দোয়া ১২ আল্লাহর কাছে দোষ স্বীকার করে এবং অনুশোচনা করে

2 weeks ago najafi 0

دُعَاؤُهُ فِي الِاعْتِرَافِ و طَلَبِ التَوبَةِ الى الله
تعالى
His
Supplication in Confession and in Seeking Repentance toward
God
1
O God, three traits have prevented me from asking
Thee
أَللَّهُمَّ إنَّهُ يَحْجُبُنِي عَنْ مَسْأَلَتِكَ
خِلاَلٌ ثَلاثٌ
1
2
and one trait has urged me on:
وَتَحْدُونِي عَلَيْهَا خَلَّةٌ وَاحِدَةٌ ،
2
3
I am prevented by a command Thou hast commanded in
which I have been slow,
يَحْجُبُنِي أَمْرٌ أَمَرْتَ بِهِ فَأَبْطَأتُ عَنْهُ،
3
4
a prohibition Thou hast prohibited toward which I
have hurried,
وَنَهْيٌ نَهَيْتَنِي عَنْهُ فَأَسْرَعْتُ إلَيْهِ،
4
5
and a favour through which Thou hast favoured for
which I have not given sufficient thanks.
وَنِعْمَةٌ أَنْعَمْتَ بِهَا عَلَيَّ فَقَصَّرْتُ فِي
شُكْرِهَـا.
5
6
I am urged to ask Thee by Thy gratuitous bounty
وَيَحْدُونِي عَلَى مَسْأَلَتِكَ تَفَضُّلُكَ
6
7
upon him who turns his face toward Thee
عَلَى مَنْ أَقْبَلَ بِوَجْهِهِ إلَيْكَ،
7
8
and comes to Thee with a good opinion,
وَوَفَدَ بِحُسْنِ ظَنِّـهِ إلَيْكَ،
8
9
since all Thy beneficence is gratuitous bounty
إذْ جَمِيعُ إحْسَانِكَ تَفَضُّلٌ،
9
10
and every one of Thy favours a new beginning!
وَإذْ كُلُّ نِعَمِكَ ابْتِدَاءٌ.
10
11
So here I am, my God, standing at the gate of Thy
might,
فَهَا أَنَا ذَا يَا إلهِيْ وَاقِفٌ بِبَابِ عِزِّكَ
11
12
the standing of the lowly, the surrendered, asking
Thee in my shame,
وُقُوفَ المُسْتَسْلِمِ الذَّلِيْل، وَسَائِلُكَ عَلَى
الْحَيَاءِ مِنّي
12
13
the asking of the destitute, the pitiful, admitting
to Thee that
سُؤَالَ الْبَائِسِ الْمُعِيْلِ. مُقـرٌّ لَكَ بأَنّي
13
14
at the time of Thy beneficence I surrendered not
save through abstaining from disobedience toward
Thee
لَمْ أَسْتَسْلِمْ وَقْتَ إحْسَانِـكَ إلاَّ
بِالاِقْلاَعِ عَنْ عِصْيَانِكَ،
14
15
and in none of my states was I ever without Thy
Kindness.
وَلَمْ أَخْلُ فِي الْحَالاتِ كُلِّهَا مِنِ
امْتِنَانِكَ.
15
16

6- Will it profit me, my God, to admit to Thee the evil of
what I have earned?

فَهَلْ يَنْفَعُنِي يَا إلهِي إقْرَارِي عِنْدَكَ
بِسُوءِ مَا اكْتَسَبْتُ؟
16
17

Will it save me from Thee to confess the ugliness of what I
have done?

وَهَلْ يُنْجِيْنِي مِنْكَ اعْتِرَافِي لَكَ
بِقَبِيْحِ مَا ارْتَكَبْتُ؟
17
18

Or wilt Thou impose upon me in this my stationThy
displeasure?

أَمْ أَوْجَبْتَ لِي فِي مَقَامِي هَذَا سُخْطَكَ؟
18
19

Will Thy hate hold fast to me in the time of my
supplication?

