দোয়া ৩২ রাত্র জেগে এবাদত করার পর নিজ গুনাহ্ স্বীকার করে

2 months ago najafi 0

دُعَاؤُهُ فِي صَلَاةِ اللَّيْلِ
In
Confessing Sins after Finishing the Night Prayer
1
O God, O Possessor of kingdom perpetual in
everlastingness,
أَللَّهُمَّ يَا ذَا الْمُلْكِ الْمُتأبِّدِ
بِالْخُلُودِ وَالْسُلْطَانِ
1
2
authority invincible without armies or helpers,
الْمُمْتَنِعِ بِغَيْرِ جُنُود وَلاَ أَعْوَان،
2
3
might abiding through aeons past,
وَالْعِزِّ الْبَاقِي عَلَى مَرِّ الدُّهُورِ،
3
4
years gone by, times and days elapsed!
وَخَوَالِي الأَعْوَامِ، وَمَوَاضِي الأَزْمَانِ
وَالأيَّامِ،
4
5
Thy authority is mighty with a might that knows no
bound by being first nor utmost end by being last!
عَزَّ سُلْطَانُكَ عِزّاً لا حَدَّ لَهُ بِأَوَّلِيَّةٍ
وَلاَ مُنْتَهَى لَهُ بِآخِرِيَّةٍ،
5
6
Thy kingdom towers high with a towering before which
all things fall down without reaching its term;
وَاسْتَعْلَى مُلْكُكَ عُلُوّاً سَقَطَتِ الأشْيَاءُ
دُونَ بُلُوغِ أَمَدِهِ
6
7
the least of it which Thou hast kept to Thyself is
not reached by the furthest description of the
describers!
وَلاَ يَبْلُغُ أَدْنَى مَا اسْتَأثَرْتَ بِـهِ مِنْ
ذَلِكَ أَقْصَى نَعْتِ النَّـاعِتِينَ.
7
8
Attributes go astray in Thee, descriptions fall
apart below Thee,
ضَلَّتْ فِيْـكَ الصِّفَاتُ وَتَفَسْخَتْ دُونَكَ
النُّعُوتُ
8
9
the subtlest of imaginations are bewildered by Thy
magnificence!
وَحَارَتْ فِي كِبْرِيِائِكَ لَطَائِفُ الأوْهَامِ،
9
10
So art Thou: God, the First in Thy firstness,
كَذلِكَ أَنْتَ اللهُ الأَوَّلُ فِي أَوَّلِيَّتِكَ،
10
11
and so art Thou everlastingly. Thou dost not pass
away.
وَعَلَى ذَلِكَ أَنْتَ دَائِمٌ لا تَزُولُ،
11
12
But I am the slave, feeble in works, immense in
hopes.
وَأَنَا الْعَبْدُ الضَّعِيْفُ عَمَلاً الجَسِيْمُ
أَمَلاً،
12
13
The tying links are outside my hand, except what is
tied by Thy mercy;
خَرَجَتْ مِنْ يَدِي أَسْبَابُ الْوُصُلاَت إلاّ مَا
وَصَلَهُ رَحْمَتُكَ ،
13
14
the bonds of hopes have been cut away from me,
وَتَقَطَّعَتْ عَنِّي عِصَمُ الآمَالِ
14
15
except the pardon to which I hold fast.
إلاّ مَا أَنَا مُعْتَصِمٌ بِهِ مِنْ عَفْوِكَ،
15
16
Little on my part is the obedience toward Thee upon
which I count,
قَلَّ عِنْدِي مَا أَعْتَدُّ بِهِ مِنْ طَاعَتِكَ
16
17
and great against me the disobedience toward Thee to
which I have reverted.
وَكَثُرَ عَلَيَّ مَا أَبُوءُ بِهِ مِنْ مَعْصِيَتِكَ،
17
18
But pardoning Thy slave will not constrain Thee,
even if he be bad, so pardon me!
وَلَنْ يَضِيْقَ عَلَيْكَ عَفْوٌ عَنْ عَبْدِكَ وَإنْ
أَسَاءَ فَاعْفُ عَنِّي.
18
19
O God, Thy knowledge watches over hidden works
أللَّهًمَّ وَقَدْ أَشْرَفَ عَلَى خَفَايَا
الأَعْمَالِ عِلْمُكَ
19
20
every covered thing is exposed before Thy awareness,
وَانْكَشَفَ كُلُّ مَسْتُور دُونَ خُبْرِكَ
20
21
the intricacies of things are not concealed from
Thee,
وَلاَ تَنْطَوِي عَنْكَ دَقَائِقُ الأُمُورِ
21
22
and unseen mysteries slip not away from Thee.
وَلاَ تَعْزُبُ عَنْكَ غَيِّبَاتُ السَّرَائِرِ،
22
23
But over me Thy enemy has gained mastery: He asked a
delay from Thee to lead me astray, and Thou gavest
him the delay!
وَقَدِ اسْتَحْوَذَ عَلَيَّ عَدُوُّكَ الَّذِي
اسْتَنْظَرَكَ لِغِوَايتِي فَأَنْظَرْتَهُ،
23
24
He asked a respite from Thee until the Day of Doom
to misguide me, and Thou gavest him the respite!
