জারীর ইবনে আব্দদিল্লাহ আল-বাজালীকে বায়াত আদায়ের জন্য মুয়াবিয়ার কাছে প্রেরণ কাছে প্রেরণ করার পর আমিরুল মোমেনিনের কয়েকজন অনুসারী মুয়াবিয়ার সাথে যুদ্ধের প্রস্তুতি গ্রহণের পরামর্শ দিলে তিনি বলেনঃ যেখানে জারীর ইবনে আবদিল্লাহ আল-বাজালী এখনো সিরিয়ায়, সেখানে সিরিয়ার জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিলে সিরিয়ার দরজা চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে এবং সিরিয়ার জনগণ যদি বায়াত গ্রহণের ইচ্ছা পোষণ করে থাকে তাও রুদ্ধ হয়ে যাবে। যাহোক, আমি জারীরকে একটা সময়সীমা বেঁধে দিয়েছি। প্রতারিত অথবা অবাধ্য না হলে সে সময়সীমার বেশি সেখানে অবস্থান করবে না। আমার অভিমত সর্বদাই ধৈর্যের অনুকূলে। সুতরাং একটু ধৈর্যধারণ কর। ইতোমধ্যে তোমাদের প্রস্তুতি গ্ৰহণ আমাদের অপছন্দনীয় নয়।
এ বিষয়টি আমি সবদিক থেকে পুঙ্খানুপুঙ্খ পর্যবেক্ষণ করেছি। কিন্তু যুদ্ধ অথবা মুহাম্মদ (সঃ) যা
সুতরাং জনগণ সমালোচনা করলো, তারপর রুখে দাঁড়ালো এবং তাতে শাসন ক্ষমতা পরিবর্তিত হলো।