أَمْ لَزِمَنِي فِي وَقْتِ دُعَائِي مَقْتُكَ؟
19
20

Glory be to Thee! I do not despair of Thee, for Thou hast
opened the door of repentance toward Thyself.

سُبْحَانَكَ! لاَ أَيْأَسُ مِنْكَ وَقَدْ فَتَحْتَ
لِيَ بَابَ التَّوْبَةِ إلَيْكَ،
20
21

Rather, I say, the words of a lowly servant,   having
wronged himself

بَلْ أَقُولُ مَقَالَ الْعَبْدِ الذَّلِيلِ الظَّالِمِ
لِنَفْسِهِ
21
22

and made light of his Lord’s inviolability,

الْمُسْتَخِفِّ بِحُرْمَةِ رَبِّهِ
22
23

and whose sins are dreadful, great,whose days have parted,
fled,

الَّذِي عَظُمَتْ ذُنُوبُهُ فَجَلَّتْ وَأَدْبَرَتْ
أَيّامُهُ فَوَلَّتْ
23
24

until, when he sees the term of his works expired and the
limit of his lifetime reached

حَتَّى إذَا رَأى مُدَّةَ الْعَمَلِ قَدِ انْقَضَتْ
24
25

and knows with certainty that he has no escape from Thee,

وَغَايَةَ الْعُمُرِ قَدِ انْتَهَتْ ،
25
26

no place to flee from Thee, he turns his face toward Thee
in repeated turning,

وَأَيْقَنَ أَنَّهُ لا مَحيصَ لَهُ مِنْكَ ،وَلاَ
مَهْرَبَ لَهُ عَنْكَ
26
27

makes his repentance toward Thee sincere,stands before Thee
with a pure and purified heart,

تَلَقَّاكَ بِالإنَابَةِ ،وَأَخْلَصَ لَكَ التَّوْبَةَ
27
28

then supplicates Thee with a feeble, quiet voice.