وَاسْتَمْهَلَكَ إلَى يَوْمِ الدِّيْنِ لاِضْلاَلِي
فَأَمْهَلْتَهُ،
24
25
So he threw me down, though I had fled to Thee
فَأوْقَعَنِيْ وَقَدْ هَرَبْتُ إلَيْكَ
25
26
from small, ruinous sins
مِنْ صَغَائِرِ ذُنُوبٍ مُوبِقَةٍ
26
27
and great, deadly works,
وَكَبَائِرِ أَعْمَالٍ مُرْدِيَـةٍ
27
28
until, when I had yielded to disobeying Thee
حَتَّى إذَا قَارَفْتُ مَعْصِيَتَـكَ
28
29
and merited Thy anger through my bad efforts,
وَاسْتَوْجَبْتُ بِسُوءِ سَعْيِي سَخْطَتَكَ
29
30
he turned the bridle of his treachery away from me,
فَتَلَ عَنِّي عِذَارَ غَدْرِهِ،
30
31
met me with the word of his ingratitude,
وَتَلَقَّانِي بكَلِمَةِ كُفْرهِ،
31
32
undertook to be quit of me, turned his back to flee
from me,
وَتَوَلَّى الْبَراءَةَ مِنِّي وَأَدْبَرَ مُوَلِّيَاً
عَنِّي،
32
33
threw me to the desert of Thy wrath alone,
فَأَصْحَرنِي لِغَضَبِكَ فَرِيداً،
33
34
and sent me as an outcast into the courtyard of Thy
vengeance.
وَأَخْرَجَني إلى فِنَاءِ نَقِمَتِكَ طَرِيداً
34
35
There is no intercessor to intercede for me with
Thee,
لاَ شَفِيعٌ يَشْفَعُ لِيْ إلَيْـكَ،
35
36
no protector to make me feel secure against Thee,
وَلاَ خَفِيـرٌ يُؤْمِنُنِي عَلَيْـكَ
36
37
no fortress to veil me from Thee,
وَلاَ حِصْنٌ يَحْجُبُنِي عَنْكَ
37
38
no shelter in which to seek asylum apart from Thee!
وَلاَ مَلاَذٌ أَلْجَأُ إلَيْهِ مِنْكَ.
38
39
This is the station of him who takes refuge with
Thee, the place of the confessor to Thee:
فَهَذَا مَقَامُ الْعَائِذِ بِكَ، وَمَحَلُّ
الْمُعْتَرِفِ لَكَ،
39
40
Let not Thy bounty be too narrow for me, let not Thy
pardon fall short of me!
فَلاَ يَضِيقَنَّ عَنِّي فَضْلُكَ، وَلا يَقْصُـرَنَّ
دونِي عَفْوُكَ،
40
41
Let me not be the most disappointed of Thy repentant
servants,
وَلا أكُنْ أَخْيَبَ عِبَادِكَ التَّائِبِينَ،
41
42
nor the most despairing of those who come to Thee
with expectations!
وَلاَ أَقْنَطَ وفُودِكَ الآمِلِينَ
42
43
Forgive me, surely Thou art the best of the
forgivers!
وَاغْفِرْ لِي إنَّكَ خَيْرُ الْغَافِرِينَ.
43
44
O God, Thou commanded me, and I refrained, Thou
prohibited me, and I committed.
أللَّهُمَّ إنَّكَ أَمَرْتَنِي فَتَرَكْتُ،
وَنَهَيْتَنِي فَرَكِبْتُ،
44
45
evil thoughts tempted me to offend, and I was
negligent.
وَسَوَّلَ لِيَ الْخَطَأَ خَاطِرُ السُّوءِ
فَفَرَّطْتُ،
45
46
I cannot call upon daytime to witness my fasting,
وَلا أَسْتَشْهِدُ عَلَى صِيَامِي نَهَـاراً،
46
47
nor can I seek sanctuary in night because of my
vigil;
وَلاَ أَسْتَجِيرُ بِتَهَجُّدِي لَيْلاً،
47
48
no Sunna praises me for keeping it alive,
وَلاَ تُثْنِي عَلَيَّ بِإحْيَائِهَا سُنَّةٌ
48
49
only Thy obligations, he who neglects which has
perished.
حَـاشَا فُرُوضِـكَ الَّتِي مَنْ ضَيَّعَها هَلَكَ،
49
50
I cannot seek access to Thee through the excellence
of a supererogatory work,
وَلَسْتُ أَتَوَسَّلُ إلَيْكَ بِفَضْلِ نَافِلَة
50
51
given the many duties of Thy obligations of which I
have been heedless
مَعَ كَثِيرِ مَا أَغْفَلْتُ مِنْ وَظَائِفِ
فُرُوضِكَ،
51
52
and the stations of Thy bounds which I have
transgressed,
وَتَعَدَّيْتُ عَنْ مَقَامَاتِ حُدُودِكَ
52
53
thereby violating sacred things and committing great
sins,
إلَى حُرُمَات انْتَهَكْتُهَا، وَكَبَائِرِ ذُنُوب
اجْتَرَحْتُهَا
53
54
though Thou hast given me safety from their
disgraces as a covering.
كَانَتْ عَافِيَتُكَ لِي مِنْ فَضَائِحِهَا سِتْراً.
54
55
This is the station of him who is ashamed of himself
before Thee,
وَهَذَا مَقَامُ مَنِ اسْتَحْيَى لِنَفْسِهِ مِنْكَ،
55
56
angry with himself, and satisfied with Thee.
وَسَخِطَ عَلَيْهَا، وَرَضِيَ عَنْكَ
56
57
He meets Thee with a humble soul, a neck bent down,
a back heavy with offenses,
فَتَلَقَّاكَ بِنَفْس خَاشِعَة، وَرَقَبَة خَاضِعَة،
وَظَهْر مُثْقَل مِنَ الْخَطَايَا
57
58
hesitating between longing for Thee and fear of
Thee.
