চিঠি-১১

শক্রির মোকাবেলায় প্রেরিত সৈন্যবাহিনীর প্রতি যখন তোমরা শত্রুর দিকে এগিয়ে যাও অথবা শক্ৰ তোমাদের দিকে এগিয়ে আসে তখন তোমরা উচু স্থানের বা পাহাড়ের ঢালে অথবা নদীর বঁাকে এমন স্থানে অবস্থান […]

চিঠি-১২

তিন হাজার সৈন্যের একটি অগ্রগামী বাহিনীর নেতৃত্ব দিয়ে সিরিয়া অভিমুখে প্রেরণের প্রাক্কালে মাকিল ইবনে কায়েস আর-রিয়াহিকে বলেছিলেনঃ আল্লাহকে ভয় কর যার সম্মুখে সকলেরই উপস্থিতি অবধারিত। আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো সাথে […]

চিঠি-১৩

আমি মালিক” ইবনে হারিছ। আল-আশতারকে তোমাদের ও তোমাদের অধীনস্থ সকলের কমান্ডার হিসাবে নিয়োগ করেছি। সুতরাং তোমরা সকলেই তার আদেশ পালন করে চলবে এবং তাকে তোমাদের বর্ম ও ঢাল হিসাবে মনে […]

চিঠি-১৪

সিফফিনে” শত্রুর সাথে যুদ্ধ শুরু করার পূর্বে সেনাবাহিনীকে এ নির্দেশ দিয়েছিলেন। শত্রুপক্ষ আঘাত হানার পূর্ব পর্যন্ত তোমরা আঘাত করো না। কারণ আল্লাহর অসীম রহমতে, তোমরা ন্যায়ের পথে রয়েছে এবং তারা […]

চিঠি-১৫

শত্রুর মোকাবেলা করার পূর্বে আমিরুল মোমেনিন এ প্রার্থনা করতেন হে আমার আল্লাহ, তোমার দিকেই হৃদয়ের টান পড়ছে; তোমার প্রতি মস্তক অবনত হচ্ছে; তোমার দিকেই চক্ষু স্থির, তোমার দিকেই পদচারণা চলছে […]

চিঠি-১৬

যুদ্ধের সময় অনুচরদেরকে এ নির্দেশ দিতেন ফিরে আসার উদ্দেশ্যে পশ্চাদপসারণ এবং আক্রমণের উদ্দেশ্যে পিছিয়ে যাওয়া তোমাদেরকে যেন বিচলিত না করে। তোমাদের তরবারির প্রতি ন্যায় বিচার করো। (অর্থাৎ তোমাদের তরবারিকে তার […]

চিঠি-১৭

মুয়াবিয়ার একটি পত্রের প্রত্যুত্তর’ তোমার পত্রে তুমি আমার কাছে দাবি করেছে। আমি যেন সিরিয়া তোমার কাছে হস্তান্তর করি। এ বিষয়ে তোমাকে স্পষ্ট জানিয়ে দিচ্ছি যে, আমি গতকাল যা অস্বীকার করেছি […]

চিঠি-১৮

জেনে রাখো, বসরা এমন এক স্থান যেখানে শয়তান অবতরণ করে ও ফেতনা সংঘটিত হয়। সেখানকার জনগণকে ভালো ব্যবহার দ্বারা খুশি রেখো এবং তাদের মন থেকে ভয়ের গ্রন্থি খুলে ফেলো। আমি […]

চিঠি-১৯

আমিরুল মোমেনিনের একজন অফিসারের প্রতি তোমার নগরীর কৃষকগণ অভিযোগ করেছে যে, তুমি তাদের প্রতি অবমাননাকর ও রূঢ় ব্যবহার কর। তুমি তাদের প্রতি কঠোর ও দয়ামায়াহীন হৃদয়ের আচরণ করা। এ বিষয়ে […]

চিঠি-২০

জিয়াদ ইবনে আবিহর প্রতি (বসরার গভর্নর আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাসের ডেপুটি) আমি সত্যিকারভাবে আল্লাহর নামে শপথ করে বলছি, যদি আমি জানতে পারি যে, তুমি মুসলিমদের তহবিল কী অল্প কী বেশি আত্মসাৎ […]