উম্মুল মুমেনীন হযরত আয়েশার বিবাহকালীন বয়স সমাচার —

উম্মুল মুমেনীন হযরত আয়েশার বিবাহকালীন বয়স সমাচার —

প্রচলিত ইসলামে সহীহ বুখারীর হাদিস দিয়ে এটা বহুল ভাবে প্রচার করা হয় যে , হযরত মুহাম্মাাদ (সাঃ) যখন হযরত আয়েশাকে বিবাহ করেন তখন হযরত আয়েশার বয়স ছিল মাত্র ছয় বছর ।
হযরত আয়েশার তখন পুতুল খেলার বয়স ছিল । এ বিয়েতে তিনি প্রচন্ড ভয় পেয়েছিলেন ইত্যাদি ইত্যাদি ।
এবং নয় বছর বয়সে হযরত আয়েশা মহানবী (সাঃ) এর সাথে ঘর করা শুরু করেন ।
হযরত মুহাম্মাাদ (সাঃ) বয়স তখন ছিল ৫৪ বছর ।

খুব স্বাভাবিক ভাবে সারা দুনিয়াতে বিষয়টি নিয়ে তোলপার চলে যে , একজন ৫৪ বছরের বয়স্ক বুজুর্গ মানুষ একজন বাচ্চা মেয়েকে কিভাবে বিবাহ করতে পারে !

পৃথিবীর কোন শিক্ষিত সভ্য সমাজ এটা মেনে নিতে পারে না ।
এমনকি আমরা আমাদের ব্যক্তিগত জীবনেও এই ধরনের চরম অসম বিবাহ মানতে পারি না । আমরা কি কখনও আমাদের ছয় বছরের কন্যা বা বোনকে ৫৪ বছরের মধ্য বয়সের একজন ব্যক্তির সাথে বিবাহ দিতে পারি ?
অসম্ভব এটা হতেই পারে না ।
এটা তো ধর্ষণের পর্যায় পড়ে ।

বিষয়টি নিয়ে সারা দুনিয়াতে এখনও খুব বাজে ভাবে হযরত মুহাম্মাাদ (সা:) এর মান মর্যাদা সাংঘাতিক ভাবে ভুলন্ঠিত করা হয় ।
এবং জাতি ধর্ম বর্ন নির্বিশেষে পৃথিবীর সকল মানুষের এই জাতীয় সমালোচনা অবশ্যই যৌক্তিক ।

কোন সভ্য সমাজ এই জাতীয় অসম ও বিকৃত বিবাহ মেনে নিতে পারে না ।

রাসুল (সাঃ) কে এই ভাবে সহীহ হাদিসের দোহাই দিয়ে সমগ্র দুনিয়ার সামনে কতটা নীচ ও হীন করে দেয়া হচ্ছে –

বড়ই দুঃখের বিষয় , এর কোন যৌক্তিক জবাব আজ পর্যন্ত আমাদের সুন্নি ভাইরা দিতে পারলেন না !

পাঠক ,
বিশ্বাস করুন ,
পুরো বিষয়টি জঘন্য ডাঁহা একটি মিথ্যা কাহিনী ।

পরিকল্পিত ভাবে এসব করা হচ্ছে শুধুমাত্র রাসুল (সাঃ) এর মান সম্মাান ও মর্যাদাকে দুনিয়ার সামনে ছোট করার জন্য !

আসুন ,
দেখে নিন ,
বার ইমামীয়া শীয়ারা কিতাব দিয়ে প্রমান করে দিয়েছে যে –
হযরত মুহাম্মাাদ (সা:) এর সাথে যখন উম্মুল মুমেনীন হযরত আয়েশার শুভ বিবাহ সম্পন্ন হয় তখন হযরত আয়েশার বয়স ছিল ২০ (কুড়ি) বছর ।

এবং হযরত মুহাম্মাাদ (সাঃ) এর সাথে বিবাহের পূর্বে হযরত আয়েশা জনৈক মুতেমের পুত্র জুবাইরের পত্নী ছিলেন ।

হযরত আয়েশা তার প্রথম স্বামীকে তালাক দিয়ে হযরত মুহাম্মাাদ (সাঃ) কে বিবাহ করেন ।

বাকিটা নিজেই দেখে নিন ।
ভিডিওতে সকল কিতাবের রেফারেন্স ও লিখিত প্রমান দেয়া আছে ।
ইংরেজী সাব টাইটেল দেয়া আছে ।

You Tube এ যেয়ে টাইপ করুন –
Aisha Marriage Age Exposed With Evidence !

আশা করি বহুদিনের জঘন্য নোংরামির ডাঁহা একটি মিথ্যা কাহিনী থেকে মুক্ত হলেন ।
ধন্যবাদ ।

 

SKL