وَاقِفاً بَيْنَ الرَّغْبَةِ إلَيْكَ وَالرَّهْبَةِ
مِنْكَ،
58
59
Thou art the most worthy of those in whom he might
hope,
وَأَنْتَ أَوْلَى مَنْ رَجَـاهُ،
59
60
the most deserving for him to dread and fear.
وَأَحَقُّ مَنْ خَشِيَـهُ وَاتّقـاهُ،
60
61
So give me, my Lord, what I hope for, make me secure
against what frightens me,
فَاعْطِنِي يَا رَبِّ مَا رَجَوْتُ، وَآمِنِّي مَا
حَذِرْتُ،
61
62
and act kindly toward me with the kindly act of
mercy! Surely Thou art the most generous of those
from whom are asked!
وَعُدْ عَلَيَّ بِعَائِدَةِ رَحْمَتِكَ إنَّكَ أكْرَمُ
الْمَسْؤُولِينَ.
62
63
O God, since Thou hast covered me with Thy pardon
and shielded me with Thy bounty
أللَّهُمَّ وَإذْ سَتَـرْتَنِي بِعَفْوِكَ
وَتَغَمَّـدْتَنِي بِفَضْلِكَ
63
64
in the abode of annihilation and the presence of
equals
فِي دَارِ الْفَنَاءِ بِحَضرَةِ الأكْفَاءِ
64
65
grant me sanctuary from the disgraces of the Abode
of Subsistence
فَأَجِرْنِي مِنْ فَضِيحَاتِ دَارِ الْبَقَاءِ
65
66
at the standing places of the Witnesses (the angels
brought nigh,
عِنْدَ مَوَاقِفِ الأشْهَادِ مِنَ المَلائِكَةِ
الْمُقَرَّبِينَ
66
67
the messengers honoured, the martyrs, the righteous)
وَالرُّسُلِ الْمُكَرَّمِينَ وَالشُّهَدَاءِ
وَالصَّالِحِينَ،
67
68
before the neighbour from whom I have hidden my evil
deeds
مِنْ جَار كُنْتُ أُكَاتِمُهُ سَيِّئاتِي
68
69
and the womb relative before whom I feel ashamed in
my secret thoughts!
وَمِنْ ذِي رَحِم كُنْتُ أَحْتَشِمُ مِنْهُ فِي
سَرِيرَاتِي،
69
70
I trust them not, my Lord, to cover me over,
لَمْ أَثِقْ بِهِمْ رَبِّ فِي السِّتْرِ عَلَيَّ،
70
71
but I trust Thee, my Lord, to forgive me!
وَوَثِقْتُ بِكَ رَبِّ فِي الْمَغفِرَةِ لِيْ،
71
72
Thou art the most worthy of those in whom confidence
is had, the most giving of those who are besought,
وَأَنْتَ أوْلَى مَنْ وُثِقَ بِهِ وَأَعْطَى مَنْ
رُغِبَ إلَيْهِ
72
73
and the most clement of those from whom mercy is
asked. So have mercy upon me!
وَأَرْأَفُ مَنِ اسْتُرْحِمَ فَارْحَمْنِي.
73
74
O God, Thou caused me to descend as mean water from
loins
أللهُمَّ وَأنتَ حَدَرْتَنِي مَاءً مَهِيناً مِنْ
صُلب،
74
75
of narrow bones and tight passages
مُتَضَائِقِ الْعِظَامِ حَرِجِ الْمَسَالِكِ
75
76
into a constricted womb which Thou hadst covered
with veils;
إلَى رَحِم ضَيِّقَة سَتَرْتَهَا بِالْحُجُبِ
76
77
Thou turned me about from state to state until Thou
tookest me to the completion of the form
تُصَرِّفُنِي حَالاًَ عَنْ حَال حَتَّى انْتَهَيْتَ
بِيْ إلَى تَمَامِ الصُّورَةِ
77
78
and fixed within me the bodily parts,
وَأَثْبَتَّ فِيَّ الْجَوَارحَ
78
79
as Thou hast described in Thy Book:
كَمَا نَعَتَّ فِي كِتَابِكَ
79
80
a drop, then a clot, then a tissue, then bones,
نُطْفَةً ثُمَّ عَلَقَةً ثُمَّ مُضْغَةً ثُمَّ عِظَاماً
80
81
then Thou garmented the bones with flesh, then Thou
produced me as another creature as Thou willed
(ref.23:12-14).
ثُمَّ كَسَوْتَ الْعِظَامَ لَحْماً ثُمَّ أَنْشَأتَنِي
خَلْقَاً آخَرَ كَمَا شِئْتَ،
81
82
Then, when I needed Thy provision,
حَتَّى إذَا احْتَجْتُ إلَى رِزْقِكَ،
82
83
and could not do without the aid of Thy bounty,
وَلَمْ أَسْتَغْنِ عَنْ غِيَـاثِ فَضْلِكَ
83
84
Thou appointed for me a nourishment from the bounty
of the food and drink
جَعَلْتَ لِي قُـوتـاً مِنْ فَضْلِ طَعَام وَشَرَاب
84
85
which Thou bestowed upon Thy handmaid in whose belly
Thou gavest me to rest and in the lodging of whose
womb Thou deposited me.
