কারাগারে ইমাম কাযিম (আ.) এর অলৌকিক ক্ষমতা

কারাপরিদর্শক মুসাইব বলেঃ ইমাম মূসা কাযিম (আ.) এর শাহাদতের তিন দিন পূর্বে তিনি আমাকে ডেকে বলেনঃ হে ‍মুসাইব! আজকে রাতে আমি মদীনাতে যাব এবং আমার পরে ইমামতের সমস্ত দ্বায়িত্বভার আমার সন্তান ইমাম জাওয়াদ (আ.) কে বুঝিয়ে দিব। সে হবে আমার পরে মুসলমানদের ইমাম।
মুসাইব বলেঃ আপনি কি মনে করেন যে আমি সকল প্রহরীকে ফাঁকি দিয়ে আপনার হাতে পায়ে বাধা শিকলের তালা খুলে আপনাকে আমি কারাগারের বাইরে নিয়ে যেতে পারব?
ইমাম বলেনঃ হে মুসাইব! তুমি কি খোদার দানৃকত অলৌকিক শক্তির প্রতি সন্দেহ পোষণ কর?
মুসাইব বলেঃ না আমার মওলা আমি সন্দেহ করি না।
ইমাম বলেনঃ তাহলে কি?
মুসাইব বলেঃ দোয়া করুন যেন আমার ঈমান আরো শক্তিশালী হয়।
ইমাম বলেনঃ হে খোদা তাকে দৃঢ়পদ কর।
অতঃপর ইমাম (আ.) বলেনঃ যে ইসমে আযমের তেলাওয়াত করে আসিফ ইবনে বাখিয়া চোখের পলকে বিলকিসের সিংহাসনকে ইয়ামেন থেকে ফিলিস্তিনে নিয়ে আসে আমিও সেই ইসমে আযমের মাধ্যমে আজকে কারাগারের বাইরে মদীনাতে যাব। অতপর তিনি দোয়া পাঠ করেন হঠাৎ দেখি ইমাম (আ.) আমার সামনে থেকে অদৃশ্য হয়ে গেছেন। তার কিছুক্ষণ পরে দেখি যে, তিনি আবার নিজ মোবারক হাতে শিকলের তালাগুলো বন্ধ করছেন। অতঃপর তিনি বলেনঃ আমি আর তিনদিন পরে মারা যাব। আমি এ কথা শুনে কাঁদতে শুরু করি। তিনি আমাকে বলেনঃ হে মুসাইব! ক্রন্দন করো না জেনে রাখ আমার পরে তোমাদের ইমাম হচ্ছেন আমার সন্তান আলী ইবনে মূসা রেযা (আ.)।
সূত্রঃ বিহারুল আনওয়ার, খন্ড ৪৮, পৃষ্ঠা ২২৪।

http://www.tvshia.com/bn/content/15322