দোয়া ৩ আরশ বহনকারী এবং নিকটস্থ ফেরেস্তাদের উপর মুনাজাত

3 months ago najafi 0

الصَّلَاةُ عَلَى حَمَلَةِ الْعَرْشِ و كلّ مَلَكٍ مقرّبٍ
In
Calling down Blessings on the Bearers of the Throne and
every angel brought near
1
O God, as for the Bearers of Thy Throne, who never
flag in glorifying Thee,
اللَّهُمَّ وَحَمَلَةُ عَرْشِكَ الَّذِينَ لا
يَفْتُرُونَ مِنْ تَسْبِيحِكَ،
1
2
never become weary of calling Thee holy,
وَلا يَسْـأَمُـونَ مِنْ تَقْـدِيْسِكَ،
2
3
never tire of worshipping Thee,
وَلا يَسْتَحسِرُونَ مِنْ عِبَادَتِكَ،
3
4
never prefer curtailment over diligence in Thy
command,
وَلاَ يُؤْثِرُونَ التَّقْصِيرَ عَلَى الْجِدِّ فِي
أَمْرِكَ،
4
5
and are never heedless of passionate love for Thee;
وَلا يَغْفُلُونَ عَنِ الْوَلَهِ إلَيْكَ.
5
6
Seraphiel, the Owner of the Trumpet, fixed in his
gaze, awaiting
وَإسْرافِيْلُ صَاحِبُ الصُّوْرِ، الشَّاخِصُ الَّذِي
يَنْتَظِرُ
6
7
Thy permission and the descent of the Command, that
he may arouse through the Blast
مِنْكَ الاذْنَ وَحُلُولَ الامْرِ، فَيُنَبِّهُ
بِالنَّفْخَةِ
7
8
the hostages thrown down in the graves; Michael,
possessor of standing with Thee
صَرْعى رَهَائِنِ الْقُبُورِ. وَمِيكَآئِيلُ ذُو
الْجَاهِ عِنْدَكَ،
8
9
and a raised up place in Thy obedience;
وَالْمَكَانِ الرَّفِيعِ مِنْ طَاعَتِكَ.
9
10
Gabriel, entrusted with Thy revelation,
وَجِبْريلُ الامِينُ عَلَى وَحْيِكَ،
10
11
obeyed by the inhabitants of Thy heavens,
الْمُطَاعُ فِي أَهْلِ سَمَاوَاتِكَ،
11
12
distinguished in Thy Presence, brought nigh to Thee;
الْمَكِينُ لَدَيْكَ، الْمُقَرَّبُ عِنْدَكَ،
12
13
the spirit who is over the angels of the veils;
وَالرُّوحُ الَّذِي هُوَ عَلَى مَلائِكَةِ الْحُجُبِ،
13
14
and the spirit who is of Thy command –
وَالرُّوحُ الَّذِي هُوَ مِنْ أَمْرِكَ.
14
15
O God! bless them and the angels below them:
أَللَّهُمَّ فَصَلِّ عليهم وَعَلَى الْمَلاَئِكَـةِ
15
16
the residents in Thy heavens,
الَّـذِينَ مِنْ دُونِهِمْ مِنْ سُكَّـانِ
سَمَاوَاتِكَ
16
17
those entrusted with Thy messages,
وَأَهْلِ الامَانَةِ عَلَى رِسَالاَتِكَ،
17
18
those who become not wearied by perseverance,
وَالَّذِينَ لا تَدْخُلُهُمْ سَأْمَةٌ مِنْ دؤُوب ،
18
19
or exhausted and flagged by toil,
وَلاَ إعْيَاءٌ مِنْ لُغُوب وَلاَ فُتُورٌ،
19
20
whom passions distract not from glorifying Thee,
وَلاَ تَشْغَلُهُمْ عَنْ تَسْبِيحِكَ الشَّهَوَاتُ،
20
21
and whose magnification of Thee is never cut off by
the inattention of heedless moments;
وَلا يَقْطَعُهُمْ عَنْ تَعْظِيمِكَ سَهْوُ
الْغَفَـلاَتِ،
21
22
their eyes lowered, they do not attempt to look at
Thee;
الْخُشَّعُ الابْصارِ فلا يَرُومُونَ النَّظَرَ
إلَيْكَ ،
22
23
their chins bowed, they have long desired what is
with Thee;
النَّواكِسُ الاذْقانِ الَّذِينَ قَدْ طَالَتْ
رَغْبَتُهُمْ فِيمَا لَدَيْكَ
23
24
unrestrained in mentioning Thy boons,
الْمُسْتَهْتِرُونَ بِذِكْرِ آلائِكَ
24
25
they remain humble before Thy mightiness and the
majesty of Thy magnificence;
وَالْمُتَوَاضِعُونَ دُونَ عَظَمَتِكَ وَجَلاَلِ
كِبْرِيآئِكَ
25
26
those who say when they look upon Gehenna roaring
over the people who disobeyed Thee:
وَالَّذِينَ يَقُولُونَ إذَا نَظَرُوا إلَى جَهَنَّمَ
تَزْفِرُ عَلَى أَهْلِ مَعْصِيَتِكَ:
26
27
‘Glory be to Thee, we have not worshipped Thee with
the worship Thou deservest!’