أَجْرَيْتَهُ لاِمَتِكَ الَّتِيْ أَسْكَنْتَنِي
جَوْفَهَا وَأَوْدَعْتَنِي قَرَارَ رَحِمِهَا،
85
86
Hadst Thou entrusted me in those states, my Lord, to
my own force
وَلَوْ تَكِلُنِي يَا رَبِّ فِي تِلْكَ الْحَـالاتِ
إلَى حَوْلِي،
86
87
or driven me to have recourse to my own strength,
أَوْ تَضْطَرُّنِي إلَى قُوّتي
87
88
force would have been removed from me and strength
taken far away.
لَكَانَ الْحَوْلُ عَنِّي مُعْتَزِلاً، وَلَكَانَتِ
الْقُوَّةُ مِنِّي بَعِيدَةً،
88
89
So Thou hast fed me through Thy bounty with the food
of the Good, the Gentle;
فَغَذَوْتَنِي بِفَضْلِكَ غِذَاءَ البَرِّ اللَّطِيفِ
،
89
90
Thou hast done that for me in graciousness toward me
up to this my present point.
تَفْعَلُ ذَلِكَ بِي تَطَوُّلاً عَلَيَّ إلَى غَايَتِي
هَذِهِ،
90
91
I do not lack Thy goodness nor does Thy benefaction
keep me waiting.
لاَ أَعْدَمُ بِرَّكَ وَلاَ يُبْطِئُ بِي حُسْنُ
صَنِيعِكَ،
91
92
Yet with all that, my trust has not become firm
enough
وَلاَ تَتَأكَّدُ مَعَ ذَلِكَ ثِقَتِي،
92
93
that I might free myself for that which is more
favoured by Thee.
فَأَتَفَرَّغَ لِمَا هُوَ أَحْظَى لِيْ عِنْدَكَ،
93
94
Satan has taken possession of my reins through my
distrust and frail certainty.
قَدْ مَلَكَ الشَّيْطَانُ عِنَانِي فِي سُوءِ الظَّنِّ
وَضَعْفِ الْيَقِينِ،
94
95
I complain of his evil neighbourhood with me and my
soul’s obedience toward him!
فَأَنَا أَشْكُو سُوْءَ مُجَاوَرَتِهِ لِي وَطَـاعَةَ
نَفْسِي لَـهُ،
95
96
I ask Thee to preserve me against his domination,
and I plead with Thee to turn his trickery away from
me!
وَأَسْتَعْصِمُـكَ مِنْ مَلَكَتِهِ، وَأَتَضَـرَّعُ
إلَيْكَ في صَرفِ كَيدِهِ عَنّي
96
97
I ask Thee to make the path to my provision easy,
و أسأَلُكَ فِي أَنْ تُسَهِّلَ إلَى رِزْقِي سَبِيلاً،
97
98
since to Thee belongs praise for Thy beginning with
immense favours
فَلَكَ الْحَمْدُ عَلَى ابْتِدَائِكَ بِالنِّعَمِ
الْجِسَامِ،
98
99
and Thy inspiring gratitude for beneficence and
bestowing favour!
وَإلْهَامِكَ الشُّكْرَ عَلَى الإحْسَانِ وَالإِنْعَامِ
،
99
100
Bless Muhammad and his Household,
فَصَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِهِ
100
101
and make the way to my provision easy for me! [I ask
Thee] to make me content with Thy ordainment for me,
وَسَهِّلْ عَلَيَّ رِزْقِي وَأَنْ تُقَنِّعَنِي
بِتَقْدِيرِكَ لِيْ ،
101
102
to make me satisfied with my lot in that which Thou
hast apportioned for me
وَأَنْ تُرْضِيَنِي بِحِصَّتِيْ فِيمَا قَسَمْتَ لِيْ،
102
103
and to place what has gone of my body and my
life-span
وَأَنْ تَجْعَـلَ مَـا ذَهَبَ مِنْ جِسْمِيْ
وَعُمُرِيْ
103
104
into the path of Thy obedience! Surely Thou art the
Best of providers!
فِي سَبِيْلِ طَاعَتِكَ إنَّكَ خَيْرُ الرَّازِقِينَ.
104
105
O God, I seek refuge in Thee from the Fire through
which Thou art harsh toward him who disobeys Thee
أللَهُمَّ إنِّي أَعُوذُ بِكَ مَنْ نَارٍ تَغَلَّظْتَ
بِهَا عَلَى مَنْ عَصَاكَ،
105
106
and by which Thou hast threatened him who turns away
from Thy good pleasure;
وَتَوَعَّدْتَ بِهَا مَنْ صَدَفَ عَنْ رِضَاكَ،
106
107
from the Fire whose light is darkness, whose ease is
pain, and whose far is near;
وَمِنْ نَارٍ نورُهَا ظُلْمَة وَهَيِّنُهَا أَلِيمٌ،
وَبَعِيدُهَا قَرِيبٌ،
107
108
from the Fire parts of which devour parts
وَمِنْ نَارٍ يَأْكُلُ بَعْضَهَا بَعْضٌ،
108
109
and parts of which leap upon parts;
وَيَصُولُ بَعْضُهَا عَلَى بَعْض،
109
110
from the Fire which leaves bones decayed
وَمِنْ نَارٍ تَذَرُ الْعِظَامَ رَمِيماً،
110
111
and lets its people drink boiling water;
وَتَسْقِي أَهْلَهَا حَمِيماً ،
111
112
from the Fire which ‘does not spare him who pleads
to it,’
وَمِنْ نَارٍ لاَ تُبْقِي عَلَى مَنْ تَضَرَّعَ
إلَيْهَا،
112
113
has no mercy on him who seeks sympathy from it,
وَلاَ تَرْحَمُ مَنِ اسْتَعْطَفَهَا،
113
114
and has no power to relieve him who humbles himself
before it and yields himself to it;
وَلاَ تَقْدِرُ عَلَى التَّخْفِيفِ عَمَّنْ خَشَعَ
لَهَا وَاسْتَسْلَمَ إلَيْهَا،
114
115
it meets its inhabitants with the hottest that it
possesses: painful punishment and intense
noxiousness.
