আমিই সিদ্দীক এ আকবর — ইমাম আলী (আঃ) ।

” আমিই সিদ্দীক এ আকবর ” ————–

আমিরুল মুমিনীন হযরত আলী (আঃ) এর অনেক ভাষন ও বানীতে উপরোক্ত কথাটি বিদ্যমান । যেমন তিনি বলেছেন ,
” আমি মহান আল্লাহর বান্দা এবং নবীজীর (সাঃ) ভাই ।
আমিই সিদ্দীকে আকবর ( সবচেয়ে বড় সত্যবাদী ) ” ।

একমাত্র অপবাদ আরোপকারী মিথ্যাবাদী ব্যতিত আর কোন ব্যক্তি আমার পরে এই ধরনের দাবি করবে না । আমি মহানবী (সাঃ) এর সাথে সকল মানুষের নামাজ পড়ারও ৭ বছর আগে থেকে নামাজ পড়েছি । যারা ওনার সাথে নামাজ পড়েছেন তাদের মধ্যে আমিই প্রথম ” ।

এছাড়াও নবীজী (সাঃ) বেশ কিছু মুতাওয়াতির হাদিসে বলেছেন ,
” তোমাাদের মধ্য থেকে আমার কাছে হাউযে কাউসারে আগমনকারী ব্যক্তিটি হচ্ছে সর্বপ্রথম ইসলাম গ্রহনকারী আলী ইবনে আবু তালিব (আঃ) “।
সূত্র – আল গাদীর , ৩য় খন্ড, পৃষ্ঠা – ৩২০ ।

” আলী (আঃ) ছিলেন সবপ্রথম ইসলাম গ্রহনকারী ” ৬০ জনের বেশী সাহাবী ও তাবেয়ী এই বক্তব্যের সাথে একমত ।

তাবারী ওনার কিতাবের ২য় খন্ডের ২১৫ পৃষ্ঠায় বলেছেন , নিজ পিতাকে ইবনে সাঈদ জিজ্ঞাসা করেছিলেন , ” হযরত আবু বকরই কি সবপ্রথম ঈমান এনেছিলেন “?
সাঈদ বলেছিলেন , ” না তার আগে ৫০ জনের অধিক ব্যক্তি নবীজীর (সাঃ) প্রতি ঈমান এনেছিলেন । ”

যখন কোন ব্যক্তি পূর্ন নিরপেক্ষতা বজায় রেখে এসব হাদিস অধ্যয়ন করবে তখন তার কাছে ইসলাম ধর্মে হযরত আলীর (আঃ) সকল দিক থেকে অগ্রবর্তী থাকার বিষয়টি সন্দেহাতীতভাবে প্রমানিত হতে বাধ্য ।
এছাড়াও তিনিই হলেন আল্লাহ কতৃক মনোনীত ও নির্বাচিত প্র্রথম উলিল আমর বা ইমাম এবং পুতঃপবিত্র আহলে বায়েতের (আঃ) অন্তর্ভুক্ত ।
মোবাহেলার ময়দানে নবীজীর (সাঃ) সহচর ছিলেন ।

সুপ্রিয় পাঠক ,
নিঃসন্দেহে আপনি যথেষ্ট বিবেকবান , মূল্যবান বিবেককে কাজে লাগিয়ে সঠিক ইতিহাস জানুন ।

 

চিরভাস্বর মহানবী (সাঃ) ,
মূল – আয়াতুল্লাহ জাফর সুবহানী ,
বাংলা অনুবাদ – মোহাম্মাদ মুনির হোসেন খান ,
পৃষ্ঠা – ২১৯, ২২০ অবলম্বনে ।

SKL