سُبْحَانَكَ مَا عَبَدْنَاكَ حَقَّ عِبَـادَتِكَ.
27
28
Bless them, and Thy angels who are the Reposeful,
فَصَـلِّ عَلَيْهِمْ وَعَلَى الرَّوْحَانِيِّينَ مِنْ
مَلائِكَتِكَ،
28
29
those of proximity to Thee, those who carry the
unseen to Thy messengers,
وَ أهْلِ الزُّلْفَةِ عِنْدَكَ، وَحُمَّالِ الْغَيْبِ
إلى رُسُلِكَ،
29
30
those entrusted with Thy revelation, the tribes of
angels whom Thou hast singled out for Thyself,
وَالْمُؤْتَمَنِينَ على وَحْيِكَ وَقَبائِلِ
الْمَلائِكَةِ الَّذِينَ اخْتَصَصْتَهُمْ لِنَفْسِكَ،
30
31
freed from need for food and drink by their calling
Thee holy,
وَأَغْنَيْتَهُمْ عَنِ الطَّعَامِ والشَّرَابِ
بِتَقْدِيْسِكَ،
31
32
and made to dwell inside Thy heavens’ layers,
وَأسْكَنْتَهُمْ بُطُونَ أطْبَـاقِ سَمَاوَاتِكَ،
32
33
those who will stand upon the heavens’ borders when
the Command descends to complete Thy promise,
وَالّذينَ عَلَى أرْجَآئِهَا إذَا نَزَلَ الامْرُ
بِتَمَامِ وَعْدِكَ،
33
34
the keepers of the rain, the drivers of the clouds,
وَخزّانِ الْمَطَرِ وَزَوَاجِرِ السَّحَابِ،
34
35
him at whose driving’s sound is heard the rolling of
thunder,
وَالّذِي بِصَوْتِ زَجْرِهِ يُسْمَعُ زَجَلُ
ألرُّعُوْدِ،
35
36
and when the reverberating clouds swim before his
driving, bolts of lightning flash;
وَإذَا سَبَحَتْ بِهِ حَفِيفَةُ السّحَـابِ الْتَمَعَتْ
صَوَاعِقُ الْبُرُوقِ.
36
37
the escorts of snow and hail, the descenders with
the drops of rain when they fall,
وَمُشَيِّعِيْ الْثَلْجِ وَالْبَرَدِ. وَالْهَابِطِينَ
مَعَ قَطْرِ الْمَطَر إَذَا نَزَلَ،
37
38
the watchers over the treasuries of the winds,
وَالْقُوَّامِ عَلَى خَزَائِنِ الرّيَاحِ،
38
39
those charged with the mountains lest they
disappear,
وَ المُوَكَّلِينَ بِالجِبَالِ فَلا تَزُولُ.
39
40
those whom Thou hast taught the weights of the
waters
وَالَّذِينَ عَرَّفْتَهُمْ مَثَاقِيلَ الْمِياهِ،
40
41
and the measures contained by torrents and masses of
rain;
وَكَيْلَ مَا تَحْوِيهِ لَوَاعِجُ الامْطَارِ
وَعَوَالِجُهَا،
41
42
the angels who are Thy messengers to the people of
the earth with the disliked affliction that comes
down
وَرُسُلِكَ مِنَ الْمَلائِكَةِ إلَى أهْلِ الارْضِ
بِمَكْرُوهِ مَا يَنْزِلُ مِنَ الْبَلاءِ،
42
43
and the beloved ease; the devoted, noble scribes,
وَمَحْبُوبِ الرَّخَآءِ، والسَّفَرَةِ الْكِرَامِ
اَلبَرَرَةِ،
43
44
the watchers, noble writers, the angel of death and
his helpers,
وَالْحَفَظَةِ الْكِرَامِ الْكَاتِبِينَ، وَمَلَكِ
الْمَوْتِ وَأعْوَانِهِ،
44
45
Munkar and Nakir, Rumaan, the tester in the graves,
وَمُنْكَر وَنَكِير، وَرُومَانَ فَتَّانِ الْقُبُورِ،
45
46
the circlers of the Inhabited House, Malik
وَالطَّائِفِينَ بِالبَيْتِ الْمَعْمُورِ، وَمَالِك،
46
47
and the guardians, Ridwan and the gatekeepers of the
gardens,
وَالْخَزَنَةِ، وَرُضْوَانَ، وَسَدَنَةِ الْجِنَانِ
47
48
those who “disobey not God in What He commands them
and do What they are commanded” (66:6);
وَالَّذِيْنَ لاَ يَعْصُوْنَ اللّهَ مَا أمَرَهُمْ
وَيَفْعَلُونَ مَا يُؤْمَرُونَ.