تَلْقَى سُكَّانَهَا بِأَحَرِّ مَا لَدَيْهَا مِنْ
أَلِيْمِ النَّكَالِ وَشَدِيدِ الْوَبَالِ،
115
116
seek refuge in Thee from its gaping-jawed scorpions,
وَأَعُوذُ بكَ مِنْ عَقَارِبِهَا الْفَاغِرَةِ
أَفْوَاهُهَا،
116
117
its scraping-toothed serpents,
وَحَيّاتِهَا الصَّالِقَةِ بِأَنْيَابِهَا،
117
118
and its drinks, which tear apart the intestines and
hearts of its inhabitants and root out their
marrows.
وَشَرَابِهَا الَّذِي يُقَطِّعُ أَمْعَاءَ
وَأَفْئِدَةَ سُكَّانِهَا، وَيَنْزِعُ قُلُوبَهُمْ،
118
119
I ask guidance from Thee to that which will keep far
from it and make it retreat!
وَأَسْتَهْدِيْكَ لِمَا باعَدَ مِنْهَا وَأَخَّرَ
عَنْهَا.
119
120
O God, bless Muhammad and his Household,
أللَّهُمَّ صَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِـهِ
120
121
grant me sanctuary from it through the bounty of Thy
mercy,
وَأَجِرْنِي مِنْهَا بِفَضْل رَحْمَتِكَ،
121
122
release me from my stumbles through Thy good
releasing,
وَأَقِلْنِي عَثَرَاتِي بِحُسْنِ إقَالَتِكَ ،
122
123
and abandon me not, O Best of the
sanctuary-granters!
وَلاَ تَخْذُلْنِي يَا خَيْرَ الْمُجيرِينَ
123
124
O God, Thou protectest from the disliked, givest the
good,
أللَّهُمَّ إنَّكَ تَقِي الْكَرِيهَةَ ، وَتُعْطِي
الْحَسَنَةَ ،
124
125
dost what Thou wilt, and Thou art “powerful over
everything” (3:26).
وَتَفْعَلُ مَا تُرِيـدُ وَأَنْتَ عَلَى كُلِّ شَيْء
قَدِيرٌ.
125
126
O God, bless Muhammad and his Household when the
pious are mentioned
أللَّهُمَّ صَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِهِ، إذَا ذُكِرَ
الأبْرَارُ،
126
127
and bless Muhammad and his Household as long as
night and day come
وَصَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِهِ مَا اخْتَلَفَ
اللَّيْلُ وَالنَّهَارُ
127
128
and go with a blessing whose replenishment is never
cut off
صَلاَةً لاَ يَنْقَطِعُ مَدَدُهَا،
128
129
and whose number cannot be counted, a blessing that
will fill up the air
وَلاَ يُحْصَى عَدَدُهَا صَلاَةً تَشْحَنُ الْهَوَاءَ،
129
130
and crowd the earth and the heaven!
وَتَمْلاُ الأرْضَ وَالسَّماءَ.
130
131
God bless him until he is well pleased
صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ حَتَّى يَرْضَى،
131
132
and God bless him and his Household
وَصَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَآلِهِ
132
133
after good pleasure with a blessing that has neither
bound
بَعْدَ الرِّضَا صَلاَةً لا حَدَّ لَها
133
134
nor utmost limit! O Most Merciful of the merciful!
وَلاَ مُنْتَهَى يَا أَرْحَمَ الرَّاحِمِيْنَ.
