হাদিসে গাদীর ও মাউলা শব্দের ব্যবহার

গাদীর দিবসে রাসুল (সা.) হযরত আলী (আ.) সম্পর্কে যে হাদিসটি বর্ণনা করেছেন যে,

من کنت مولاه فهذا علی مولاه”

অর্থাত আমি যার মাউলা বা অভিভাবক আলীও তার মাউলা বা অভিভাবক

এ হাদিস সম্পর্কে মুসলমানদের মধ্যে কোনো রকম দ্বন্দ্ব না থাকলেও তার মাউলা শব্দের

অর্থ নিয়ে মুসলমানদের মধ্যে অনেক মতপার্থক্য দেখা যায়। অনেকে মাউলা শব্দকে অভিভাবক অর্থে আবার অনেকে বন্ধু অর্থে ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু এ শব্দটি এমন একটি গ্রহণীয় শব্দ যা ওই সময় কেউই দ্বিধাদ্বন্দ্ব করেনি। গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা এ হাদিসের বর্ণনার পর আলীকে (আ.) মোবারক বাদ দেন। তাহলে আমাদের দেখতে হবে যে ইসলামের প্রথম দিকে মাউলা শব্দ দিয়ে কি বুঝানো হতো।

হাদিসে গাদীরে যে মাউলা শব্দের ব্যবহার রাসুল (সা.) করেছেন তার মূল ক্রিয়া হচ্ছে ওয়ালি আর এ শব্দ খেলাফতের জন্যও ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আর ইসলামের প্রথমদিকেও এ শব্দটি খেলাফতের জন্যই ব্যবহৃত হত, যেমনটি করেছিলেন প্রথম এবং দ্বিতীয় খলিফাগণ।

১। প্রথম খলিফা আবুবকর বলেছিলেন:

قال ابوبكر :قد وُلِّيتُ أمركم ولست بخيركم  . إسناد صحيح  . البداية والنهاية  ، ج 6  ، ص 333 ،

সহীহ হাদিসে আবুবকর বলেছিলেন: আমি তোমাদের কাজের জন্য খলিফা নির্ধারিত হয়েছি। (আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া, ৬ষ্ঠ খন্ড, পৃষ্ঠা: ৩৩৩)

এ হাদিসের দ্বারা আমরা জানতে পারি যে, হযরত আবু বকর وُلِّيتُ শব্দ দিয়ে খলিফা বুঝিয়েছেন। আর কেউ তখন আপত্তি বা প্রতিবাদ করেনি কারণ সাধারণত ওয়ালি শব্দটি খলিফার জন্যই ব্যবহৃত হত। আবার অপর এক হাদিসে তিনি বলেছেন:

وَلَّيْتُعليكمعمرَ . جامعالاصوللابنالأثيرج 4   ص 109.

আমি ওমরকে তোমাদের উপর খলিফা নির্ধারণ করেছি। (ইবনে আসিরের জামেউল উসুল, ৪র্থ খন্ড, পৃষ্ঠা:১০৯)

তখনও কিন্তু আপত্তি বা প্রতিবাদমূলক কোনো কথা হয়নি। কারণ সব মুসলমানরাই এ শব্দের অর্থের সাথে সুপরিচিত ছিলেন।

আবারো বলেন:

اللهموليتهبغيرأمرنبيك . الثقاتلابنحبان: ج 2 ص 193

হে আল্লাহ আমি তাকে (ওমরকে) তোমার নবীর (সা.) হুকুম ছাড়া খলিফা বানিয়েছি। (ইবনে হাইয়ানের আস সিকাত, ২য় খন্ড, পৃষ্ঠা: ১৯৩)

এখানেও কেউ অন্য কোনো অর্থের সম্ভাবনা হতে পারে বলে কথা বলেননি।

২। ওমর বলেছিলেন:

قالعمر : فلمّاتوفّيرسولاللّهقالأبوبكر : أناوليّرسولاللّه  | . . . ثُمَّتُوُفِّيَأَبُوبَكْروَأَنَاوَلِيُّرَسُولِاللَّهِ  | وَوَلِيُّأَبِيبَكْر  . مسلم : 5 / 152 /  4468

ওমর বলেন: যখন আল্লাহর রাসুল (সা.) মৃত্যুবরণ করেন আবুবকর বললেন: আমি আল্লাহর রাসুলের (সা.) খলিফা … অতঃপর আবুবকর মৃত্যুবরণ করলেন এখন আমি হচ্ছি আল্লাহর রাসুলের (সা.) খলিফা ও আবুবকরের খলিফা। (সহীহ মুসলিম, ৫ম খন্ড, পৃষ্ঠা: ১৫২, হাদিস: ৪৪৬৮)

তখনও সব মুসলমানরা চোখ বন্ধ করে ওমরকে দ্বিতীয় খলিফা মেনে নিলেন কেউ বললো না যে, ওয়ালি শব্দের অর্থ হচ্ছে বন্ধু বা সাথি।

এ বর্ণনা অনুযায়ী হাদিসে গাদীরে রাসুল (সা.) যে বলেছিলেন: আমি যার মাউলা আলীও (আ.) তার মাউলা। তার অর্থ হচ্ছে আলী (আ.) আমার পর তোমাদের উপর আমার খলিফা। যদি মাউলা শব্দের অর্থ বন্ধু হয় যা অনেকে বলে থাকেন তাহলে প্রথম এবং দ্বিতীয় খলিফাকে খলিফা বলা ঠিক হবেনা যা অনেকেই বলেন বরং বলতে হবে তারা দুজন মুসলমানদের বন্ধু ছিলেন। তা না হলে আলীর (আ.) সময় এতো দ্বন্দ্ব কেন? কোনো চক্রান্ত, হিংসা, বিদ্বেষ বা অন্য কোনো রাজনৈতিক কারণ। তা অবশ্যই আমাদের দেখতে হবে।

মূল: সৈয়দ এহসান হোসাইন হোসাইনী

Source: http://www.hussainidalan.com