48
49
those who say, “Peace be upon you, for that you were
patient – and fair is the Ultimate Abode” (13:24);
وَالَّذِينَ يَقُولُونَ: سَلاَمٌ عَلَيْكُمْ بِمَا
صَبَرْتُمْ فَنِعْمَ عُقْبَى الـدّارِ.
49
50
the Zabaniya, who, when it is said to them, “take
him, and fetter him,
والزّبانيةُ الذّينَ إذَا قِيْـلَ لَهُمْ: خُذُوهُ
فَغُلُّوْهُ
50
51
then roast him in hell” (69:30), hasten to
accomplish it, nor do they give him any respite;
ثُمَّ الْجَحِيمَ صَلُّوْهُ ابْتَدَرُوهُ سِرَاعاً
وَلَمْ يُنْظِرُوهُ.
51
52
him whom we have failed to mention, not knowing his
place with Thee,
وَمَنْ أوْهَمْنَا ذِكْرَهُ، وَلَمْ نَعْلَمْ
مَكَانَهُ مِنْكَ،
52
53
nor with which command Thou hast charged him; and
the residents in the air, the earth, and the water,
وَبأيِّ أمْر وَكَّلْتَهُ. وَسُكّانُ الْهَوَآءِ
وَالارْضِ وَالمآءِ،
53
54
and those of them charged over the creatures; bless
them
وَمَنْ مِنْهُمْ عَلَى الْخَلْقِ فَصَلِّ عَلَيْهِمْ
54
55
on the day when “every soul will come, with it a
driver and a witness” (50:21),
يَوْمَ تَأْتي كُلُّ نَفْس مَعَهَا سَائِقٌ وَشَهِيدٌ،
55
56
and bless them with a blessing that will add honour
to their honour
وَصَلّ عَلَيْهِمْ صَلاَةً تَزِيدُهُمْ كَرَامَةً عَلى
كَرَامَتِهِمْ،
56
57
and purity to their purity.
وَطَهَارَةً عَلَى طَهَارَتِهِمْ
57
58
O God, and when Thou blessest Thy angels and Thy
messengers
اللّهُمَّ وَإذَا صَلَّيْتَ عَلَى مَلاَئِكَتِكَ
وَرُسُلِكَ،
58
59
and Thou extendest our blessings to them, bless us
وَبَلَّغْتَهُمْ صَلاَتَنَا عَلَيْهِمْ، فَصَلِّ
عَلَينا
59
60
through the good words about them which Thou hast
opened up for us! Thou art Munificent, Generous.
بِمَا فَتَحْتَ لَنَا مِنْ حُسْنِ الْقَوْلِ فِيْهِمْ
إنَّكَ جَوَاْدٌ كَرِيمٌ .