134

পরম করুণাময় এবং অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি

রাত্র জেগে এবাদত করার পর নিজ গুনাহ্ স্বীকার করে তাঁর একটি মুনাজাত।
হে প্রভ, হে চিরস্থায়ী রাজত্বের মালিক।
কর্তৃত্বের মালিক, সেনাবাহিনীর সমর্থন এবং কারও সাহায্য ছাড়াই আপনি শাসন করেন।
আপনার ক্ষমতা যুগের সমাপ্তি ঘটলে, বছরের যুগের আর দিনের পরিবর্তন হলেও অম্লান।
আপনার কর্তৃত্ব পূর্ব থেকেই বিদ্যমান যার শুরুর এবং শেষের কোনো সীমা নেই।একটি সীমা নিয়ে আপনি আপনার রাজত্বকে সমুন্নত করেছেন যাতে সকল জিনিস চ’ড়ান্ত পর্যায় পর্যন্ত পৌঁছতে পারে না এবং তারা এর মধ্যে থাকতে বাধ্য হয়, যারা দ্বারা আপনি নিজকে আড়াল করেছেন। কোনো প্রশংসাকারীর প্রশংসাই আপনার ইজ্জতের সমপর্যায়ে পৌঁছতে পারে না।
এভাবে আপনি নিজকে অন্যের কাছে ভুলিয়ে রেখেছেন এবং আপনাকে বর্ণনা করা সাধ্যাতীত।
আপনার ক্ষমতার দ্বারা, কল্পনার ক্ষমতা পরাভ’ত হয়।
হে আল্লাহ আপনার সত্তা হল আউয়ালুল আউয়ালিন এবং কোনো ক্ষতিগ্রস্ত না হয়ে সব সময় এক রকমই থাকবেন।
আমি এমন এক বান্দা, নেক আমলের বিবেচনায় যে নিঃস্ব এবং যার অসীম প্রত্যাশা।
আমাকে দেওয়া আপনার অনুগ্রহ ব্যতিরেকে, আমার হাত ঐ জিনিস অর্জন করতে সচেষ্ট যা আমি প্রত্যাশা করি।
আমার জন্য আশার দড়ি কেটে দিন, আপনার ক্ষমা প্রদর্শন করুন যাতে আমি মুক্তি পেতে পারি।
আমি আপনার বন্দেগী করার জন্য যোগ্যতা খুব কমই রাখি।
আপনাকে অমান্য করার জন্য অনেক কিছুই সামনে এসে দাঁড়ায়।
তবুও এটা আপনার জন্য কঠিন নয় যে আপনি আপনার বান্দাকে ক্ষমা করবেন, যদিও সে পাপী।
সেজন্য, আমাকে ক্ষমা করুন।
হে প্রভু, বিশেষত আপনার জন্য জ্ঞান গোপন কার্যাবলি সম্পর্কে অবগত। প্রতিটি গোপন জিনিসের বর্ণনা আপনার কাছে রয়েছে এবং সব চেয়ে তুচ্ছ কাজও আপনার দৃষ্টি এড়ায় না। অথবা গোপন রহস্যও আপনার কাছে অজানা নয়।
বিশেষত আমি আপনরা শত্রু কর্তৃক অতিরিক্ত শক্তি (গুণাহ্ করার জন্য), যে আমাদেরকে বিপথগামী করার জন্য আপনার কাছে সময় চেয়ে নিয়েছে।
আপনি তা অনুমোদন করেছেন। আপনার কাছে আরজ যে, সে ত কবর দিনগুলো পর্যন্ত আমাকে আবর্জনায় ফেলে দেবে (বিপথে চালনা করবে)।
আপনি তাকে সময় দিয়েছেন তাই সে আমার উপর প্রভাব বিস্তার করেছে।
বিশেষত ছোট গুনাহ্ হতে আপনার কাছে পলায়ন করছি যা ক্ষতিকর এবং ্ড় গুণাহ্ হতেও যা ধ্বংসাত্মক।
যখন আমি আপনার বিপক্ষে চলি এবং আমার কৃতকর্মের জন্য আপনার গোসসার অধিকারী হই, সে আমার কাছ থেকে তার ধোঁকা দেয়ার বস্তসমূহ নিয়ে যায়, সে আমাকে ধিক্কার দেয়, আমার কাছ থেকে পৃথক হয়ে যায় এবং আমার দিক হতে চেহারা ঘুরিয়ে নেয়।
সুতরাং সে আমাকে এক আপনার গোসসার বনে ছেরে দেয়, আপনার প্রদত্ত শাস্তির ক্ষেত্রে আমাকে পতিত ফেলে দিয়ে। সেখানে আপনার সাথে মধ্যস্থতা করার জন্য আমার কোনো মধ্যস্থাকারী থাকবে না। আপনার কাছ থেকে আমাকে আশ্রয় দেয়ার জন্য কোনো রক্ষক থাকবে না। এমন শক্তিশালী কোনো জিনিস থাকবে যা আমাকে আপনার কাছ থেকে লুকিয়ে রাখবে এবং এমন কোনো বাসস্থান থাকবে না যে আপনাকে ফাঁকি দেয়া হবে।
সেজন্য এই হল তার অবস্থান যে আপনার আশ্রয় প্রার্থনা করে এবং তার অবস্থা আপনার কাছে তওবা করে। সেজন্য আরজ করছি আমার কাছ থেকে আপনার অনুগ্রহ উঠিয়ে দিয়েন না। আমার ক্ষেত্রে াাপনার ক্ষমাকে কেড়ে নিয়েন না।