، فَقَامَ إلَيْكَ بِقَلْبِ طَاهِر نَقِيٍّ
28
29
He is
bowed before Thee,
bent,
 

ثُمَّ دَعَاكَ بِصَوْت حَائِل خَفِيٍّ ،
29
30
his
head lowered, thrown
down,
قَدْ تَطَأطَأَ لَكَ فَانْحَنى، وَنَكَّسَ رَأسَهُ
فَانْثَنَى ،
30
31
his
legs shaking in
fear,
his
tears flooding his
cheeks.
قَدْ أَرْعَشَتْ خَشْيَتُهُ رِجْلَيْهِ، وَغَرَّقَتْ
دُمُوعُهُ خَدَّيْهِ ،
31
32
He
supplicates
Thee:
O
Most Merciful of the
merciful!
O
Most Merciful of those toward whom seekers of
mercy
keep
on
turning!
يَدْعُوكَ بِيَا أَرْحَمَ الرَّاحِمِينَ وَيَا
أَرْحَمَ مَنِ انْتَابَهُ الْمُسْتَرْحِمُونَ،
32
33
O
Tenderest of those around whom
run
seekers
of
forgiveness!
وَيَا أَعْطَفَ مَنْ أَطَافَ بِهِ الْمُسْتَغْفِرُونَ
،
33
34
O
He whose pardon is
greater
than
His
vengeance!
وَيَا مَنْ عَفْوُهُ أكْثَرُ مِنْ نِقْمَتِهِ،
34
35
O
He whose good pleasure is more
abundant
than His anger
وَيَا مَنْ رِضَاهُ أَوْفَرُ مِنْ سَخَطِهِ،
35
36
O
He who seeks His creatures’
praise
with
excellent
forbearance!
وَيَا مَنْ تَحَمَّدَ إلَى خَلْقِهِ بِحُسْنِ
التَّجاوُزِ ،
36
37
O
He who has accustomed His
servants
to
the acceptance of their repeated turning!
وَيَا مَنْ عَوَّدَ عِبادَهُ قَبُولَ الإنَابَةِ ،
37
38
O
He who seeks to heal their
corruption
through
repentance!
وَيَا مَنِ اسْتَصْلَحَ فَاسِدَهُمْ بِالتَّوْبَةِ
38
39
O
He who is pleased with the
easy
of
their
acts!
وَيَا مَنْ رَضِيَ مِنْ فِعْلِهِمْ بِالْيَسيرِ،
39
40
O
He who recompenses with the
much
their
little!
وَيَا مَنْ كَافى قَلِيْلَهُمْ بِالْكَثِيرِ،
40
41
O
He who has made himself accountable to
them
to
respond to supplication!
وَيَا مَنْ ضَمِنَ لَهُمْ إجَابَةَ الدُّعاءِ،
41
42
O
He who pledged Himself by His gratuitous
bounty
to
give them excellent repayment!
وَيَا مَنْ وَعَدَهُمْ عَلَى نَفْسِهِ بِتَفَضُّلِهِ
حُسْنَ الْجَزاءِ،
42
43
I am not
the most disobedient of those who have disobeyed
Thee
مَا أَنَا بِأَعْصَى مَنْ عَصَاكَ فَغَفَرْتَ لَهُ،
43
44
and whom Thou hast forgiven, nor am I the most blameworthy to offer
excuses which Thou hast accepted,  
وَمَا أَنَا بِأَلْوَمِ مَنِ اعْتَذَرَ إلَيْكَ
فَقَبِلْتَ مِنْهُ،
44
45
nor am I the most wrongdoing of those who have repented to Thee, and to whom
Thou hast returned
وَمَا أَنَا بِأَظْلَمِ مَنْ تَابَ إلَيْكَ فَعُدْتَ
عَلَيْهِ ،
45
46
 I repent
to Thee in this my
station,  the
repentance of
one remorseful
over what preceded from him
أَتُوبُ إلَيْكَ فِي مَقَامِي هَذَا تَوْبَةَ نَادِم
عَلَى مَا فَرَطَ مِنْهُ
46
47
hastily, apprehensive of what has gathered around him, pure in shame for that
into which he has fallen,
 

