প্রথম ওহী যখন নাজিল হয় তখন রাসুল (সাঃ) নাকি ভয় পেলেন !

বিষয়টা মাথায় খেলছে না –
কেউ কি সাহায্য করবেন , প্লীজ !

দৃশ্যপট – ০১ –
মহান আল্লাহর দরবার ।
মহান আল্লাহ স্বয়ং নিজে হযরত আদম (আঃ) কে কিছু নাম শিক্ষা দিলেন এবং হযরত আদম (আঃ) কে আদেশ দিলেন যে , উক্ত নামগুলো যেন সকল ফেরেশতাদেরকে শিক্ষা দেন ।
আল্লাহর আদেশে হযরত আদম (আঃ) সকল ফেরেশতাগনকে শিক্ষা দিলেন ।
বিষয়টা পরিস্কার যে , হযরত আদম (আঃ) সকল ফেরেশতাগনের ওস্তাদ এবং সকল ফেরেশতাগন ওঁনার সাগরেদ ।

দৃশ্যপট – ০২ –
নবীকন্যা মা জননী ফাতেমা যাহরা (সাঃআঃ) এর পবিত্র গৃহ ঝাড়ু দিয়ে পরিস্কার করা , ওঁনার দুই শিশুপুত্র হাসান (আঃ) ও হোসেন (আঃ) এর দোলনা দোলানো , ওঁনার আটা পিষার চাকতি পিষা , জান্নাত থেকে ওঁনার দুই সন্তানের জন্য ঈদের জামা আনা ইত্যাদি ঘরগেরস্থের অনেক কাজ এই সমস্ত ফেরেশতাগন হরহামেশা করতেন ।
বিষয়টা পরিস্কার যে , খাতুনে জান্নাতের ঘরের কাজকর্ম করে দিয়ে এই সমস্ত ফেরেশতারা ধন্য হয়ে যেতেন । এবং ফেরেশতাদের সকল কাজই ইবাদততুল্য । কারন ফেরেশতাদের নফস নেই ।

যাইহোক পাঠক ,
এবারে মূল কথায় আসি ।
শীয়া সুন্নি সকলেই একবাক্যে এই কথাগুলি স্বীকার করেন যে ,
মহানবী হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) কে সৃষ্টি না করলে মহান আল্লাহ কিছুই সৃষ্টি করতেন না ।
সকল কিছুই নবীজী (সাঃ) এর মহব্বতে সৃষ্টি করেছেন ।

সর্বপ্রথম সৃষ্টি হল মহানবী (সাঃ) এর পবিত্র নূর মোবারক ।
হযরত আদম (আঃ) এর তখন সষ্টিই হয় নি , হযরত আদম (আঃ) যখন কাদা জলে অবস্থান করছেন তারও বহু হাজার বছর পূর্বে হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) কে সৃষ্টি করেছেন আল্লাহ ।

হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) হলেন সকল নবী রাসুলের মহাসর্দার ।

এবারে আসুন তথাকথিত হাদিসের নমুনা -.
” — হেরা পর্বতের গুহায় জীবরাইল (আঃ) যখন সর্বপ্রথম পবিত্র কোরআনের আয়াত নিয়ে অবর্তীন হলেন তখন মুহাম্মাদ (সাঃ) এতটাই ভয় পেয়েছিলেন যে , তিনি কাঁপতে কাঁপতে কোনমতে দৌড়ে নিজগৃহে এসে বিবি খাদিজা (সাঃআঃ) কে বললেন , আমি ভীষন ভয় পেয়েছি , আমাকে এক্ষুনি চাদর দিয়ে আবৃত কর ——– ” । ইত্যাদি ইত্যাদি ।

অর্থাৎ হাদিসটিতে একটা বিষয় পরিস্কার যে , বার্তাবাহক ফেরেশতা – হযরত জীবরাইল (আঃ) কে দেখে মহানবী (সাঃ) এতটাই ভয় পেয়েছিলেন যে , একদৌঁড়ে বাড়ী এসেই চাদরের তলে ঢুকলেন ।

বিশ্লেষন –
যে সম্মানীয় ফেরেশতা প্রথম ওহী নিয়ে হেরা গুহাতে এসেছিলেন তিনি ছিলেন –
হযরত আদম (আঃ) যে একজন সাগরেদ ।
নবীকন্যার গৃহ ঝাড়ু দেওয়া একজন ফেরেশতা ।

পক্ষান্তরে হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) হলেন সকল ফেরেশতা ও নবী রাসুলদের মহাসর্দার ।
তাহলে মহাসর্দার ভয় পেলেন হযরত আদম (আঃ) এর একজন সাগরেদ এবং তাঁর কন্যার গৃহ ঝাড়ু দেওয়া একজন ফেরেশতাকে দেখে —- !!

আচ্ছা পাঠক বলতে পারবেন কি –
হেরা গুহা থেকে মহানবী (সাঃ) যে ভয় পেয়ে দৌঁড় দিলেন তখন মক্কার কোন সাংবাদিক সেই দৃশ্যট দেখেছিলেন ?

বলতে পারছেন না তো , তাহলে শুনে নিন –
এই হাদিসের সংবাদদাতা প্রতিষ্ঠান হল – আবু জেহেল নিউজ এজেন্সী , মক্কা ।

পাঠক ,
মাশাআল্লাহ ,
আমিও সেই রকম বলদ মার্কা উম্মত যে , আবু জেহেল নিউজ এজেন্সীর পরিবেশিত ও বনু উমাইয়াদের বাজারজাতকৃত এই জাতীয় গাঁজাখুরী মার্কা হাদিস কি সুন্দর ভাবে গলাধঃকরন করিয়া যাইতছি ।

বোধহয় আমার মত গর্দভ উম্মতের জন্য আল্লাহ এই আয়াতটি অবর্তীন করেছেন —

” — তোমাদের কি হয়েছে , তোমরা কেমন বিচার করছ ? তবে কি তোমরা চিন্তা ভাবনা কর না — ” ?
সুরা – সাফফাত / ১৫৪ , ১৫৫ ।

SKL