আমাকে আপনার তওবাকারী বান্দাদের মধ্যে সবচেয়ে নিরাশ করবেন না। অথবা তাদের মধ্যে সবচেয়ে আশাহত করবেন না যারা আপনার কাছে সফলতার জন্য অপেক্ষা করে। আমাকে ক্ষমা কুরন, বিশেষ করে আপনি হলেন সবচেয়ে বড় ক্ষমাশীল। হে প্রভু, বিশেষত বলতে হয় আপনি আমাকে হুকুম করেছেন আর আমি তা পালন করতে ব্যর্থ হয়েছি, আপনি আমাকে নিষেধ করেছেন আর আমি তা করেছি। মন্দ চিন্তা আমার জন্য কর্ম সাজিয়েছে যাতে আমি তা করি। আমি এমন কোনো দিনের কথা বলব না যে দিন আমার রোজর সাক্ষ্য দিবে অথবা এমন কোনো রাত্রের কথা বলব না যে রাত্র আমার জাগরণের (এবাদতে) সাক্ষ্য দিবে, এমন কোনো ভাল আমলের কথা বলব না যা আমি করেছিলাম। আপনার এমন কোনো কর্তব্যও পালন করিনি, যা কেউ অস্বীকার করলে ধ্বংস হয়ে যায়।
আমি অপনার কাছে কোনো ভ’মিকার অবতারনা করছি না। কোনো স্বেচ্ছা আরাধনার দ্বারা, যখন আমি আপনার ফরজ কার্যসমূহ (বিপুল পরিমাণে) সম্পাদন করতে অস্বীকার করেছি এবং আপনার নিষেধকৃত ক্ষেত্রে আমি সীমা ছাড়িয়ে গেছি, যাতে আমি প্রভাবাম্বিত ছিলাম। আর মন্দ ঝোঁক থেকে আমি সীমা ছাড়িয়ে গেছি, যাতে আমি প্রভাবাম্বিত ছিলাম। আর মন্দ ঝোঁক থেকে আমি এগুলো করেছি। আপনার নিরাপত্তা নক্ষার জন্য আমার কোনো পর্দা নেই।
এই হল তার অবস্থান যে আপনার সামনে তার আত্মার সামনে লজ্জিত, এর কারণে রাগাম্বিত এবং আপনার সামনে সন্তুষ্ট।
সেজন্য, সে আপনার ভয় এবং আশায় আপনার সামনে দাঁড়িয়েছে এক বিনয়ি রহু এক অবনত মাথা এবং পাপের দ্বারা বোঝাই করা এক পিঠ নিয়ে। আপনার সত্তাই ওগুলোর মালিক যা আমরা বিশ্বাস করি এবং ঐ সমস্ত ভয়-ভীতির, যা আমরা আশঙ্কা করি (নিজের উপর বর্তাবার ক্ষেত্রে)।
সেজন্য, আমাকে তা দিন, হে প্রভু, যা আমি করি।
আমি যা ভয় করিতা হতে রক্ষা করুন।
আপনার দয়ার পুনষ্কারের দ্বারা আমাকে অনুগ্রহ করুন।
বিশেষত, দানশীলদের মধ্যে আপনিই সবচেয়ে মহান দানশীল।
হে প্রভু, যেহেতু আপনি আমাকে আপনার ক্ষমার দ্বারা আমাকে মুড়িয়ে ফেলেছেন, মরণশীল দুনিয়ার এই বাসস্থানের অজ্ঞতা হতে আমাকে নিবৃত্ত রাখুন। যেখানে আপনার সম্মানিত ফেরেস্তাগণ, সম্মানি নবীগণ, এবং আমার প্রতিবেশী নেককারগণ থাকবেন, যাদের কাছে আমার মন্দ লুকিয়ে রাখা হবে এবং যাদের কাছে আমি আমার গোপন কর্মের জন্য লজ্জিত হব।
আমার উপর চাদর দিতে এবং আপনার উপর বিশ্বাস আনয়নে আমি খখনই তাদের বিশ্বাস করতাম না, হে আমার রক্ষাকর্তা, আমাকে ক্ষমা করার বেলাতেও।
আপনার সত্তা সবচেয়ে ক্ষমতাবান তাদের উপর যারা রক্ষিত, সবচেয়ে মহান তাদের উপর যারা প্রার্থনা করে এবং সবচেয়ে বদান্য তাদের উপর যারা রক্ষিত, সবচেয়ে মহান তাদের উপর যারা ক্ষমা চায়, সেজন্য, আমাকে করুণা করুন।
হে প্রভু, আমাকে এক ফোটা বীর্য হিসেবে হাড়ের (সরু) প্রবাহিত করে সরু গর্ভে চালিত করেছেন যেখানে আপনি আমাকে ঢেকে দিয়েছেন। সেখানে আমাকে স্তরে উন্নতি দান করেছেন, আমার পরিপূর্ণতা আসার পূর্ব পর্যন্ত এবং অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ স্থাপন করা পর্যন্ত যা আপনি আপনার কিতাবে বলে দিয়েছেন, প্রথমে এক বীযৃ খন্ড, তারপর রক্তের টুকরা, তারপর একটি মাংসখন্ড, তারপর অস্থির গঠন, তারপর অস্থিকে মাংসা দ্বারা ঢেকে দিয়েছেন, তারপর আপনার ইচ্ছে মত আপনি আমাকে স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যে মন্ডিত করেছেন।
যতদিন আমার আপনার পরিচর্যার অনুভব করেছিলাম এবং আপনার বদান্যতা হতে স্বাধীন হতে পারি নি, আপনি আমার পরিচর্যা ব্যবস্থা করেছেন, খাদ্য এবং পানীয় দিয়ে। যা আপনি আপনার কুদরতি হাতে স্তনের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত করেছেন, তার স্তনে যার পেটেরে সাথে আমার সম্পর্ক স্থাপিত হয়েছে এবং সবচেয়ে অন্তর্বর্তীনকালে যার গর্ভে আমাকে রেখেন। হে রক্ষাকর্তা, এই সমস্ত ক্ষেতের আপনি তা আমাকে শক্তি অথবা ক্ষমতা দেননি যে এগুলো ব্যবহার করব। বিশেষত আমার শক্তি আমাকে বিপর্যস্ত করত এবং আমার শক্তি আমার চেয়ে বহু দূরে ছিল। সেজন্য, পূর্ণাঙ্গ এবং পর্যাপ্ত পুষ্টিতে, আপনার অনুগ্রহে আপনি আমাকে আহার করিয়েছেন। আমার