مُشْفِق مِمَّا اجْتَمَعَ عَلَيْهِ خَالِصِ الْحَيَاءِ
مِمَّا وَقَعَ فِيْهِ ،
47
48
knowing
that pardoning
great sins is nothing great for Thee. 
عَالِم بِأَنَّ الْعَفْوَ عَنِ الذَّنْبِ الْعَظِيمِ
لاَ يَتَعـاظَمُكَ،
48
49
overlooking enormous misdeeds is not difficult for
Thee, 
وَأَنَّ التَّجَـاوُزَ عَنِ الإثْمِ الْجَلِيْلِ لا
يَسْتَصْعِبُكَ ،
49
50
putting up with indecent crimes does not trouble
Thee, 
وَأَنَّ احْتِمَالَ الْجنَايَاتِ الْفَـاحِشَةِ لا
يَتَكَأَّدُكَ،
50
51
and the most beloved of Thy servants to
Thee is he
who refrains
from arrogance before
Thee,  
وَأَنَّ أَحَبَّ عِبَادِكَ إلَيْكَ مَنْ تَرَكَ
الاسْتِكْبَارَ عَلَيْكَ،
51
52
pulls aside from persistence, and holds fast to praying forgiveness!
وَجَانَبَ الإِصْرَارَ، وَلَزِمَ الاسْتِغْفَارَ.
52
53
I am clear
before Thee of
arrogance,
وَأَنَا أَبْرَأُ إلَيْكَ مِنْ أَنْ أَسْتَكْبِرَ،
53
54
I
seek refuge in Thee from
persistence,
وَأَعُوذُ بِكَ مِنْ أَنْ أصِـرَّ.
54
55
I
pray forgiveness from Thee for
shortcomings,
وَأَسْتَغْفِرُكَ لِمَا قَصَّرْتُ فِيهِ ،
55
56
 I seek help from Thee in incapacity!
وَأَسْتَعِينُ بِكَ عَلَى مَا عَجَزْتُ عَنْهُ.
56
57
O
God,
bless
Muhammad and his
Household,
اللَّهُمَّ صَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِهِ
57
58
dispense
with what is incumbent upon me toward
Thee, 
وَهَبْ لِي مَا يَجبُ عَلَيَّ لَكَ ،
58
59
release me from what I merit from Thee,
وَعَافِنِي مِمَّا أَسْتَوْجِبُهُ مِنْكَ،
59
60
and grant me sanctuary from what the evildoers fear!
وَأجِرْنِي مِمَّا يَخَافُهُ أَهْلُ الإساءَةِ
60
61
For
Thou art full of
pardon, the
hoped-for source of
forgiveness, well
known for Thy
forbearance.
فَإنَّكَ مَلِيءٌ بِالْعَفْوِ، مَرْجُوٌّ
لِلْمَغْفِرَةِ، مَعْرُوفٌ بِالتَّجَاوُزِ ،
61
62
My
need has no object but
Thee, 
لَيْسَ لِحَاجَتِي مَطْلَبٌ سِوَاكَ ،
62
63
 my
sin no forgiver other than
Thee –
could that be possible?
وَلا لِذَنْبِي غَافِرٌ غَيْرُكَ، َحاشَاكَ
63
64
I have no fear for myself except from Thee;
وَلاَ أَخَافُ عَلَى نَفْسِي إلاّ إيَّاكَ
64
65
Thou
art worthy of reverential
fear, and
worthy to forgive!
إنَّكَ أَهْلُ التَّقْوَى وَأَهْلُ الْمَغْفِرَةِ .
65
66
Bless
Muhammad and his
Household,
صَلِّ عَلَى مُحَمَّد وَآلِ مُحَمَّد،
66
67
grant
my
need,
answer
my request favorably,
وَاقْض حَاجَتِي وَأَنْجِحْ طَلِبَتِي،
67
68
forgive
my
sin,
and
give me security from fear for
myself!
وَاغْفِرْ ذَنْبِي، وَآمِنْ خَوْفَ نَفْسِيْ
68
69
Thou
art powerful over everything,
إنَّكَ عَلَى كُلِّ شَيْء قَدِيرٌ
69
70
and
that is easy for Thee.
Amen, Lord of the worlds
وَذلِكَ عَلَيْكَ يَسِيرٌ آمِينَ رَبَّ الْعَالَمِينَ
.
70

