দুনিয়ার ক্ষণস্থায়ীত্ব ও এর মানুষের অবস্থা সম্পর্কে
হে আল্লাহর বান্দাগণ! তোমরা এবং এ দুনিয়া থেকে তোমরা যা কিছু কামনা কর তার সবই নির্ধারিত সময়ের অতিথি মাত্র এবং ঋণদাতার মতো যে শুধু ঋণ পরিশোধের জন্য আহবান করে। তোমাদের জীবনকাল ক্রমশ কমে আসছে আর তোমাদের আমলের রেকর্ড যথাযথভাবে সংরক্ষিত হচ্ছে। অনেক উদ্যমী লোক সময়ের অপচয় করছে এবং যারা সচেষ্ট তাদের অনেকেই ক্ষতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। তোমরা এমন এক সময় আছো যখন সৎগুণাবলী ও ধাৰ্মিকতার অবক্ষয় হচ্ছে, পাপ সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে এবং মানুষের ধ্বংসের জন্য শয়তান অত্যাগ্রহী হয়ে পড়ছে। বর্তমান সময়ে শয়তানের সরঞ্জাম শক্তিশালী, তার ফাঁদ সুবিস্তৃত এবং তার শিকার ধরা সহজসাধ্য হয়ে পড়েছে।
যেদিকে ইচ্ছা মানুষের দিকে তাকাও, দেখতে পাবে হয় দারিদ্র-নিষ্পেষিত দরিদ্র লোক, না হয় ধনীলোক যারা আল্লাহর নেয়ামত ভোগ করা সত্ত্বেও তাকে উপেক্ষা করছে, না হয় কৃপণ লোক, যে আল্লাহর প্রতি দায়িত্ব পদদলিত করে সম্পদ বৃদ্ধি করছে, না হয় অবাধ্য লোক, যে সকল প্রকার উপদেশ থেকে কানকে রুদ্ধ রাখছে। কোথায় তোমাদের কল্যাণকামী লোকসকল; কোথায় তোমাদের ন্যায়বানগণ? কোথায় তোমাদের আদর্শবাদী ও দয়াদ্রাচিত্ত লোকসকল? কোথায় তোমাদের সেসব লোক যারা ব্যবসায়ে প্রতারণা করে না এবং তাদের আচরণে তারা পরিশুদ্ধ। তারা সবাই কি এ অমর্যাদাকর, ক্ষণস্থায়ী ও বিপদজনক দুনিয়া থেকে প্রস্থান করে নি? তোমাদেরকে কি সেসব লোকের মধ্যে রেখে যায়নি যারা নিচ-নোংরা-যারা এত নিচ যে, তাদের কথা মুখে আনা যায় না— যাদের নিচতার প্রতি ঘূণা প্রকাশ করতে ঠোঁট নড়ে না।
আমরাতে আল্লাহরই এবং নিশ্চিতভাবেই তাঁর দিকে প্রত্যাবর্তনকারী ($(‘</ଏin-୯୫:୪le)
ফেতনা ছড়িয়ে পড়েছে। এর বিরোধিতা বা গতিরোধ করার মতো কাউকে দেখছি না। এর প্রতি
বিরাগ সৃষ্টিকারী বা একে বিরত করার মতে কাউকে তাে দেখছি না। এসব গুণাবলী নিয়েই কি তোমরা আল্লাহর পবিত্ৰ সান্নিধ্য কামনা কর ও তাঁর একনিষ্ঠ প্রেমিক হতে চাও? আহা!! আল্লাহকে তাঁর বেহেশত সম্বন্ধে ছলনা করা যায় না এবং তার আনুগত্য ব্যতিরেকে তাঁর রহমত লাভ করা যায় না। তাদের ওপর আল্লাহর অভিশাপ যারা অন্যকে ভালো উপদেশ দেয়। কিন্তু নিজে তা করে না এবং যারা অন্যকে পাপে বাধা দেয়, কিন্তু নিজে পাপে লিপ্ত।