60

পরম করুণাময় এবং অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি

আরশ বহণকারী এবং নিকটস্থ ফেরেশতাদের উপর মুনাজাত।আরশ বহণকারী এবং নিকটস্থ ফেরেশতাদের উপর মুনাজাত।হে প্রভু! আরশ বহনকারীগণ কখনই আপনার নামের জিকির করতে ক্লান্ত হয় না। আপনার পবিত্রতা স্বনল করতে কখনই দ্বিধা করে না। তোমার এবাদত করায় কখনই তারা পরিশ্রান্ত হয় না। তোমার প্রতি
আগ্রাহাম্বিত হুকুম পালন (অনুগত) করতে কখনই তারা বিচ্যুত হয় না এবং কখনই তোমার প্রতি ভালবাসা প্রকাশ করতে অপারগ হয় না।আর হযরত ইস্রাফিলযে শিংগা ফুৎকাকারী এবং হুকুম ও সতর্ক। এবং তিনি অপেক্ষা করছেন মৃত্যুদেরকে সতর্ক করার হুকুম ও এর জন্য। যারা ধুলা-বালি নিয়ে কবরে শায়িত। আর হযরতআপনার ছহীফার বিশ্বস্ত, সে আপনা বিশ্ব ব্রক্ষèান্ডের অনুগতদের মধ্যে একজন। সে আপনার প্রতি দায়িত্বপরায়ণ এবং আপনার নিকটস্থ।আর সে, ফেরেশতাদের উপর পর্দার অন্তরালে আপনার আদেশ মেনে খাকে। আর সে, আপনার প্রতিনিধিদের হুকুম বয়ে বেড়ায়।সেজন্য, তাঁদের উপরে আর্শীবাদ হোক। তাদের ছাড়াও ঐ সকল ফেরেশতাদের উপরও যারা মহাকাশে বিচরণ করে এবং আপনার সংবাদ বিশ্বাসী। তাদের উপর অবসন্নতা প্রদর্শনে যাদের কোনো দোষ
নেই, পরিশ্রমের ক্ষেত্রে যাদের কোনো অবসাদ বা আলস্য নেই।আপনার নামের জিকির থেকে বিরত থাকার তাদের কোনো ইচ্ছে নেই, অথবা আপনার মহিমা বর্ণনা করা থেকে ভুলে থাকারও ইচ্ছে নেই।তাদের চোখগুলোকে নিচের দিকে নিবদ্ধ করে দেয়া হয়েছে যাতে তারা আপনার প্রতি সরাসরি দৃষ্টি ফেলতে না পারে।তাদের ধতনিতে ভীতপ্রদ রূপ প্রতিভাত হয়।তাদের পছন্দনীয় বস্তু হচ্ছে আপনার সাথে যা দীর্ঘ দিন ধরে রয়েছে।তারা যারা আপনার অনুগ্রহ পেতে আগ্রহী। তারা যারা নিজেদেরকে আপনার মহত্ত্ব এবং মর্যাদার গৌরব বা বন্দনা করায় নিয়োজিত রেখেছে। তারা যারা অবাধ্যদের জন্য রক্ষিত জাহান্নামের আগুন দেখে বলে, “আমরা আপনার মহিমা বর্ণনা করি! আমরা আপনার এবাদত করতে পারতাম না, যদি না আপনি (এবাদততুল্য হয়েও) এবাদত না গ্রহণ
করতেন।” নেজন্য, অনুগ্রহ তাদের জন্য এবং ফেরেশতাদের মধ্যে রুহানিয়াদের জন্য। অনুগ্রহ করুন যারা আপনার কাছে থাকার যোগ্য, যারা অদৃশ্য সংবাদকে আপনার রসুলদের নিকট পৌঁছায় এবং আপনার খবরে বিশ্বাসী হয়Ñ তাদের উপর।ঐ অসংখ্য ফেরেশতাদের উপর অনুগ্রহ করুন যাদেরকে আপনি নিজের জন্য নিয়োজিত করেছেন, আপনার পবিত্রতা স্বরণ করিয়ে যাদেরকে আপনি আহার ও পান করা থেকে মুক্ত করেছেন। আর তাদেরকে
আপনি সমৃদ্ধি দিয়েছেন বেহেশতের দালানের মাধ্যমে।তাদেরকে আপনি করুণা বর্ষণ করুন যারা অধীর আগ্রহ ভরে অপেক্ষা করছে। যখন আপনার হুকুম হয় তারা আপনার প্রতিজ্ঞা পূর্ণ করার জন্য নিয়োজিত হয়।করুণা বর্ষণ করুন তাদের যাদের রাগাম্বিত ধ্বনি শুনা যায় বজ্রের আওয়াজে যখন ভয়ানক বিদ্যুৎ চমকায়।করুণা বর্ষণ করুন তুষার এবং শিলার সঙ্গীদের উপর এবং তাদের উপর যারা বৃষ্টি ফোঁটার সাথে অবতরণ করে।তাদের উপর করুণা বর্ষণ করুন যারা বাতাস বন্টনে নিয়োজিত এবং তাদের উপর যারা পাহাড়ের উপর আবস্থান করে, কখনও তাদের স্থান খালি রেখে আসে না।