পরম করুণাময় এবং অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি

আল্লাহর কাছে দোষ স্বীকার করে এবং অনুশোচনা করে তাঁর একটি মুনাজাত।আল্লাহর কাছে দোষ স্বীকার করে এবং অনুশোচনা করে তাঁর একটি মুনাজাত।হে প্রভু, তিনটি অভ্যাস এমন আছে যেগুলো আপনার কাছে প্রার্থনা করায় বাঁধা দেয় এবং একটি অভ্যাস আপনার কাছে প্রার্থনা করতে অনুপ্রাণিত করে।তা করতে বিণম্ব ঘটে যা তুমি আমাকে আদেশ করেছ যে লোক দেখানো নামাজ থেকে দূরে থাকতে। আপনি এ জিনিসটি করতে নিষেধ করেছেন এবং আমি তা করতে তৎপর। এভাবে এটা আমাকে বাঁধা দেয় এবং আপনার সাহায্য নিশ্চিত করতে পারে না। যার জন্য আমি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করতে পারি না।যা আমাকে আপনার কাছে প্রার্থনা করতে অনুপ্রাণিত করে তা হলো ঐ ব্যক্তির প্রতি আপনার দয়া যে আপনার দয়া-সাহায্যের জন্য আপনার দিকে মূখ ফিরায় এবং যে আপনার কাছে আশা নিয়ে আসে। আর আপনার সকল অনুগ্রহ আমার উপর (যা আমার প্রাপ্য প্রতিদান নয়)।সেজন্য, হে প্রভু, এই যে আমাকে দেখুন আপনার মহিমার দরজায় দাঁড়িয়ে, যে আকুতি ভরে কম্পমান নিজের লজ্জার জন্য। আপনার কাছে কাকুতি-মিনতি করি। আমি দরিদ্র এবং ভিখারি আপনার কাছে হাজির, আমি কখনও আপনার সাহায্য পাওয়ার উপযুক্ত নই। আপনার কাছ থেকে গুনাহ্ করার থেকে অব্যাহতি নিয়ে আমাকে রক্ষা করুন। আর আমার সমস্ত গুনাহ্ (আমার সব সময়কার) আপনার অসীমতার বাইরে নয়।     হে প্রছু, সেজন্য বলছি, আপনার কাছে পৌঁছাতে বাঁধা এরকম  যে সকল গুনাহ্ আমি করেছি তা কি আমার জন্য কোনো কিছু বয়ে আনবে?আপনার রাগ থেকে বাঁচার জন্য আমার আকুতি কি ভুল?অথবা, আমার এই পরিস্থিতিতে আপনি কি আমার জন্য আপনার গোসসা রেখেছেন?নামাজের সময় আপনার নারাজি কি আমার উপর ঝুলবে?হে পবিত্র সত্তা, আমি আপনার দয়াকে অস্বীকার করছি নন যখন নিছিতভাবে আপনার কাছে অনুতাপের দরজা আমার জন্য খুলেছেন।অবশ্যই আমি একজন গুনাহ্গার বান্দার কথা বলছি (আমি নিজেই)। যে কিনা তার নিজের আত্মার উপর অবিচার করেছে। যে তার প্রভুর এবাদতের গুরুত্ব বোঝে না। যার গুনাহ্ ব্যাপক এবং জালের মত বিস্তৃত এবং ঐ পর্যন্ত তার দিন অতিক্রম ও শেষ হয়েছে যখন সে উপলব্ধি করেছে যে তার কাজের সুযোগ অতিক্রম হয়ে গেছে। তার জীবনের সময়সীমা শেষ হয়ে গেছে এবং সে অনুধাবন করতে পেরেছে যে আপনার কাছ হতে পালাবার তার কোনো সুযোগ নেই এবং কোনো কিছু প্রত্যাখান করার সুযোগ নেই।তখন সে পরিবর্তন হয়ে এবং একাগ্রতার সাথে, আপনার কাছে অনুশোচনা করে নিজেকে আপনার কাছে সমর্পণ করে।তাই, সে আপনার কাছে খাঁটি, স্বচ্ছ দিল নিয়ে দাঁড়ায় এবং আপনার কাছে নিচু স্বরে আবেদন করে।  বিশেষত, সে বাঁকা হওয়া পর্যন্ত আপনার সামনে মাথা নোয়ায়।বিশেষত, ভয়ের কারণে তার পাগুলো কাঁপতে শুরু করে এবং চোখের পানি তার গালে প্রবাহিত হয়।