বর্তমান মূহুর্তে আপনার সত্তাই আমার উপর দয়ার বহি-প্রকাশ ঘটাচ্ছে। আপনার দয়ার কোনো লয় নেই, অথবা আপনার বদান্যতা আমর প্রতি আটকেও নেই। এ সত্ত্বেও আমার এতটুকু আত্মবিশ্বাস হয়নি যে আমি আপনার দৃষ্টিতে যা সবচেয়ে ভাল তাতে নিজেকে নিয়োজিত করব অথবা প্রত্যাহার করব। বিশেষত শয়তান আমার রাজত্ব অধিকার করেছে, আমার ভুল কর্ম এবং ঈমানের দূর্বলতার সাথে। আমি তার শয়তানী সাহচার্য এবং আমার আত্মার তা প্রতি আনুগত্যকে আপনার কাছে অভিযোগ দায়ের করছি। তার কর্তৃত্বের বিরুদ্ধে আপিনি আমাকে রক্ষা করুন এবং একটি জীবিকা নির্বাহের জন্য তা সহজ করে দেবার জন্য আপনার কাছে বিনম্র আবেদন করছি।
আর সকল প্রশংসা আপনার জন্য, প্রথম পদে অনন্য নেয়ামত দান করার জন্য, কৃতজ্ঞতা জানানোতে উৎসাহিত করার জন্য, বদান্যতা এবং উদারতার জন্য। হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন। জীবন ধারণের উপকরণ যোগাড় করতে আমাকে সহযোগিতা দিন। আমার প্রতি আপনার অঙ্গীকারের বাস্তবায়ন করুন। আমার অংশে আপনি সন্তুষ্ট হয়ে যান যা আপনি আমার জন্য অনুমোদন করেছেন। আমার শরীরে এবং বয়সে যা হয় তা আপনার রাস্তায় ব্যয় করার তৌফিক দিন। বিশেষত, আপনার সত্তাই শ্রেষ্ঠ রিযিকদাতা।
হে প্রভু, আমি ঐ আগুন হতে আপনার আশ্রয় চাচ্ছি যা তার উপর বর্তায় যে আপনাকে অমান্য করে. যে আগুনের ব্যাপারে তাকে হুমকি দিয়েছেন যে আপনাকে মান্য করা হতে বিরত থাকে। আমি আশ্রয় চাচ্ছি ঐ আগুন থেকে যে আগুন হবে কালো, যার মধ্যখান আর্তনাদে ভরপুর, আগুনের শিখাগুলো একটি হতে আরেকটি খুবই নিকটে। ঐ আগুন থেকে আশ্রয় চাচ্ছি যার এক অংশ অন্য অংশকে গ্রাস করে ফেলে, কিছু অংশ অন্য অংশগুলোকে আক্রমণ করে। ঐ আগুন হতে যে তার কাছে মিনতিকারীকে নিস্তার দেয় না এবং প্রার্থনাকারীর উপর দয়া প্রদর্শন করে না। এর (আগুনের) কোনো ক্ষমতা নাই যে তার উপর প্রাবল্য কমিয়ে দেবে যে তার সামনে নম্র হয় এবং মিনতি করে। এটা এর বাসীকে উত্তপ্ত শাস্তি দেয় এবং যন্ত্রণাদায়ক কষ্ট দিয়ে থাকে।
আমি এক খোলা মুখের বিছা হতে আপনার হেফাজত কামনা করছি। এর সাপগুলো তাদের বিষাক্ত দাঁত দিয়ে কামড় দিতে প্রস্তুত। এর পানীয় তাদের অভ্যন্তরভাগ এবং কলিজা ছিঁড়ে ফেলে যারা সেখানে বাস করে (জাহান্নামবাসী)। আমি আপনার নির্দেশনা চাচ্ছি যা আমাকে এর থেকে দূরে এবং এর থেকে ফিরিয়ে নেবে।
হে প্রভু, হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন। আপনার অনান্য বদান্যতায় আমাকে এ থেকে রক্ষা করুন। আপনার ক্ষমাশীলতায় আমার ভুলগুলো এড়িয়ে যান। হে শ্রেষ্ঠ রক্ষাকর্তা, আমাকে অনুগ্রহ বঞ্চিত করবেন না। বিশেষত, আপনি মন্দ দূর করে থাকেন এবং ভালাই দান করে থাকেন। আপনি যা ইচ্ছে তাই করুন এবং সবকিছুর উপর আপনার ক্ষমতা বিদ্যমান। যখনই নেককারগণ মিনতি করে, তখনই হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন।। যতদিন রাত্র-দিন পালা বদল করে তত দিন হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন, যার পালা বদল কখনও শেষ হবে না এবং যার সংখ্যা গণনা করা যায় না। ঐ অনুগ্রহ করুন যা আবহাওয়াকে পরিব্যাপ্ত করে এবং আসমান আর জমিন পরিপূর্ণ করে দেয়। সে সন্তুষ্ট হওয়া পর্যন্ত আল্লাহ্ যেন তার উপর এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহের বারি বর্ষণ করে। সন্তুষ্ট হওয়ার পর আল্লাহ্ যেন তাঁকে এবং তাঁর বংশধরদেরকে বিভিন্ন নেয়ামত দিয়ে নে, যার কোনো সীমা-পরিসীমা নেই, হে পরম দয়ালু।

Ref: হযরত ইমাম জয়নাল আবেদীন আল ছহীফাহ্ আল সাজ্জাদীয়াহ্
অনুবাদ মুহাম্মদ মাঈনউদ্দিন
অন্যধারা, ৩৮/২-ক বাংলাবাজার (৫ম তলা) ঢাকা-১১০০
প্রকাশকাল : সেপ্টেম্বর ২০০৮
বাংলা অনুবাদ: প্রকাশক ২০০৮