তাদের উপর যাদেরকে আপনি বৃষ্টির পরিমাণ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন এবং মুষলধারে বৃষ্টির দ্বারা যা নেসে আসে তার ওজন।তাদের উপর শানিন্ত বর্ষিত হোক যারা মন্দ জলবায়ু আগমনের সংবাদদাতা (পৃথিবীবাসীদের জন্য), এবং আসন্ন সমৃদ্ধির সংবাদদাতা।করুণা বর্ষণ করুন মৃত্যুর ফেরেশতা এবং তার সহকারীদের উপর। করুণা বর্ষণ করুন মুনকার-নাকীরের উপর যারা কএর মৃতের পরীক্ষক এবং তাদের উপর যারা বায়তুল মা’মুরের চারদিকে চক্কর দেয়।করুণা বর্ষণ করুন মালিক, রিজওয়ান এবং বেহেশতের অন্যান্য প্রহরীদের উপর এবং তাদের উপর যারা আল্লাহ যা আদেশ করেছেন তা অমান্য করে না, বরঞ্চ তা যথাযথভাবে পালন করে যা তাদের
আদেম করা হয়। আর তাদের ইপর করুণা বর্ষণ করুন যারা বলে (নককারদের রহ্কে), “আপনার ধৈর্যের জন্য আপনার উপর শান্তি বর্ষিত হোক। দেখুন পরকালের আবাসস্থল কত সুন্দর।”       নেই অভিভাবক ফেরেস্তাদের উপর করুণা বর্ষণ করুন যারা “পাপীকে ধরতে এবং বাঁধতে এবং তারপরে তাকে জাহান্নামে ফেলে দিতে” তাড়াতাড়ি পাপীর নিকটবর্তী হতে বলে এবং তাকে (পাপীকে)
কোনো বিরতি দেয় না। করুণা বর্ষণ করুন তার উপরে আমরা যার কথা বলতে অপারগ। যার মর্তব্য আমরা আপনার কাছ থেকে জাকনতে পারি নি অথবা এটাও জানিনা যে তাকে কোথায় নিযুক্ত করেছিন।করুণা বর্ষণ করুন বাতাস, মাটি এবং পানির ফেরেস্তাদের উপর এবং ঐ সংক্যক ফেরেস্তাদের উপর যাদেরকে আপনার মাখলুকদের উপর নিযুক্ত করেছেন।সেজন্য, ঐ দিনে তাদের উপর করুণা বর্ষণ করুন যেদিন প্রত্যেক আত্মা একজন সাইক এবং একজন সাদিক নিয়ে আসবে। আর তাদেরকে করুণার দ্বারা সাহায্য করবে যা তাদেরকে মর্যাদার উপর এবং
পবিত্রতার উপর পবিত্রতা দান করবে। হে প্রভু, যখন আপনি ফেরেস্তাদের এবং আপনার দূতদের উপর করুণা বর্ষণ করেছেন এবং আমাদের করুণা প্রদান করেছেন, আপনি তাদের উপর ঐ অনুগ্রহ করুন যা আমরা প্রকাশ করতে অক্ষম।
বিশেষত আপনি অনুগ্রহশীল এবং অতি দানশীল।হযরত মুহাম্মদের (তাঁর উপর ও তাঁর বংশধরদের উপর শান্তি বর্ষিত হোক) বংশধরদের স্বরণে একটি মুনাজাত)হে প্রভু, আপনি হযরত মুহাম্মদ (স) এবং তাঁর বংশধরদের চমৎকারভাবে স্বতন্ত্র করেছেন। আপনার ক্ষমতার দ্বারা তাদেরকে বিশ্বস্ত করেছেন এবং অধিকার দিয়ে (বিশেষ) সাহায্য করেছেন। আপনি
তাদেরকে নবীর উত্তরাধিকারী বানিয়েছেন। আপনি তাদের দ্বীনের কর্তৃত্বের এবং সফলতার সীল মোহর দিয়েছেন। আপনি তাদের সকল প্রকার জ্ঞান শিক্ষা দিয়েছেন যা পুরোপুরি এমন বর্তমান। আপনি
মানুষের মনরক তাদের জন্য আকাঙ্খিত করেছেন।হে প্রভু, হযরত মুহাম্মদ (স) এবং তাঁর বংশধরদের উপর অনুগ্রহ করুন, যারা ছিলেন খাঁচি মানব। এবং আমাদেরকে কল্যাণ দান করুন। আপনি দুনিয়া এবং আখিরাতের সবকিছু করার অধিকার রাখেন।
ব্যাপকভাবে, সবকিছুর উপর আপনার কাষমতা বিদ্যমান।

Ref: হযরত ইমাম জয়নাল আবেদীন আল ছহীফাহ্ আল সাজ্জাদীয়াহ্
অনুবাদ মুহাম্মদ মাঈনউদ্দিন
অন্যধারা, ৩৮/২-ক বাংলাবাজার (৫ম তলা) ঢাকা-১১০০
প্রকাশকাল : সেপ্টেম্বর ২০০৮
বাংলা অনুবাদ:
প্রকাশক ২০০৮