’র (ভোঁদড় জাতীয় নিশাচর প্রাণী) মতো […]

খোৎবা- ৮

জুবায়র সম্পর্কে সে বলে বেড়ায় যে, সে আমার হাতে হাত রেখেই বায়াত গ্রহণ করেছে কিন্তু অন্তর” দিয়ে তা করে নি। সুতরাং সে এমন বায়াত স্বীকার করে না। সে বায়াত গ্রহণ […]

খোৎবা- ৯

জামাল-যুদ্ধে শত্রুদের কাপুরুষতা সম্পর্কে তারা” মেঘের মতো গর্জন করেছিল; বিজলীর মতো চমক দিয়েছিল। লম্বফ-ঝম্বফ ছাড়া তাদের সবটুকুই কাপুরুষতা। তীব্রবেগে শত্রুকে আক্রমণ না করা পর্যন্ত আমরা গর্জন করি না এবং কথার […]

খোৎবা- ১০

তালহা ও জুবায়র সম্পর্কে সাবধান! শয়তান” তার দল জড়ো করেছে এবং তার অশ্বারোহী ও পদাতিক সৈন্যদল সমবেত করেছে। নিশ্চয়ই, আমার সূক্ষ্ম দৃষ্টি সম্পন্ন জ্ঞান আছে। আমি কখনো নিজের সাথে প্রতারণা […]

খোৎবা- ১২

জামালের যুদ্ধে যখন আল্লাহ আমিরুল মোমেনিনকে শত্রুপক্ষের ওপর বিজয়ী করলেন তখন তার একজন অনুচর বললেন, “হায়! আমার ভাই অমুক যদি যুদ্ধে উপস্থিত থাকতো তাহলে সেও দেখতে পেতো আল্লাহ। আপনাকে কেমন […]

খোৎবা- ১৩

বসরার জনগণকে তিরস্কার’ তোমরা ছিলে একজন রমণীর সৈন্য এবং একটা চতুষ্পদ জন্তুর নিয়ন্ত্রণাধীন। যখন জন্ত%8

খোৎবা- ১৪

বসরাবাসীদের প্রতি ভৎসনা তোমাদের মাটি সমুদ্রের নিকটবতী এবং আকাশ থেকে অনেক দূরে ৷ তোমাদের বোধশক্তি খুবই ক্ষীণ, ধৈর্য মূর্খতাপূর্ণ এবং তোমাদের মন পাপে পূর্ণ। তোমরা তীরন্দাজের লক্ষ্যবস্তু, খাদকের গ্রাস এবং […]

খোৎবা- ১৫

উসমান ইবনে আফফান কর্তৃক অনুদানকৃত ভূমি পুনঃগ্রহণ করার পর বলেন আল্লাহর কসম, যদিও আমি দেখেছিলাম। এ অর্থ দ্বারা নারী বিয়ে করা যায় অথবা ক্রীতদাসী ক্রয় করা যায়। তবুও আমি তা […]

খোৎবা- ১৬

মদিনায় তার হাতে বায়াত গ্রহণের পর এ ভাষণ দেন। আমি যা বলি তার দায় দায়িত্বের নিশ্চয়তা আমার এবং সে জন্য আমিই জবাবদিহি করবো। যার কাছে অতীতের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির (আল্লাহ্ কর্তৃক […]