দোয়া ৩৬ মেঘ ও বিজলি দেখায় এবং বজ্রপাতের শব্দ শুনায়

2 months ago najafi 0

دُعَاؤُهُ إذا نَظَرَ الى السَّحابِ و البَرقِ و عِنْدَ سَمَاعِ
الرَّعْدِ
When
he saw Clouds and Lightening and heard the Thunder
1
O God, these are two of Thy signs
أَللَّهُمَّ إنَّ هذَيْن آيَتَانِ مِنْ آياتِكَ،
1
2
and these are two of Thy helpers.
وَهذَين عَوْنَانِ مِنْ أَعْوَانِكَ
2
3
They rush to obey Thee with beneficial mercy or
injurious vengeance,
يَبْتَدِرَانِ طَاعَتَكَ بِرَحْمَة نَافِعَة أَوْ
نَقِمَة ضَارَّة،
3
4
so rain not down upon us from them the evil rain
فَلاَ تُمْطِرْنَا بِهِمَا مَطَرَ السَّوْءِ،
4
5
and clothe us not through them in the garment of
affliction!
وَلا تُلْبِسْنَـا بِهِمَا لِبَاسَ الْبَلاَءِ.
5
6
O God, bless Muhammad and his Household,
صَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِهِ
6
7
send down upon us the benefit of these clouds and
their blessing,
وَأَنْزِلْ عَلَيْنَا نَفْعَ هَذِهِ السَّحَائِبِ
وَبَرَكَتَهَا،
7
8
turn away from us their harm and their injury,
وَاصْرِفْ عَنَّا أَذَاهَا وَمَضَرَّتَهَا،
8
9
strike us not through them with blight,
وَلا تُصِبْنَا فِيْهَا بآفَة،
9
10
and loose not upon our livelihoods any bane!
وَلا تُرْسِلْ عَلَى مَعَايِشِنَا عَاهَةً.
10
11
O God, if Thou hast incited them as vengeance and
loosed them in anger,
أللَّهُمَّ وَإنْ كُنْتَ بَعَثْتَهَا نَقِمَةً
وَأَرْسَلْتَهَا سَخْطَةً
11
12
we seek sanctuary with Thee from Thy wrath
فَإنَّا نَسْتَجِيْرُكَ مِنْ غَضَبِكَ،
12
13
and implore Thee in asking Thy pardon!
وَنَبْتَهِلُ إلَيْكَ فِي سُؤَالِ عَفْوِكَ،
13
14
So incline with wrath toward the idolaters
فَمِلْ بِالْغَضَبِ إلَى الْمُشْـركِينَ،
14
15
and set the millstone of Thy vengeance turning upon
the heretics
وَأَدِرْ رَحَى نَقِمَتِـكَ عَلَى الْمُلْحِـدينَ.
15
16
O God, take away the barrenness of our lands with
Thy watering,
أللَّهُمَّ أَذْهِبْ مَحْلَ بِلاَدِنَا بِسُقْيَاكَ،
16
17
dislodge the malice from our breasts with Thy
providing,
وَأَخْرِجْ وَحَرَ صُدُورِنَا بِرِزْقِكَ،
17
18
distract us not from Thee through other than Thee,
وَلاَ تَشْغَلْنَا عَنْكَ بِغَيْرِكَ،
18
19
and cut none of us off from the stuff of Thy
goodness,
وَلاَ تَقْطَعْ عَنْ كَافَّتِنَا مَادَّةَ بِرِّكَ،
19
20
for the rich is he to whom Thou hast given riches,
فَإنَّ الغَنِيَّ مَنْ أَغْنَيْتَ،
20
21
and the safe he whom Thou hast protected!
وَإنَّ السَّالِمَ مَنْ وَقَيْتَ،
21
22
No one has any defense against Thee,
مَا عِنْدَ أَحَد دُونَكَ دِفَـاعٌ،
22
23
nor any means to bar Thy penalty.
وَلاَ بِأَحَد عَنْ سَطْوَتِكَ امْتِنَاعٌ،
23
24
Thou decidest what Thou wilt for whom Thou wilt
تَحْكُمُ بِمَا شِئْتَ عَلَى مَنْ شِئْتَ،
24
25
and Thou decreest what Thou desirest for any whom
Thou desirest!
وَتَقْضِي بِمَـا أَرَدْتَ فِيمَنْ أَرَدْتَ.
25
26
So to Thee belongs praise for protecting us from
affliction
فَلَكَ الْحَمْدُ عَلَى مَا وَقَيْتَنَا مِنَ
الْبَلاءِ،
26
27
and to Thee belongs thanks for conferring upon us
blessings,
وَلَكَ الشُّكْرُ عَلَى مَا خَوَّلْتَنَا مِنَ
النّعْمَاءِ
27
28
a praise which will leave behind the praise of the
praisers,
حَمْداً يُخَلِّفُ حَمْدَ الْحَامِدِينَ وَرَاءَهُ،
28
29
a praise which will fill the earth and the heaven!
حَمْداً يَمْلاُ أَرْضَهُ وَسَمَاءَهُ
29
30
Surely Thou art the All-kind through immense
kindnesses,
إنَّـكَ الْمَنَّانُ بِجَسِيمِ الْمِنَنِ،
30
31
the Giver of abounding favours,
الْوَهَّابُ لِعَظِيمِ النِّعَمِ،
31
32
the Accepter of small praise,
القَابِلُ يَسِيْرَ الْحَمْدِ،
32
33
the Grateful for little gratitude,
الشَّاكِرُ قَلِيْلَ الشُّكْرِ،
33
34
the Beneficent, the Benevolent, Possessor of
graciousness!
الْمُحْسِنُ الْمُجْمِلُ ذُو الطَّوْلِ
34
35
There is no god but Thou; unto Thee is the
homecoming
لا إلهَ إلاّ أَنْتَ إلَيْكَ الْمَصِيرُ.
35