সে একথা বলে আপনাকে ডাকে হে পরম দয়ালু। হে পরম করুণাময় (যাদের প্রতি অবিরতভাবে তার দয়া প্রকাশ হতে থাকে তাদের উপর)। হে পরম অনুগ্রহশীল, আপনি মাফ করে অনুগ্রহ বর্ষণ করুন। হে প্রভু, আপনার ক্ষমা আপনার সংযমের চেয়ে বেশি অঢেল। হে প্রভু, আপনার গোসসার চেয়ে আপনার কবুলিয়াতের প্রাচুর্য বেশি। হে প্রভু, আপনি মাখলুকের দোষকে এড়িয়ে তাদেরসাহায্য করে থাকেন। হে প্রভু, আপনি বান্দাদের দোয়া কবুল করার জন্য তাদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন। হে প্রভু, আপনি তাদেরকে অনুতাপের দ্বারা গুণাহ্সমূহকে পরিবর্তন করে দিন। হে প্রভু, আপনি বান্দাদের ছোট নেক আমলের উপর খুশি হয়ে যান। হে প্রভু, আপনি তাদের গুরুত্বহীন কাজগুলোকে প্রাচুর্যতার সাথে বিবেচনা করুন। হে প্রভু, আপনি নামাজে তাদেরকে উত্তর দিয়ে থাকেন। হে প্রভু, আপনি অনুগ্রহপূর্বক আপনার নিজ কুদরতে তাদের জন্য বেগাইবি হিসেবের প্রতিদানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। আমি তাদের মধ্যে সব চেয়ে বেশি পাপী নই যারা তওবা করেছে আর আপনি তাদের তওবা কবুল করেন নি। আমি তাদের মধ্যে সবচেয়ে দোষী নই যারা তওবা করেছে আর আপনি প্রত্যাখান করেছেন। আমি তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি নির্বিচার করিনি যারা আপনার কাছে অনুতাপ করেছে আর আপনি তাদেরকে সহানভ’ীত করেন নি।আমার এই পরিস্থিতিতে, আমি আপনার কাছে অনুশোচনা করছি। ঐ লজ্জাজনক কাজের অনুতাপ যা কেউ একজন করতে অস্বীকার করে। সে তা নিজের বিরুদ্ধে যা করেছে সে ভয়ে ভীত হয়ে।সে যা করেছে তার জন্য একাগ্রভাবে দুঃখিত হয়ে।একথ জেনে যে তাঁর (আল্লাহর) জন্য এটা বড় কোনো কাজ নয় যে পাপ মাফ করে দিবেন।তার জন্য তেমন কঠিন নয়।অতিরিক্ত মাত্রায় ভুল সহ্য করা তার পক্ষে কঠিন রুপে বর্তায় না। আপনার সৃষ্টির মধ্যে সবচেয়ে প্রিয় ঐ ব্যক্তি যে অহংকার ত্যাগ করে, গুণাহ্ করা থেকে বিরত থাকে এবং সব সময় ক্ষমা প্রার্থনা করে। আমি নিজেকে আপনার সামনে অহংকারমুক্ত করছি, গুণাহ্ করা থেকে বিরত থাকার জন্য আপনার নিরাপত্তা কামনা করছি, আমি যা করতে অসমর্খ্য হয়েছি তার জন্য আপনার ক্ষমা চাচ্ছি এবং আমি যা করতে অক্ষম তার জন্য আপনার সাহায্য চাচ্ছি। হে প্রভু, হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর বংশধরদের উপর আপনি অনুগ্রহ করুন। আমাকে ক্ষমা করুন, যা আপনার কাছে আমার চাহিদা । আমাকে রক্ষা করুন, যা আপনার কাছে আমি প্রত্যাশ করি।যে জিনিসে (শাস্তি) পাপীগণ ভয় পায় তা থেকে আমাকে আশ্রয় দিন। বিশেষ করে, আপনি পরম ক্ষমাশীল। আপনার কাছে ক্ষমা প্রত্যাশা করছি। দোষ এড়িয়ে যাওয়ার জন্য আপনি অনন্য। আপনি ছাড়া আমার আর কেউ নেই যার কাছে আমার চাহিদা পূর্ণ করার জন্য ভিক্ষা চাইতে পারি। আপনি ব্যতিরেকে আমার পাপ ক্ষমা করার আর কেউ নেই। আপনি ছাড়া আর কেউ আছে চিন্তা করা আপনা হতে অনেক দূরে এবং এ বিষয়ে ভয় করি না যে আপনি ব্যতিরেকে আমার আত্মার আর কিছু হবে।বিশেষত, আপনার চাহিদা হল তাকওয়াহ্ (ভয়-ভীতি)। আপনার সত্তাই পাপ মাফ করার অধিকার রাখেন।হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন।আমার চাহিদা পূর্ণ করুন। আমার প্রত্যাশা অনুমোদন করুর। আমার পাপ মাফ করুন এবং আমার আত্মার ভয়াবহতা দমন করুন।বিশেষত, সব কিছুর উপর আপনার ক্ষমতা বিরাজমান এবং এটা আপনার জন্য সহজ। হে সমগ্র বিশ্বের মালিক। আমার মুনাজাতকে কবুল করুন।