খলনায়কগনের সংক্ষিপ্ত সফল খতিয়ান –

খলনায়কগনের সংক্ষিপ্ত সফল খতিয়ান –

বিদায় হজ্ব থেকে ফেরার পথে গাদীরে খুম নামক স্থানে হজ্ব ফেরত লক্ষাধিক হাজী সাহাবাগনের সম্মুখে আল্লাহ এবং তাঁর রাসুল (সাঃ) এর পরিস্কার ঘোষনা মোতাবেক রাসুল (সাঃ) এর স্থলাভিষিক্ত ইমাম ও খলীফা নিযুক্ত হলেন ইমাম আলী (আঃ) ।

প্রকাশ্য এই ঘোষনায় মাথায় আকাশ ভেংগে পড়ল খলনায়কগনের ।
যে আশা নিয়ে রাসুল (সাঃ) এর দলে লোক দেখান ইসলাম ধর্ম কবুল করে যোগ দিয়েছিল এই ভেবে যে , রাসুল (সাঃ) চোখ বুজলেই তাঁর শূন্য আসনে টুপ করে বসে পড়বে !

কিন্ত এ কি হল !
শূন্য আসনে বসবে ইমাম আলী (আঃ) !
এত দিনের স্বপ্ন আশা সবই যে জলে গেল । কিছুতেই তা হতে দেয়া যায় না ।

শুরু হল ভয়ংকর ষড়যন্ত্র এবং নিঁখুত পরিকল্পনা ।
ষড়যন্ত্রকারীদের দলে দুষ্ট লোকের অভাব হল না ।

প্রথম পদক্ষেপ শতভাগ সফল –
রাসুলে (সাঃ) এর পরিস্কার নির্দেশ সত্বেও ওসামার নেতৃত্বে যুদ্বে না যেয়ে মদীনার উপকণ্ঠে পালিয়ে থাকল – কখন রাসুল (সাঃ) এর ইন্তেকালের সংবাদ পাওয়া যায় ।

দ্বিতীয় পদক্ষেপ শতভাগ সফল –
রাসুল (সাঃ) এর পরিস্কার আদেশ সত্বেও খাতা কলম না দিয়ে অসিয়ত নামা কিছুতেই লিখতে দেওয়া হল না ।

তৃতীয় পদক্ষেপ শতভাগ সফল –
বিষ মিশ্রিত ঔষধ এক প্রকার জোর করেই রাসুল (সাঃ) কে খাইয়ে দেয়া হল ।

চতুর্থ পদক্ষেপ শতভাগ সফল –
রাসুল (সাঃ) এর ইন্তেকাল সংবাদ জানার পরেও এবং মদীনাতে অবস্থান করা সত্বেও রাসুল (সাঃ) এর জানাজা ও দাফনে অংশগ্রহণ না করে বনু সকীফাতে বসে ক্ষমতার ভাগ বাটোয়ারা চুড়ান্ত করন ।

ষড়যন্ত্রের চুড়ান্ত ফলাফল –
আল্লাহ ও তাঁর রাসুল (সাঃ) যাঁদের নির্বাচিত করেছিলেন তাঁদেরকে সরিয়ে দিয়ে নিজেরাই ক্ষমতার মসনদে বসে গেল ।
খলনায়কগনের টোটাল পরিকল্পনা ১০০ ভাগ সফল ।

চুড়ান্ত পরিনতি –
রাসুল (সাঃ) রেখে যাওয়া প্রকৃত ইসলাম সম্পূর্ন ভাবে অবহেলিত ও নির্বাসিত ।
প্রায় ১৫০০ বছর যাবত খলনায়কগনের প্রচারিত ও বাজারজাত কৃত ফরমালিন যুক্ত বিকৃত কুৎসিত জঘন্য ইসলামকে দুনিয়ার সকলেই প্রকৃত ইসলাম বলে মনে করে ।

দরবারী মোল্লা , ভাড়াটে হাদিস লেখক , ভাড়াটে মুফতিগণ হয়ে গেল ইসলামের সোল এজেন্ট ।
অজ্ঞ , জাহেল , মুনাফিক ভন্ড ব্যক্তিবর্গ হয়ে গেল কোরআনের সঠিক ব্যাখ্যাকারী !
জান্নাতের টিকিট বিক্রী শুরু হল ।
এই ভন্ড ও বিকৃত ইসলাম থেকে জন্ম নেয় অসংখ্য নাস্তিক , অসংখ্য শিক্ষিত ব্লগার , অসংখ্য তালেবান , আই এস আই এস ও উগ্র জংগী সংগঠন ।

পক্ষান্তরে –
প্রকৃত মহানায়কগন শুরু থেকেই অবহেলিত , উপেক্ষিত ও নির্বাসিত ।
সর্ব নিকৃষ্ট খলনায়কগনের ভয়ংকর অট্টহাসিতে পুরো মুসলিম উম্মাাহ আজ সর্ব নিকৃষ্ট ও জংলী ও অসভ্য জাতি হিসাবে পরিচিত ।

বেঈমান , মুনাফিক , ছিনতাইকারী , লুটেরা , খুনী , লুচ্চা , বদমাশ , ধর্ষনকারী ব্যক্তিগন যে জাতির নেতা হয় সে জাতির এমন পরিনতি হবেই হবে ।
শুনতে খারাপ লাগলেও এটাই বাস্তবতা !

SKL