পরম করুণাময় এবং অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি

মেঘ ও বিজলি দেখায় এবং বজ্রপাতের শব্দ শুনায় তাঁর একটি মুনাজাত।
হে প্রভু, এ দুটি আপনার নিদর্শন।
উভয়টিই আপনার খাদেম, লাভজনক দয়া অথবা ব্যাপক শাস্তির দ্বারা এরা আপনার খেদমত করে। সেজন্য, তাদের থেকে আমাদের উপর অনিষ্টকর বৃষ্টি বর্ষণ করবেন না। এদের দ্বারা আমাদের উপর দুর্যোগের আচ্ছাদন ফেলেন না।
হে প্রভু, হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন।
আমাদের উপর এই মেঘমালাার উপকার এবং অনুগ্রহ নামিয়ে দিন। আমাদের কাছ থেকে এর অভিশাপ
এবং খারাবী দূরে সরিয়ে দিন। আমাদেরকে এর দ্বারা দুর্দশাগ্রস্ত করবেন না। আমাদের আহারাদিতে কোনো রোগ পাঠিয়ে দিয়েন না।
হে প্রভু, আপনি যদি এই মেঘকে শাস্তির জন্য (আমাদেরকে) জাগিয়ে থাকেন এবং রাগের কারণে পাঠিয়ে থাকেন, তখন আমরা আপনার আশ্রয় চাচ্ছি, আপনার গোসসা থেকে রক্ষা পাবার জন্য আপনার কাছে কেঁদে ভিক্ষা চাচ্ছি। সেজন্য, আপনি আপনার গোসসাকে বহু দেব-দেবীর উপাসনাকারীদের দিকে ঘুরিয়ে দিন। আপনি অবিশ্বাসীদের প্রতি প্রতিশোধ গ্রহণ করুন।
হে প্রভু, আপনার বারি দ্বারা আমাদের শহরগুলোর শুস্কতা দূর করুন। আমাদেরকে পালনের বন্দোবস্ত করে আমাদের উদ্বেগ দূর করুন। আমাদেরকে আপনা হতে দূরে সরিয়ে অন্য কারোও সান্নিধ্যে দিয়েন না। াাপনার বদান্যতার দোহাই দিয়ে বলছি আমদেরকে বিচ্ছিন্ন করবেন না। বিশেষত সম্পদশালী ত সে যাকে আপনি সম্পদশালী করেছেন। সে যাকে আপনি নিরাপদ রেখেছেন। আপনি ব্যতীত আর কোনো রক্ষক নেই এবং আপনার গোসসা থেকে কেউই ছাড়া পেতে পারে না। আপনি যাকে পছন্দ করেন আপনি যা ইচ্ছে করেন তাকে তাই হুকুম করে থাকেন এবং আপনি যাদেরকে মনস্থ করেছেন তাদের জন্য প্রতিদানের অঙ্গীকার করেছেন। সেজন্য, এ সকল দুর্দশা থেকে আমাদেরকে রক্ষা করার জন্য সকল প্রশংসা আপনার জন্য। আপনি যা দান করেছেন তাতে আপনার চাহিদা হল কৃতজ্ঞতাÑএ এমন এক প্রশংসা যা প্রশংসাকারীর প্রশংসাকে ছাপিয়ে যাবে, এমন এক প্রশংসা যা আসমান আর জমিনকে পূর্ণ করে দেবে।
বিশেষত, আপনার সত্তা হল চমৎকার পুরস্কার দেবার মালিক, মহা নেয়ামত দানকারী, ছোট প্রশংসাও গ্রহণকারী, সামান্য কৃতজ্ঞতার জন্যও প্রতিদান দানকারী, বদান্য রক্ষা কর্তা, দয়ার মালিক, আপনি ছাড়া আর কোনো মা’বুদ নেই এবং আপনার কাছেই আমাদেরকে প্রর্ত্য্তান করতে হবে।

Ref: হযরত ইমাম জয়নাল আবেদীন আল ছহীফাহ্ আল সাজ্জাদীয়াহ্
অনুবাদ মুহাম্মদ মাঈনউদ্দিন
অন্যধারা, ৩৮/২-ক বাংলাবাজার (৫ম তলা) ঢাকা-১১০০
প্রকাশকাল : সেপ্টেম্বর ২০০৮
বাংলা অনুবাদ: প্রকাশক ২০০৮